salmansam

Members
  • Content count

    120
  • Joined

  • Last visited

  • Days Won

    45

Reputation Activity

  1. Shahdoot Hossain liked an answer to a question by salmansam in ফরেক্স এবং বাইনারি অপশন ট্রেডিং এর মধ্যে পার্থক্য কি ?   
    ফরেক্স ট্রেডিং তো বায় এবং সেল আর বাইনারি মনে হয় অনেকটা গেম এর মত যে মার্কেট ১ মিনিট পরে কোথায় যাবে এটার একটা আন্দাজ পূর্বক ট্রেড ওপেন করা এবং সঠিক হলে কয়েকগুন বেশি প্রফিট নেওয়া/ 
  2. Shahdoot Hossain liked a post in a topic by salmansam in ইসলামিক দৃষ্টিতে ফরেক্স কি হালাল !   

    ফরেক্স ট্রেডিং হচ্ছে বিভিন্ন দেশের মুদ্রা কেনা বেচা। সেসব দেশের সেন্ট্রাল ব্যাংক কর্তৃক তাদের মুদ্রার একটা ইন্টারেস্ট রেট থাকে। আপনি ফরেক্স ট্রেড করলে সেই ইন্টারেস্ট রেট আপনার বেলায়ও প্রযোজ্য হবে। এই ইন্টারেস্ট মুসলিমদের জন্য হারাম। এই ঝামেলা দূর করার জন্য প্রায় সব ব্রোকার আজকাল ইন্টারেস্ট ফ্রি একাউন্ট / ইসলামিক একাউন্ট / মুসলিম ফ্রেন্ডলি একাউন্ট সাপোর্ট করে যেখানে ঐ ইন্টারেস্ট হিসাব হয় না। তাহলে সেন্ট্রাল ব্যাংক ইন্টারেস্ট যেটা হারাম সেটা থেকে আমরা মুক্ত।

    এরপর আসি লেভারেজ এর ব্যাপারে। লেভারেজ হচ্ছে ব্রোকার আপনাকে ট্রেড করার জন্য বিভিন্ন অনুপাতে সুদবিহীন এবং শর্তব্যাতীত ধার দিবে। যদি ব্রোকার ধার দেয়ার সময় কোন সুদ / শর্ত দিত তাহলে সেটা হারামের পর্যায়ে পড়ত। বাংলাদেশের শেয়ার মার্কেটেও ১:২ অনুপাতে লোন দেয়া হয়।

    এখন আসি প্রোডাক্ট এর ব্যাপারে। ফরেক্স এ বিভিন্ন দেশের মুদ্রা কেনাবেচা করা হয়। এরকম একদেশের মুদ্রা অন্যদেশের মুদ্রার সাথে কেনা বেচায় হারাম কিছু নেই। আপনি আমেরিকা যেতে চাইলে আপনাকে বাংলাদেশী টাকা চেঞ্জ করে মার্কিন ডলার নিতে হবে। ধরুন আপনি আমেরিকা যাবেন। ভিসা টিকেট খাবার খরচ বাদে আপনি এক্সট্রা দশ হাজার মার্কিন ডলার নিলেন হাতখরচের জন্য। ধরি এই পরিমাণ ডলার নিতে আপনার খরচ হয়েছে ৭০.০০ টাকা করে ৭ লক্ষ টাকা। এরপর আমেরিকা গিয়ে আপনাকে জরুরী কাজে পরদিনই চলে আসতে হল। কিছু কিনতে পারলেন না। দেশে এসে দশ হাজার ডলার গুলো ভাঙিয়ে বাংলাদেশী টাকা নিতে গেলেন। দেখলেন আজকের রেট ৭০.১০ টাকা। আপনি পেলেন ৭ লক্ষ দশ হাজার টাকা। এখানে আপনি ১০ হাজার টাকা এক্সট্রা পেলেন। কিন্তু যদি আজকের রেট ৬৯.৯০ থাকত তবে আপনি পেতেন ৬ লক্ষ ৯০ হাজার মানে আপনার ১০ হাজার টাকা লস হত। এখানে হালাল হারাম প্রশ্ন অবান্তর।

    ফরেক্সে এক মুদ্রার বিপরীতে অন্য মুদ্রা ক্রয় বিক্রয় হয় তাই এতে হারাম কিছু নেই। যদি ডলারের বিপরীতে ডলার কিংবা ইউরোর বিপরীতে ইউরো কেনাবেচা হত তবে হারাম হত কারণ ১ ডলার এর ভ্যালু সবসময় ১ ডলার, কেউ যদি ১ ডলার কে ২ ডলার দিয়ে কিনে সেটা সুদ হবে।

    এই প্রসংগে একটা বিখ্যাত হাদীস আছে -

    কোটেশন
    From 'Ubada ibn al-Samit: The Prophet, peace be on him, said: "Gold for gold, silver for silver, wheat for wheat, barley for barley dates for dates, and salt for salt - like for like, equal for equal, and hand-to-hand; if the commodities differ, then you may sell as you wish, provided that the exchange is hand-to-hand." (Muslim, Kitab al-Musaqat, Bab al-sarfi wa bay'i al-dhahabi bi al-waraqi naqdan; also in Tirmidhi).


    গোল্ড এর বিনিময়ে গোল্ড কেনা যাবে না বা সিলভারের বিনিময়ে সিলভার। যদি এর ব্যতিক্রম হয় তবে যেভাবে ইচ্ছা সেভাবে কেনাবেচা করা যাবে। শুধুমাত্র মনে রাখতে হবে এক্সচেঞ্জ হতে হবে হ্যান্ড টু হ্যান্ড । যদি দেরী হয় তবে সেটা গ্রহণযোগ্য হবে না।

    এখন ফরেক্স ট্রেড মানে স্পট ফরেক্স ট্রেড। এখানে আপনি বর্তমান প্রাইসেই কেনা বেচা করতে পারবেন, তাই এখানে দেরী হওয়ার চান্স নেই।

    হ্যান্ড টু হ্যান্ড কথাটা নিয়ে অনেকে বিতর্ক তুলতে পারে। যেমন আমরা যদি মুদ্রা কেনাবেচা করি তবে আমাদের হাতে হাতে মুদ্রা নিয়ে ঘুরতে হবে এবং কেনাবেচা করতে হবে। এটা অমূলক। ইন্টারনেটের যুগে ঘরে বসে লেনদেন সহজ হয়ে যাওয়ার ফলে কোন কিছু কিনতে বা বিক্রি করতে ঐ প্রোডাক্ট নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে হয় না। এই যুগে হাতে না রেখে আমরা একাউন্ট খুলে রাখি। ব্যাংকে একাউন্ট / শেয়ার মার্কেটে একাউন্ট এরকম। ব্যাংকে আপনি কাউকে চেক দিলে ব্যাংক কি করে? আপনার একাউন্ট থেকে টাকাটা ঐ ব্যক্তির একাউন্টে ট্রান্সফার করে দেয়। শেয়ার মার্কেটেও এরকম। সেলারের একাউন্ট থেকে শেয়ার গুলো বায়ার এর একাউন্টে ট্রান্সফার করে দেয়। এরকম ফরেক্সেও একই। আরেকজনের একাউন্ট থেকে আপনার একাউন্টে টান্সফার করে দেয়। এটাকে একাউন্ট টু একাউন্ট ট্রান্সফার বলা যায়।

    একনজরে দেখি ফরেক্সে কি ঘটে -

    ১. আপনি দেখলেন ইউরো / ইউএসডি দাম ১.৪০০০। আপনি এনালাইসিস করে দেখলেন ইউরো বাড়ার সম্ভাবনা প্রচুর,
    আপনি কিছু ইউরো / ইউএসডি কিনবেন বলে মনস্থির করলেন।
    ২. আপনি একটা ব্রোকার সিলেক্ট করলেন যে আপনার হয়ে কোন সেলার থেকে ইউরো /ইউএসডি কিনে দিবে। ঐ ব্রোকারে
    আপনি একটা ইসলামিক একাউন্ট খুললেন।
    ৩. ঐ ব্রোকার আপনাকে একটা প্রাইস দিল যে এখন ইউরো / ইউরো ইউএসডি ১.৪০৫০ রেটে আছে। আপনি ঠিক করলেন
    এই রেটেই কিনবেন। আপনি BUY এ ক্লিক করলেন
    ৪. আপনার বাই অর্ডার ব্রোকার রিসিভ করল এবং সাথে সাথে ১.৪০৫০ রেটে আপনার জন্য ইউরো / ইউএসডি কিনে আপনার জন্য নির্দিষ্ট একাউন্টে রেখে দিল।
    ৫. এরপর কিছুদিন পর ইউরো ইউএসডি দাম বাড়ল এবং আপনি সেল করে দিলেন।

    এখানে আপনি হারাম কিছু করেন নি। ইউএসডির বিপরীতে ইউরো কিনেছেন, ইন্টারেস্ট ফ্রি ইসলামিক একাউন্টে ট্রেড করছেন এবং আপনার অর্ডার হ্যান্ড টু হ্যান্ড ট্রান্সফার হয়েছে (সেলারের একাউন্ট থেকে আপনার একাউন্টে) ।

    আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

    সংগ্রহীত
  3. Shahdoot Hossain liked an answer to a question by salmansam in ফরেক্স এবং বাইনারি অপশন ট্রেডিং এর মধ্যে পার্থক্য কি ?   
    ফরেক্স ট্রেডিং তো বায় এবং সেল আর বাইনারি মনে হয় অনেকটা গেম এর মত যে মার্কেট ১ মিনিট পরে কোথায় যাবে এটার একটা আন্দাজ পূর্বক ট্রেড ওপেন করা এবং সঠিক হলে কয়েকগুন বেশি প্রফিট নেওয়া/ 
  4. ekhra liked a post in a topic by salmansam in স্বাগতম ও শুভেচ্ছা !   
    ফোরামটার মান অনেক ভালো কিন্তু এই ফোরামে পোস্ট পড়ছে না, পোস্টার ভায়েরা কি সব হারিয়ে গেলেন নাকি ?
  5. Mhafiz™ liked a post in a topic by salmansam in অনেকতো লস করলেন এইবার আসুন একটু লাভের হিসাবটা দেখে জান।   
    কিভাবে লসের খাঁচা ভেঙ্গে বেরিয়ে আসবেন? ফরেক্স মার্কেটে অনেক সময় ট্রেডারদের এমন সময় যায় যখন তারা কেবল লসই করতে থাকেন। একের পর এক লস করতে করতে তারা হতাশ হয়ে পড়েন এবং ফরেক্স থেকেই বিদায় নিতে চান। আসুন দেখি কিভাবে এই লসের বৃত্ত ভেঙ্গে বেড়িয়ে আসা যায়।
    ১. লট সাইজ কমিয়ে দিনঃ
    আমাদের যখন একের পর এক লস হতে থাকে তখন আমরা সব লস রিকভার করার জন্য লট সাইজ বাড়িয়ে দিই কিন্তু এই ট্রেডটিও আমাদের বিপরীত দিকে গেলে আমাদের একাউন্ট ঝুকির মুখে পড়ে যায়। তাই যখন আমাদের ট্রেড একের পর এক লস হতে থাকবে তখন আমাদের উচিত লট সাইজ কমিয়ে ট্রেড করা। স্বাভাবিক অবস্থায় আমরা যদি ৩% রিস্ক নিয়ে ট্রেড করে থাকি তাহলে আমাদের রিস্ক ১% বা .৫০% এ নিয়ে আসা উচিত এতে আমাদের ট্রেডগুলো বিপরীতদিকে গেলেও খুব বেশী লস হবে না। এবং যখন আমাদের মাঝে আত্ববিশ্বাস ফিরে আসবে তখন আবার স্বাভাবিক রিস্কে ট্রেড করা উচিত।
    ২. বড় টাইমফ্রেম বেছে নিনঃ
    যদি আমরা স্বাভাবিক ভাবে M30, H1 দেখে ট্রেডিং করি তাহলে আমাদের উচিত Daily, Weekly H4 দেখে ট্রেড করা। তাহলে আমাদের ট্রেড উইনিং চান্সটিও বেড়ে যাবে।
    ৩. একটি পেয়ার বেছে নিনঃ
    আমাদের ট্রেড লসের এই বৃত্ত ভাঙ্গতে না পারলে আমাদের উচিত নির্দিষ্ট একটি কারেন্সি পেয়ার বেছে নিয়ে তাতে ট্রেড করা এবং আমাদের সম্পূর্ণ মনোযোগ ঐ নির্দিষ্টি একটি পেয়ারেই দেওয়া।
    ৪. কিছুদিন বিশ্রাম নেওয়াঃ একটানা ট্রেড করতে করতে অনেক সময় মাথা জ্যাম হয়ে যায় তাই অনেক সিদ্ধান্ত সঠিকভাবে নেওয়া যায়না। তাই আমাদের কিছুদিন বিশ্রাম প্রয়োজন। আমাদের ট্রেড যদি উপর্যোপরি লস হতেই থাকে তবে আমাদের উচিত কিছুদিনের জন্য বিশ্রামে যাওয়া। এই সময় চার্টের দিকে না তাকিয়ে বা মার্কেটের কোন খবর না নিয়ে দূরে কোথাও ঘুরতে যাওয়া উত্তম। সেখান থেকে ফিরে ফ্রেস মনে আবার ট্রেড করা উচিত।
    ৫. ডেমু একাউন্টে ট্রেড করাঃ
    তবুও যদি লসের বৃত্ত না ভাঙ্গা যায় তাহলে আমাদের কিছুদিন ডেমু একাউন্টে ট্রেড করা উচিত। তবে ঐ সময় আমাদের ডেমু একাউন্টটিকেই লাইভ একাউন্টের মতই গুরুত্ব দিয়ে করতে হবে এবং এখানেও লস হলে লসের কারণগুলো খুঁজে বের করতে হবে।
    ৬. নির্দিষ্ট একটি ক্যান্ডেলস্টিক প্যাটার্ন মেনে ট্রেড করাঃ
    যখন আমাদের কেবল লস হতেই থাকবে তখন আমাদের উচিত নির্দিষ্ট একটি ক্যান্ডেলস্টিক প্যাটার্ন মেনে ট্রেড করা। যেমন তা হতে পারে RSI ট্রেন্ডলাইন । মার্কেটে যখনই এগুলো দেখা যাবে তখনই আমরা ট্রেড করবো অন্যথায় বিরত থাকবো। এতে করে একটি নির্দিষ্ট প্যাটার্নের উপর আমাদের যথেষ্ট দক্ষতা চলে আসবে এবং ঐ প্যাটার্নের উপর আমাদের উইনিং চান্সটিও বেড়ে যাবে।
    ৭. নিজের উপর বিশ্বাস রাখাঃ
    নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। নিজের স্ট্যাটেজির উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। মনে মনে এই মন্ত্র জঁপতে হবে যে “আমি পারব, অবশ্যই পারব” এবং এই পারার জন্য সাধনা চালিয়ে যেতে হবে। নিজের যে ট্রেডগুলো লস হয়েছে তা পরীক্ষাগারে রেখে তার উপর ছুড়ি চালিয়ে লস হওয়ার কারণগুলো খুঁজে বের করতে হবে।

    সব শেষেঃ
    মাতৃজঠর থেকে বেরিয়েই কেউ গুরু হয়ে যায়না, “প্রত্যেক গুরুই একসময় ছাত্র ছিল” এবং ধীরে ধীরে চেষ্টায় তারা গুরুর মর্যাদা লাভ করে। তাই আমাদের চেষ্টা ও অধ্যাবসায় চালিয়ে যেতে হবে। ফরেক্স মার্কেটে আসার আগে বা একে বিদায় জানানোর আগে আমাদের নিজেকে প্রশ্ন করা উচিত আমরা পরাজিত হতে চাই নাকি জয়ী? আমাদের জেনে রাখা উচিত “যারা টিকে থাকে তাদের মধ্য থেকেই জয়ী নির্বাচিত হয়” আর “হাততালি পেতে হলে মাঠে নামতে হয় অন্যথায় দর্শকসারিতে বসে অন্যকে হাততালি দিতে হয়”।
    ট্রেন্ডলাইন সম্পর্কে কিছু আলোচনা
    ট্রেন্ডলাইন :
    ট্রেন্ডলাইন খুব সাধারন এক ধরনের অ্যানালিসিস। ট্রেন্ডলাইনের আবার সবচেয়ে বেশি অপব্যাবহার করা হয়। যদি ট্রেন্ডলাইন ঠিক করে আকা হয় তাহলে এটা অন্যান্য মেথডের মত প্রাইসের সঠিক ধারা দেখাবে। দুর্ভাগ্যক্রমে বেশিরভাগ ট্রেডাররাই ট্রেন্ডলাইন ঠিক করে আকে না আর তারা লাইনগুলোকে নিজের ইচ্ছামত মার্কেটে ফিট করার চেষ্টা করে।
    ট্রেন্ডলাইন কিভাবে ড্র করে?
    সঠিকভাবে ট্রেন্ডলাইন ড্র করতে আপনাকে ২টা মেজর টপ অথবা বটম খুজে বের করতে হবে ।
    ৩ ধরনের ট্রেন্ড :
    আপট্রেন্ড - যখন প্রাইস হাইয়ার লো দেখায়
    ডাউনট্রেন্ড - যখন প্রাইস লোয়ার হাই দেখায়
    সাইড/ফ্ল্যাট ট্রেন্ড - যখন প্রাইস একটা রেঞ্জের মধ্যে চলাচল করে ।
    ট্রেন্ডলাইন সম্পর্কে কিছু জিনিস মনে রাখবেন:
    *ট্রেন্ডলাইন ড্র করতে ২টা টপ অথবা বটম প্রয়োজন, কিন্তু ট্রেন্ড নিশ্চিত করতে ৩য় টপ অথবা বটম লাগে।
    *ট্রেন্ডলাইন যত খাড়া হবে সেটা ততো অনির্ভরশীল হবে।
    *ট্রেন্ডলাইন যত সাপোর্ট ও রেজিস্টেন্স টেস্ট করবে, তা ততো নির্ভরযোগ্য হবে।
    *টেন্ডলাইনকে মার্কেটে ফিট করার চেষ্টা করবেন না। যদি ট্রেন্ডলাইন ফিট না হয়, তাহলে সেটা সঠিক ট্রেন্ডলাইন না।
    Courtesy by: Azim
  6. amaamt1 liked a post in a topic by salmansam in প্রফেশনাল কিছু ট্রেডিং কৌট – জানলে এগিয়ে যাবেন, না জানলে হয়ত অনেক কিছুই হারাবেন !   
    Its just awesome post ! খুবই গুরুত্তপুর্ন সব কৌট, আসলেই মেনে চললে অনেক কিছু পাওয়া যাবে আর না মানলে সত্যি অনেক কিছুই মিস হয়ে যাবে। ধন্যবাদ জয় ভাই এমন সব গুরুত্তপুর্ন বিসয় নিয়ে আলোচনা করে ট্রেডিং স্কিলকে আরো ডেভেলপ করার জন্য।

  7. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in ForexTime ব্রোকার সম্পরকে জানান   
    হাঁ ফরেক্স টাইম ভালো একটি ব্রোকার, এই ব্রোকার সম্পর্কে খুব শিগ্রই বিস্তারিত তথ্য ট্রেডিং সুবিধা, অসুবিধা সহ এই ব্রোকারের নানা রকম তথ্য নিয়ে আসব খুব তাড়াতাড়ি। ধন্নবাদ; 
  8. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in IronFX স্ক্যাম ব্রোকার, সাবধান!   
    IronFX স্ক্যাম ব্রোকার, সাবধান!

    IronFX একটি স্ক্যাম ব্রোকার । ২০১৪ সাল থেকে চাইনিজ ইনভেস্টররা তাদের ইনভেস্টেড টাকা পাচ্ছে না, উইথড্র করতে গেলে তাদের একাউণ্ট ব্লক করে দেওয়া হচ্ছে। চাইনা’র সব IronFX  অফিস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।এবং ম্যানেজাররা headquarter in Cyprus পালিয়ে গিয়েছে। কিছু কিছু ইনভেস্টর অনেক হয়রানির পর কিছু টাকা পেয়েছে। চাইনিজ এক বেক্তি তাদের অফিস থেকে মারামারি করে টাকা নিত সক্ষম হয়েছে। এই ব্রোকারে যারা ইতিমধ্যে ইনভেস্ট করেছেন তাদের ভবিষ্যৎ কি জানিনা, আর যারা ইনভেস্ট করবেন বলে চিন্তা করছেন। তাদেরকে সতর্ক করছি সাবধান।
    উপরের ছবিটি সেই কথাই বলে।
    সুত্রঃ  লিঙ্ক
  9. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in ফরেক্স ব্রোকার রেগুলেশন, রেফারেন্স এবং রিভিউ !   

    ফরেক্স ব্রোকার রেগুলেশন, রেফারেন্স এবং রিভিউ !
    ট্রেড শুরু করতে একাউন্ট অপেন করা জন্য প্রয়োজন হয় একটি ব্রোকাররের। ফরেক্স মার্কেটের অসংখ্য ব্রোকাররের মধ্য থেকে কোন ব্রোকারটি কেমন, কার সুবিধা কেমন, কিংবা কার কি অসুবিধা, কোন ব্রোকার লেনদেন এর দিক দিয়ে কতটা স্বচ্ছ বা কোন ব্রোকারটি রেগুলেটেড ইত্যাদি নানা বিষয় জেনে শুনে ব্রোকার সিলেক্ট করতে হয়। আপনি নতুন কিংবা পুরাতন যেমন ট্রেডার হোন না কেন, বিষয়টির উপর নির্ভর করছে আপনার ট্রেডিং স্বচ্ছতা।
    তাই এখন আমরা দেখব একটি ব্রোকার এর কি কি সুবিধা এবং স্বচ্ছতা থাকলে তাকে রিয়েল ব্রোকার বলা যায়।

    কোন ব্রোকার কে রিয়েল প্রমাণিত করতে চাইলে সেই ব্রোকার এর নিম্নোক্ত বিষয়গুলোর স্বচ্ছতা অনুধাবন একান্ত প্রয়োজন।

    ১। ব্রোকারটি রেগুলেটেড (Regulated)?: ব্রোকার নির্বাচনে আপনার প্রথম প্রশ্নটি হল আপনি যে ব্রোকারটি সেলেক্ট করতে যাচ্ছেন তা ব্রোকার নিয়ন্ত্রক অর্গানাইজেশন বা অথোরিটি থেকে রেগুলেটেড কিনা। কারন প্রত্যেকটি রেগুলেটেড ব্রোকার কে তার ফাইনেনশিয়াল রিপোর্ট সাবমিট করতে হয় রেগুলেটরি অথোরিটির কাছে। আর যখন কোন ব্রোকার তা সাবমিট করতে অপারগ হয় বা সাবমিট করে না তখন রেগুলেটরি অথোরিটি ঐ ব্রোকার চার্জ করে বা তার মেম্বারশীপ বাতিল করে। দেশ ভিত্তিক ব্রোকার রেগুলেটরি অথোরিটি ভিন্ন হতে পারে। যেমনঃ আমেরিকান (U.S. based) ব্রোকার হলে তাকে লোকাল অথোরিটি NFA (National Futures Association) এবং CFTC (Commodity futures Trading Commission) করতিক অথোরাইজড হতে হবে। আবার সুয়িস বেসড(Swiss Based) ব্রোকার হলে তাকে অবশ্যই FDF (Federal Department of Finance) এবং U.K. বেসড ব্রোকার হলে তাকে FSA করতিক অথোরাইজড হতে হবে। তাই আপনি যে ব্রোকারকে সিলেক্ট করছেন তার এই স্বচ্ছতা গুলো দেখে নিশ্চিত হতে পারেন।

    ২। ট্রেডিং কন্ডিশন(Trading Conditions): আপনি দ্বিতীয় যে বিষয় গুলো দেখবেন তা হল ঐ ব্রোকার আর ট্রেডিং সুবিধাগুলো। যেসব বিষয় আপনি দেখবেন সেগুলো হলঃ



    ক) Spread: অবশ্যই দেখবেন কারেন্সি পেয়ারে অন্যদের তুলনায় স্প্রেড কত কম, স্প্রেড যত কম হবে আপনার ট্রেডিং ক্যাপাবিলিটি তত ভালো হবে।

    খ) Platform Execution: অর্থাৎ আপনি দেখবেন ঐ ব্রোকারের ট্রেডিং এক্সিকিউশন কত ফাস্ট। অর্থাৎ আপনি যখন কোন অর্ডার মেইক করেন তখন কত দ্রুত আপনার অর্ডারটি মেইক হচ্ছে।

    গ) Fractional Trading: আপনি যদি মিনি লট বা মাইক্রো লট ট্রেডিং ট্রেডার হোন তাহলে দেখতে হবে ঐ ব্রোকারের Fractional Trading সুবিধাটা আছে কিনা। কারন সব ব্রোকার মাইক্রো লট বা Fractional Trading সাপোর্ট করে না।

    ঘ) Safety of Funds: আপনাকে আরো নিশিত হতে হবে আপনার ইনভেস্টিং এমাউন্টটি কত সেইফ বা নিরাপদ। ব্রোকাররা তাদের একটি Segregated Account সুবিধার মাধ্যমে তা নিশিত করে।

    ঙ) Trading Platform: সহজভাবে ব্যাবহার সুবিধা দেখবেন, এটি সব ব্রোকারের ক্ষেত্রে ডিফল্ট হয়ে থাকে তাই চিন্তার তেমন কোন কারন নাই।

    চ) Minimum Investment: এই বিষয়টি ও খুব গুরুত্তপূর্ণ অর্থাৎ ঐ ব্রোকার সর্বনিম্ন কত এমাউন্ট ডেপোজিটে ট্রেডিং সুবিধা প্রদান করছে।

    ছ) Margin(Leverage): এই ক্ষেত্রে বিবেচ্য বিষয় হল আপনার চাহিদা অনুসারে ব্রোকার ঐ পরিমান মার্জিন সুবিধা দিচ্চে কিনা তবে মোটামুটি এখন প্রায় ব্রোকার ১-৬০০ লিভারেজ দিচ্ছে।

    জ) One Click Dealing: যদি আপনার ট্রেডিং স্টাইল হয় খুব স্বল্প সময়ের এবং আপনি যদি দ্রুততার সাথে মার্কেটে প্রবেশ করতে চান এই অপশনটি আপনার জন্য।

    ঝ) Advanced type of orders: কখনো আপনি আপনার ট্রেডিং স্ট্রেটিজিতে দুটি অর্ডার করতে পারেন শর্ত হলে একটি যেকোন একটি অর্ডার এক্সিকিউট হলে অপর অর্ডারটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে কেনসেল (OCO) হয়ে যাবে । তাই আপনার ট্রেডিং স্ট্রেটিজি অনুসারে ব্রোকারের এই সুবিধাটিও দেখতে পারেন। এছাড়া GTC(Good till Canceled), GFD(Good for the Day) নামক কিছু অর্ডার সুবিধা ব্রোকাররা দিয়ে থাকে।

    ঞ) Support for Handheld, Mobile and other device: এই সুবিধাটি না উল্লেখ করলেও আপনি অনুভব করতে পারতেন, আপনার পকেট ডিভাইস সাপোর্ট প্লাটফর্ম হলে কতখানি সুবিধা তা আশা করছি আর বিস্তারিত বলেতে হবে না।

    ট) Trade Directly from the chart: অনেক ট্রেডার আছে যারা সরাসরি চার্ট থেকে ট্রেড করতে চায়। তাই চার্ট থেকে ট্রেডিং কৌওট পেনেল সুবিধাটিও আপনার প্রয়োজন হতে পারে।

    ঠ) Trailing Stop: এটি ফরেক্স মার্কেটের খুবই সুন্দর একটি সুবিধা যা ব্যাবহার এর মাধ্যমে মার্কেট আপনার অনুকুলে আপনি আপনার প্রফিটকে লক করার মাধ্যমে বাড়াতে পারেন।

    এছাড়া ও ট্রেড শুরু করলে আপনি আরো বিভিন্ন ধরনের সুবিধা অনুভব করবেন এবং ব্রোকার অভারভিউ পর্যবেক্ষণ এর মাধমে আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত ব্রোকারকে সিলেক্ট করে নিবেন।


    ৩। অধ্যবসায় (Diligence): আশা করছি ইতিমধ্যে আপনি ২-৩টি ব্রোকারকে প্রাথমিক ভাবে সিলেক্ট করে ফেলেছেন। এবং ট্রেড করার জন্য তাদেরকে ফাইনাল লিস্টে নিয়েছেন। আপনি সঠিক এবং স্বচ্ছ ব্রোকার সিলেক্ট করেছেন কিনা তা নিশ্চিত হতে ভিবিন্ন রকম ফরেক্স ফরামে (যেমন forexfactory, forexnews, babypips ইত্যাদি)একটি পোস্ট দিন আপনার প্রশ্নের উত্তর চেয়ে, দেখবেন অনেক এক্সপার্ট ট্রেডার এবং অভিজ্ঞও যারা আছে তারা আপনার পোস্টের সঠিক রিপ্লাই দিবে এতে করে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন যে আপনার সিদ্ধান্ত কতটুকু সঠিক ছিল।
    এছাড়াও আপনি যেসব বিষয়গুলো নিশিত হয়ে ব্রোকার সিলেক্ট করতে পারেন তা হলঃ



    ১। Customer Service: এই বিষয়টি একজন ট্রেডারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঐ ব্রোকারটি কি কাস্টোমারের প্রতি সদয়? তারা কি কাস্টোমারকে প্রতিনিয়ত সাহায্য করতে ইচ্ছুক?

    ২। Slippage: এটি এমন একটি বিষয় যা নির্দেশ করে যে, আপনার অর্ডার করা একচুয়েল ভেলুতে কি অর্ডারটি সম্পূর্ণ হয়েছে? এবং আপনার টেক প্রফিট এবং স্টপ লস মোতাবেক অর্ডারটি সম্পূর্ণ হয়েছে কিনা ইত্যাদি।

    ৩। Manual Execution: কিছু ব্রোকার আছে যারা স্কেল্পিং বা অটোট্রেডিং পছন্দ করে না। আর ঐসব ব্রোকারে যখন কোন ট্রেডার তা করতে যায় তখন ব্রোকার থেকে ম্যানুয়াল ট্রেডিং করতে ফোরস করে হয়। অর্থাৎ ঐ ব্রোকারে হিউম্যান ট্রেড ছাড়া অন্য কোন রোবটিক ট্রেড এক্সিকিউট করবে না।

    ৪। Re-Quotes: এটা ঘটে যখন আপনি বায় অথবা সেল বাটন ক্লিক করছেন কিন্তু ফ্লাটফর্ম বা মেটা ট্রেডার আপনার অর্ডারটি এক্সিকিউট করছে না।

    ৪। Testing: এইবার ব্রোকার কনফার্ম করার পালা, অর্থাৎ এতক্ষণের আলোচনায় আপনি যে ব্রোকারকে আপনার ট্রেডিং আর জন্য স্যুট মনে করছেন প্রথমে তাকে ডেমো একাউন্টের মাধ্যমে আপনার সবগুলো ট্রেডিং স্টাইল টেস্ট করুন এবং যদি সেটিসফেক্টরি রেসাল্ট পান তাহলে ঐ নির্দিষ্ট ব্রোকারকে ফাইনাল করুন।


    তাই উপরোক্ত বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ আর মাধ্যমে আপনি একটি পারফেক্ট ব্রোকার সিলেক্ট করে আপনার ট্রেডিং পরিচালনা করতে পারেন সাফল্যমণ্ডিতভাবে।

    ভিবিন্ন ব্রোকার রেগুলেটরি অথোরিটি এবং রিভিউ সাইট ডিসকাশন লিঙ্কঃ

    Regulatory Agencies website and link :




    NFA – National Futures Association - www.nfa.futures.org/
    CFTC – Commodity Futures Trading Commission - www.cftc.gov/
    FSA – Financial Services Authority - www.fsa.gov.uk/
    Review Sites –.



    ForexAnonymous – http://www.forexanon...earch.php?id=17
    TheForexReviewer – http://www.theforexr...broker-reviews/
    Forex4Noobs - http://www.forex4noo...uct_reviews.php
    ForexBastards – http://www.forexpeac..._broker_reviews
    Forums with Broker Discussions



    Forex Broker Discussion at ForexFactory http://www.forexfact...isplay.php?f=74
    Rate my Broker at BabyPips http://forums.babypi...rate-my-broker/
    Forex Brokers at Trade2Win Forums http://www.trade2win.../forex-brokers/
    Forex Brokers at bdforexpro http://www.bdforexpr...-ফরেক্স-ব্রোকার
  10. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in ট্রেডিং সিস্টেম ডিভলপমেন্ট - আপনার ট্রেডটি হউক সঠিক নিয়মে !   
    ট্রেডিং স্টাইলঃ
    ফরেক্স মার্কেটে ট্রেডিং অনেক কঠিন আপনার জন্য যদি আপনার শক্তিশালী কোন ট্রেডিং ফর্মুলা বা ডিসিপ্লিন না থাকে, তাই স্ট্রেটিজি বা টেকনিক যতয় আপনি ভালো জানেন না কেন, একটি প্রপার ট্রেডিং সিস্টেম না জেনে ট্রেড করলে কখনো একজন সফল ট্রেডার হতে পারবেন না। মনে রাখবেন ফরেক্স থেকে আনলিমিটেড ইনকাম করা যায় এটা সত্যি কিন্তু আপনার কাছে যদি সঠিক রসায়ন না থাকে তাহলে এই কথা আপনার জন্য মিথ্যা। অনেক ট্রেডার আছে যারা কয়েকটি টেকনিক শিখে বা না শিখে অন্ধাকারে কয়েকটি ঢিল কারেক্ট করে আর মনে করে সে বুঝি ফরেক্স বুঝে গিয়েছে। কিন্তু একজন ভালো ট্রেডার কখনো এমন মন্ত্রে চলে না, একজন ভালো ট্রেডার শিখতে অনেক সময় নেয় এবং তার ফলাফল লাভ করে সারাজীবন। তাই আপনারদের বলছি, তারাহুড়া না করে আগে সব গুলো বিষয় একটু সময় নিয়ে ভালো ভাবে আয়ত্ত করুন তারপর দেখুন আপনি সবচেয়ে ভালো করছেন।
    যাহোক কথা অনেক হল এখন আসি মূল আলোচনায়। আপনি কিভাবে বুঝবেন যে সিস্টেমে আপনি ট্রেড করছেন সেটি সঠিক ? নিচে কিছু পয়েন্ট দিলাম সেগুলোর সাথে আপনার ট্রেডিং
    সিস্টেম মিলিয়ে নিন। এবং আপনার ট্রেডিং স্টাইলটি নির্বাচন করুন।
     
    ফরেক্স টাইম ফ্রেম ট্রেডিং:
    অনেক ট্রেডাররা ট্রেডিং টাইমফ্রেম না বুঝে ট্রেড করার কারনে ট্রেডে লস করে। নতুন ট্রেডাররা অনেক বেশি উত্তেজিত হয়ে কম সময়ে লাভ করতে গিয়ে ভুল টাইম ফ্রেমে ট্রেড করে যা তাদের ট্রেডিং স্টেটিজির সাথে সামঞ্জস্য নয়। এবং শেষে বিপল হয়ে আস্থা হারিয়ে ফেলে। কারন ভিন্ন ভিন্ন টাইমফ্রেমে মার্কেট চার্ট ভিন্ন ভিন্ন ট্রেন্ড নির্দেশ করে, যেমন আপনি যদি ৫ মিনিটের চার্ট দেখেন হয়ত মার্কেট তখন আপ ট্রেন্ড নির্দেশ করছে আবার একই চার্ট যদি ১ ঘন্টার ফ্রেমে দেখেন তখন হয়ত এভারেজ ট্রেন্ড সেল ও হতে পারে, তাই অর্ডার এর পূর্বে আপনাকে অবশ্যই আপনার সাথে সামঞ্জস্য টাইমফ্রেমে ট্রেডে ঢুকতে হবে। তবে ফরেক্স মার্কেটে নিশ্চিতভাবে সময় কখনও মেলাতে পারবেন না। আপনাকে টাইম সিলেক্ট করতে হবে আপনার স্ট্রেটিজি এবং টার্গেট এর উপর ভিত্তি করে। মোটামুটি ৩ ধরণের টাইমফ্রেমে আপনার টার্গেট সেট করতে পারেন।
     
    ইনট্রাডে টাইমফ্রেম – ১-১৫ মিনিট
    শর্ট টাইমফ্রেম – ১-৪ ঘন্টা
    লং টাইমফ্রেম – ১ দিন বা তার বেশি
     
    ১। শর্ট টাইম ট্রেডিং: এই পদ্ধতিতে আপনি দু’ধরনের ট্রেড করতে পারেন
    • স্কেলপিং
    • ডে-ট্রেডিং
     
    ২। লং টাইম ট্রেডিং: এই পদ্ধতিতেও আপনি দু’ধরনের ট্রেড করতে পারেন
    • সুয়িং ট্রেডিং
    • পজিশন ট্রেডিং
     

    শর্ট টাইম ট্রেডিং- স্কেলপিং:
     
    এই ধরণের ট্রেডিং এ খুব সংক্ষিপ্ত সময়ে আপনাকে ট্রেডে ঢুকতে হবে এবং ট্রেড থেকে বের হতে হবে যা কয়েক সেকেন্ডও হতে পারে। যেহেতু খুব স্বল্প সময়ের ট্রেড তাই আপনাকে প্রচুর ট্রেড করতে হবে যার পরিমান দৈনিক ১০০ হতে পারে। প্রতি ট্রেডে খুব সিমিত প্রফিট করবেন যেমন ৩-৫ পিপস। ১ মিনিটের চার্টের উপর ভিত্তি করে একটি গতিশীল মার্কেট ট্রেন্ডে এই ট্রেড করবেন।
     
    স্কেলপিং ট্রেডের সুবিধাঃ
    • সামান্য রিস্কে ট্রেড ।
    • হাই সিস্টেম একুরিসি।
    • ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসের প্রয়োজন নাই।
    • হঠাত মার্কেটে পরিবর্তনেও রিস্ক থাকে না।
    • প্রতিদিন অনেক বার এই সুবিধা পাওয়া যায়।
     
    স্কেলপিং ট্রেডের অসুবিধাঃ
    • এই ট্রেডে প্রচুন্ড মানসিক অস্থিরতা কাজ করবে
    • ফাস্ট অর্ডার এক্সিকিউশন ব্রোকার হতে হবে।
    • ট্রান্সজেশন কস্ট অনেক বেশি দিতে হবে। (যদি দৈনিক ২০টা ট্রেড করেন ৬০পিপস স্প্রেড দিতে হবে)।
     
    শর্ট টাইম ডে-ট্রেডিং:
    এই ধরণের ট্রেড কয়েক মিনিট থেকে শুরু করে সারাদিন ব্যাপী হতে পারে। ট্রেডারদের এই সকল ট্রেডে ঢুকতে খুবই ডিসিপ্লিন এবং ধরজের সাথে মার্কেট ট্রেন্ডের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। এই ক্ষেত্রে বেশিরভাগ ট্রেডাররা টেকনিক্যাল স্ট্রেটিজি ফলো করেন। এই সিস্টেমে দৈনিক ট্রেডের সংখ্যা ১-৫টিহয়। ডে-ট্রেডিং ট্রেডের জন্য ৫-৩০ মিনিটের চার্টে ট্রেড করা উত্তম।
     
    ডে-ট্রেডের সুবিধাঃ
    • অতি মাত্রায় ইনকাম করা যায়।
    • স্বল্পমেয়াদী ট্রেন্ডে ট্রেড করতে পারা যায়।
    • মার্কেটে পরিবর্তনেও রিস্ক থাকে না।
    • সব সময় বিকল্প একটি পদ্ধতি অবলম্বন করা যায়।
     
    ডে-ট্রেডের অসুবিধাঃ
    • একটি সঠিক নিয়ম তান্ত্রিক পদ্ধতিতে ট্রেড করতে হয়।
    • ট্রেডিং আউটপুট পেতে অতিমাত্রায় দরঝ লাগে।
    • ভিন্ন ভিন্ন মার্কেটে ভিন্ন ভিন্ন স্ট্রেটিজি এপ্লাই করতে হয়।
    • প্রতিনিয়ত মার্কেট নিউজ আর সাথে আপডেট থাকতে হয়।
     
    লং টাইম – সুয়িং ট্রেডিং:
    এই প্রকার ট্রেডিং এর মেয়াদ ৩-৫ দিন আর মত হয়। মিডিয়াম টার্ম ট্রেন্ডে এই ট্রেড করার সুবিধা পাওয়া যায় এবং জেকোন সময়ে ট্রেডে ডোকা যায়। দিনে কয়েকবার ট্রেড মনিটর করতে হয় এবং ১-৪ ঘন্টার চার্টে এই ট্রেড করতে হয়। এই ট্রেডের জন্য স্ট্রেটিজি হিসেবে টেকনিক্যাল এনালাইসিসের ডাবল টপ/বটম , ট্রাইয়াঙ্গেল চার্ট প্যাটার্ন বেশি ব্যাবহার হয়।
     
    সুয়িং ট্রেডের সুবিধাঃ
    • এক ট্রেডে অনেক আয় আর সম্ভাবনা থাকে।
    • ডে-ট্রেডিং আর চেয়ে এই ট্রেডে রিটার্ন বেশি থাকে।
    • ট্রেডারদের লম্বা সময় তাল থাকে বলে মার্কেট ফলিং এ অস্থিরতা থাকে না।
    • ট্রানসেশন কস্ট কম।
    • মানসিক চাপ কম থাকে।
     
    সুয়িং ট্রেডের অসুবিধাঃ
    • লো ইনভেস্টমেন্ট করা যায় না।
    • দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হায় রিটার্ন আর জন্য।
    • এই ধরণের ট্রেডিং সিস্টেম একুরিসি ভাল নয়।
    • সেশন ব্রেকে রিস্ক থাকে।
     
    পজিশন ট্রেডিং:
    এটি হচ্ছে ফরেক্স মার্কেটের সবচেয়ে দীর্ঘ মেয়াদী ট্রেডিং যা কয়েকদিন থেকে শুরু করে কয়েক মাস পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। এই পদ্ধতিতে ট্রেডারদের সব সময় লং টাইম ফোরকাস্ট আর উপর ট্রেড করতে হয়। ৪ ঘন্টা – ডে-চার্ট এর উপর ভিত্তি করে এই ট্রেডে অর্ডার করতে হয়। এই ট্রেডে ডেইলি ২-১ বার মনিটরিং করলে চলে। দীর্ঘ সময়ের পিভট পয়েন্ট ব্রেকে এই ট্রেড করা যায়।
     
    পজিশন ট্রেডের সুবিধাঃ
    • ৫০০ পিপস এর বেশি রিটার্ন পাওয়া যায় ।
    • মার্কেট নেগেটিভ মুভে ট্রেডার অস্থিরতা থাকে না।
    • ট্রানসেশন কস্ট কম।
    • মানসিক চাপ কম থাকে।
     
    পজিশন ট্রেডের অসুবিধাঃ
    • লো ইনভেস্টমেন্ট করা যায় না।
    • দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হায় রিটার্ন আর জন্য।
    • এই ধরণের ট্রেডিং সিস্টেম একুরিসি ৫০%।
    • সেশন ব্রেকে রিস্ক থাকে।
     
    কোন স্টাইলে ট্রেড করবেনঃ
    প্রত্যেক ট্রেডার এর একটি স্বাধীন চেতনা, ট্রেডিং স্ট্রেটিজি , উদ্দেশ্য এবং সময় এর অভিরুচি থাকে, তাই কে কোন স্টাইলে ট্রেড করবেন তা একান্তই নির্ভর করছে আপনার টার্গেট এবং চাওয়ার উপর। যেমন, যেমন আপনি যদি একজন চাকুরীজীবী হউন তাহলে আপনার জন্য সুয়িং বা ডে-ট্রেডিং উত্তম হতে পারে। অথবা আপনি যদি প্রতিনিয়ত চার্টে চোখ রাখতে পারেন তাহলে স্কেল্পিং ভালো হতে পারে।
    কিংবা আপনি যদি ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসে ট্রেড করতে চান তাহলে আপনার জন্য লং টাইম বা পজিশন ট্রেড ভালো হতে পারে। তাই আপনার চাহিদা কি এবং কি ধরনের সময় ব্যায় করতে পারবেন ট্রেডিং এর জন্য সব হিসাব কষে তারপর সিদ্ধান্ত নিন কোন ট্রেডিং স্টাইলে আপনি ট্রেড শুরু করবেন। তবে সিদ্ধান্ত আপনার যা-ই হোক না কেন রিয়েল ট্রেডে যাওয়ার আগে অবশ্যই ডেমোতে আপনার স্টাইল পারফেক্ট প্রুভ করে নিবেন।
  11. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in আপনি দৈনিক কতগুলো ট্রেডে সফল বা ব্যর্থ হচ্ছেন, কেন ? সফল ট্রেডিং এর ৬ টি গোল্ডেন - সাইকোলজি   
    আজকের আলোচনাটা খুব গুররুপুর্ন , ট্রেডিং তো কম বেশী করছেন, ভালো করছেন বা খারাপ সব মিলিয়ে ধরে নিলাম ট্রেডিং চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু কিছু মানসিক প্রস্তুতি যা ট্রেডিং এর ক্ষেত্রে চরম প্রভাব ফেলে তা হয়ত না জেনেই ট্রেডিং এ প্রতিনিয়ত ভুল করছেন যা আশানুরূপ ফলাফল পাচ্ছেন না। হ্যাঁ আজকে আলোচনা করব সেই রকম কিছু সাইকোলজি নিয়ে যা আশা করছি আপনার ট্রেডিং এর প্রভাব আরো পজেটিভ করবে এবং ট্রেডিং হবে আরো উন্নত।
    ট্রেডিং এর ক্ষেত্রে কেউ ই ১০০% পারফেক্ট নয়, এমন কি বিশ্বের যত নামীদামী ট্রেডার আছে তাদেরকে নিয়েই বলছি, কেউ তাদের ট্রেডকে ১০০% নিশ্চিত করতে পারে না। কারন মার্কেট বিসয়টি আপেক্ষিক। যে যত বেশী অভিজ্ঞ , যার ট্রেডিং অভিজ্ঞতা যত ভালো, যত বেশী সেই ততটা বেশী সুবিধার সাথে ট্রেড করতে পারেন, এটাই সত্যি। তাই বলছি সত্যি যদি ফরেক্স ট্রেডার হতে চান, নিয়মিত ভাবে ট্রেড করতে চান তাহলে প্লিজ অল্প বিদ্যা নিয়ে শুরু করবেন না, জানুন, বুঝুন, অনুশীলন করুন তারপর শুরু করুন।

    রুলস – ১ঃ ট্রেড করতে নিজেকে খুব বেশী স্মার্ট ভাবা বা খুব বেশী স্মার্ট হওয়ার চেষ্টা করবেন না;
    আপনি অনেক জ্ঞানী কিংবা অনেক বুদ্ধিমান সম্পুর্ন কিন্তু তাই বলে ফরেক্স ট্রেডিং এ শুরু করেই আপনি পেয়ে যাবেন সফলতা এমনটি ভাবার দরকার নেই। কারন বুদ্ধিমত্তা এবং ফরেক্স ট্রেডিং এই দুটি বিষয়ের পারস্পরিক কোন সম্পর্ক নেই। একজন অসম্পূর্ণ অতিরিক্ত স্মার্ট ট্রেডার যেমন ট্রেডের ক্ষেত্রে ঝুকিপুর্ন তেমনি একজন স্বাভাবিক মানের ট্রেডার তার চেয়ে অনেক প্রগতিশীল। আপনার ফরেক্স ট্রেডিং পারফর্মেন্স এর জন্য ইন্টেলিজেন্সি’র প্রভাব সামান্য কারন ফরেক্স মার্কেট পরিচালিত হয় স্বাভাবিক দিনের মানুষের উপর ভিত্তি করে। তাই ট্রেডার যদি হতেই হয় স্বাভাবিক, দক্ষতা, অভিজ্ঞতা এবং অনুশীলন দিয়েই শুরু করুন।
    রুলস -২ঃ ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস জেনে বুঝে ট্রেড করুন;
    ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস বলতে আপনি কি বোঝেন, ইকোনোমিক ক্যালেন্ডার ডাটা দেখে প্রাইস আপ/ডাউন পয়েন্টে ট্রেড ওপেন করা ? তাহলে আমি বলব আপনি সম্পূর্ণই ভুল। আর ইনস্ট্যান্ট পয়েন্ট পাবলিশে সত্যি ট্রেড করতে পারেন? ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসে যদি ট্রেড করতে চান তাহলে নিউজ এনালাইসিস করুন, কোন কারেন্সির নিউজ, নিউজটি কি, বর্তমান ইকোনোমিক কন্ডিশন অনুসারে এই নিউজটির প্রভাব কি হতে পারে , এইভাবে স্টাডি করে তারপর নিউজ ইফেক্ট নিজেই আগে অবগত হয়ে যান এবং সময় মত সেই অনুসারে ট্রেড ওপেন করুন, এটাই ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস এর সঠিক নিয়ম।
    রুলস -৩ঃ সব সময় নিজেকে সঠিক রাখতে জোর করবেন না;
    আপনি যখন ট্রেড করেন তখন সব গুলো ট্রেড আপনার টার্গেট হিট করে না, আপনি তো সময় নিয়ে, সঠিকভাবে এনালাইসিস করেই ট্রেড ওপেন করেছেন যেখানে আপনার সবগুলো ট্রেড পজেটিভ হওয়ার কথা ছিল আপনার সাইকোলজি অনুসারে। ঠিক তখন মনে মার্কেট আপনার সাথে বেঈমানি করেছে, এমনটি তো হওয়ার কথা ছিল না, ইত্যাদি, ইত্যাদি। এই ক্ষেত্রে একটা টেকনিক এপ্লাই করতে পারেন, কখনো নির্দিষ্ট একটি ট্রেডকে এক্সট্রা জোর দিবেন না, যেমন একটি ট্রেডকে হাই সাইজে ওপেন করে অনেক বেশী কনফিডেন্ট থেকে নির্দিষ্টভাবে একটি ট্রেডকে গাইড করা ইত্যাদি। বরং সবগুলো ট্রেডকে এভারেজ সেইম ভলিয়মে রেখে ট্রেড চালিয়ে যাওয়া এতে করে আপনার এভারেজ ট্রেড পজেটিভ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশী থাকে।

    রুলস – ৪ঃ ট্রেডিং এর জন্য মুল লার্নিং পিরিয়ডেই দক্ষতা অর্জন করে নিন;
    বেশীরভাগ ট্রেডার ট্রেড শুরু করে, তারপর লার্ন করে। বুঝতে পারে না যে ট্রেড শুরু করার আগে যে দক্ষতা দরকার তা ট্রেড শুরু করার পর ক্ষতি ছাড়া আসে না। লার্নিং এর ক্ষেত্রে যখন দু’তিনটি টুলস এর মাধ্যমে বায়/সেল সিগন্যাল পেয়ে যায় তখন ই লার্নিং বন্ধ করে দেয়। বডি বিল্ডিং এর ক্ষেত্রে যেমন , মাসল, শোল্ডার, চেস্ট, থাই সব নানা অঙ্গের সঠিক অনুশীলন জরুরি, মাসল বড় করতে কার্লিং মারার সময় উভয় হাতের ব্যাল্যান্স যেমন জরুরি নচেৎ একটা মাসল বড় আরেকটা ছোট হয়ে যাবে, এবং ব্যায়ামটাই অনর্থক মনে হবে।  ঠিক তেমনি ট্রেডিং লার্নিং এর সময় মৌলিক বিষয়গুলোতে দক্ষতা নিয়েই ট্রেড শুরু করতে হবে;
    রুলস – ৫ঃ যেকোন কিছুই ঘটতে পারে সবসময় এই মানসিক প্রস্তুতি রাখা।
    যেহেতু এটা একটা বর্ডারলেস মার্কেট, এখানেই বৃত্তই দেখবেন সীমারেখা দেখবেন না। অর্থাৎ মার্কেটটি যেহেতু সম্পূর্ণ এনালাইসিস এবং অর্থনৈতিক নির্ভর তাই এইখানে মুদ্রার প্রভাবে অনেক সময় অনেক কিছুই ঘটতে পারে। তাই ট্রেডের ক্ষেত্রে সব সময় নিজের লিমিট/রিস্ক ঠিক রেখে ট্রেড করুন। আপনার ক্ষমতার বাইরে থেকে কিছুই চিন্তা করবেন না বা করবেন না।
    রুলস -৬ঃ  দৌড়ানোর আগে হাটার অভ্যাস করুন;
    হেডলাইন দেখেই অনেক কিছু বুঝে নিয়েছেন আসা করছি, হ্যাঁ আমি তাই বলছি শুরুতেই কখনো এক লাফে গাছের গোড়া থেকে আগায় উঠতে চেষ্টা করবেন না। আস্তে আস্তে ছোট ছোট ট্রেড থেকে শিক্ষা নিয়ে নিজের ট্রেডিং স্ট্রেটিজি সফলতা, অভিজ্ঞতা কে এক সুতোই বেঁধে আস্তে আস্তে সব গুলো সিড়ি বেয়ে উপরে উঠতে থাকুন। এতে করে আপনার কিছু বাদ পড়ার সম্ভবনা থাকবে না, আর যার সুফল আপনি এখনকার চেয়ে পরে আরো ভালো পাবেন।
    উপরের পয়েন্টস গুলো খুব কার্যকরীভাবে নিজের ভেতর চিন্তা করুন এবং যদি মনে হয় যে আপানার মাঝে এমন কিছু আছে তাহলে ভুল থেকে শিখে সঠিক নিয়মে এগুতে থাকুন অবশ্যই সফল হবেন।
  12. salmansam liked a post in a topic by MohabbatElahi in Fed's Monetary Policy Statement & Nonfarm Payrolls   

    Fed's Monetary Policy Statement & Nonfarm Payrolls
    বিগত দিনের মত বরাবরই আজকে প্রকাশিত হবে Fed's Monetary Policy Statement ও ব্যাংক সূদের হার। নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শাসনামলের প্রথম Fed's Monetary Policy Statement হিসেবে আমাদের জন্য ইভেন্টসটি অনেক বেশি তাৎপর্যপূর্ন। তবে ফেডের মনিটরি পলিসি সহ গুরুত্বপূর্ণ অন্য তিনটি ইভেন্টস রয়েছে চলতি ট্রেডিং সাপ্তাহে
    যথা
    01) BoJ Monetary Policy Meeting Minutes 02) BoE Interest Rate Decision 03) Nonfarm Payrolls -
    কিন্তু মুদ্রাবাজারে এর প্রভাব কেমন পড়তে পারে সেটাই আমাদের বিবেচনা করতে হবে। কোন মুদ্রাটি কতটুকু প্রভাবিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, সে বিষয়ে ইকোনমি জার্নাল থেকে পরিসংখ্যান ভিত্তিক কয়েকটি Economical Events নিম্নে আলোচনা করছি।
    গত ১৬ ই ডিসেম্বর ২০১৫ সাল থেকে চলে আসা ব্যাংক সুদের হার ০.৫০% থেকে ফেড গত ১৪ ডিসেম্বর ২০১৬-তে ০.৭৫% বৃদ্ধি করেছিল।পাশাপাশি ফেডের প্রধান ইয়েলেন তার প্রেস কনফারেন্সে পুনরায় ২০১৭ অর্থ বছরে তা পর্যায়ক্রমে আরো তিন ধাপে বৃদ্ধির বিষয়েও স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছিলেন। সে হিসেবে ২০১৭ অর্থবছরের প্রথমাংশে অর্থাৎ আজ তারা কি ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধি করবে ?
    -
    এ সম্ভাব্য বিষয়টি পর্যালোচনা করতে আমরা যদি তাদের বিগত দিনের Economical ইভেন্টসের দিকে তাকায় তবে এটা পরিষ্কার যে মার্কিন অর্থনীতিতে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে বিগত দিনের তুলনায়।
    যেমন:
    ADP Employment Change যা ৫ জানুয়ারি ২০১৭- তে 170K থেকে 153K তে নেমে এসেছে (bearish).
    অপরদিকে US manufacturing sector এর ISM ৫৩.৫ থেকে ৫৪.৭-এ উন্নীত হয়েছে (Bullish) । অর্থাৎ US manufacturing sector-এর বিভিন্ন সেক্টরে যেমন future production, new orders, inventories, employment এবং deliveries সংক্রান্ত ISM সূচকটি সার্বিক ভাবে সুবিধা জনক অবস্থানে রয়েছে। সূতরাং উপরোক্ত দুটি ইভেন্টস মূল্যায়নে অনেকটাই মার্কিন ডলার স্বাভাবিক থাকবে যতক্ষণ না দুটিতেই বড় ধরনের পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয়।
    -
    পক্ষান্তরে যদি আমরা US labor department কর্তৃক প্রকাশিত Initial Jobless Claims এর দিকে তাকায় , তবে সে সেক্টরে তারা গত ২৬ জানুয়ারী ২০১৭ ভাল সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু NFP তে আবার ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে।কারন এ কী ইভেন্টসে তারা পছিয়েছে যদিও তাদের বেকারত্বের হার অপরিবর্তিত ছিল।যা একটি উর্ধমূখী ট্রেন্ড কে বাধা গ্রস্থ করে।এছাড়া তাদের সদ্য জিডিপিতেও তারা পিছিয়েছে। সূতরাং সার্বিক ইকোনমি মূল্যায়নে ফেড আজ কে ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধির বিষয়টি এড়িয়েও যেতে পারে এবং আরো একমাস তারা সার্বিক অবস্থার উন্নতির প্রতি দৃষ্টি আরোপ করতে পারে।
    -
    সে দৃষ্টিকোণ থেকে প্রফেসর ইলেয়েনের কাছ থেকে আজ ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধি না করে বরং এর সম্ভব্যতা নিয়ে সাধারন একটি ব্রিফ করার চেয়ে বেশি কিছু প্রত্যাশা করা যাচ্ছেনা। এছাড়া নবনিযুক্ত মার্কিন প্রেসিডেন্টের নতুন সরকার গঠন ও নির্বাচনি ব্যস্ততার ফলে চলতি ইভেন্টসে ইকোনমিতে তেমন কোন পরিবর্তনের সম্ভাবনা কার্যত দেখা যাচ্ছে না। যদিও বিষয়টি সম্ভাব্য।
    -
    সূতরাং চলতি ইভেন্টস সমূহ মার্কেটে কেমন প্রভাব ফেলতে পারে ?
    -/-------------------------------------------------------------------/-
    অবশ্যই মার্কিন ডলার দুর্বল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে যদি ফেড ভাল কোন অর্জন দেখাতে না পারে। তাছাড়া ট্রাম্পের বিভিন্ন রাষ্ট্রনীতি ও বক্তব্য কে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই মার্কিন ডলার অনেক চাপে আছে যা আমরা স্পষ্টতই ট্রেডিং মার্কেটে দেখতে পাচ্ছি। তারই প্রমান হচ্ছে ট্রাম্প নির্বাচিত হওয়ার সময় মার্কেট যেখান থেকে পরিবর্তন হয়েছিল ক্ষমতা গ্রহনের পর আবার ধীরে-ধীরে মার্কেট সে অবস্থানেই চলে আসছে। অর্থাৎ ট্রাম্প নির্বাচিত হলে মার্কিন ডলার পতনের যে গ্লোবাল সেন্টিমেন্ট ছিল, ক্ষমতা গ্রহনের পর ঠিকই তা প্রতিফলিত হয়েছে। এছাড়া মার্কিন নির্বাচন পরবর্তিতে সমগ্র বিশ্বে ট্রাম্প বিরোধী যে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে তা মার্কিন ডলার কে আরো বেশি দূর্বল করে দিতে সহায়তা করবে। কারন গ্লোবাল বিনিয়োগকারীরা ডলার রিজার্ভে ঝুঁকি নিতে চাইবেনা।

    {BoJ Monetary Policy Meeting Minutes & BoE Interest Rate Decision }


    চলতি সাপ্তাহে ব্যাংক অব জাপানের ব্যাংক সূদের হার ঘোষণা হওয়ার পাশাপাশি মনিটরি পলিসিও ছিল। তবে মনিটরি পলিসিতে তেমন কোন বিশেষত্ব পরিলক্ষিত হয়নি। সম্ভবত তারা মার্কিন ডলারের চাপে থাকাটি কি আরো কয়েক মাস পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তি সিদ্ধান্ত গ্রহন করবে। যদিও বর্তমানে জাপানিস মূদ্রা অনেকটাই রিকভার করতে সক্ষম হয়েছে।
    অপরদিকে পাউন্ড মার্কেটও অনেক সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে। বিশেষ করে হার্ড-ব্রেক্সিট পরবর্তিতে পাউন্ড মার্কেট কিছুটা প্রাণ ফিরে পেয়েছে বলে মনে হচ্ছে। পাশাপাশি তাদের বিগত দিনের কিছু Economical ইভেন্টসসে ইউরো জোনের সাথে থাকা না থাকার মত গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু সহ বিভিন্ন অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মধ্যেও তারা সার্বিকভাবে মন্থর গতিতে এগিয়েছে। সে হিসাবে আগামীকাল পাউন্ডের ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধির কিছুটা সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। যদিও প্রত্যাশাটি বেশি হয়ে যাবে।
    এছাড়াও থেরেসা মে উন্মুক্ত বাণিজ্য করনের লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাথে যোগাযোগ বৃদ্ধি করে চলেছে। তিনি প্রত্যাশা করছেন বৃটেন একটি বনিকের দেশ হিসেবে তাদের আগের পরিচিতি ফিরে আসুক যা অনেক চ্যালেঞ্জিং। তবে তার চোখে মুখে কিছুটা তৃপ্তির ভাব বা আত্মনির্ভর হওয়ার যে ছাপ পরিলক্ষিত হচ্ছে তা কিন্তু বৃটিশ অর্থনীতির জন্য অনেক বেশি পজিটিভ।যদিও এর জন্য অনেক পথ তাদের পাড়ি দিতে হবে।
    -
    চলতি ইভেন্টস সমূহ কে কেন্দ্র করে সার্বিক মূল্যায়নে আমি মার্কিন ডলারের বিপক্ষে থাকার সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে। পাশাপাশি ভোলাটিলিটি বিবেচনায় নতুনদের জন্য চলতি সাপ্তাহের চেয়ে আগামী সাপ্তাহ কে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। সূতরাং মার্কেট বিশ্লেষনে যারা অনভিজ্ঞ তাদের জন্য আগামী সাপ্তাহে ট্রেড করাটি অনেক বেশি নিরাপদ । কারন চলতি ইভেন্টস সমূহে মার্কেট প্রেডিক্ট করা অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং যা কেবল প্রফেশনাল ট্রেডারদের পক্ষেই সম্ভব। সূতরং যারা মার্কেট চ্যালেঞ্জে বিজয় হতে চান, তাদের জন্য ডিফেন্সিভ ওয়ে-তে অগ্রসর হওয়া খুবই যুক্তিযুক্ত হবে বলে মনে করছি।
    ----------------------------------------------------
    Md Mohabbat E Elahi
    Analytical Expert: Global Forex Market
    Admin: Forex Training center in Bangladesh
  13. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in Fed's Monetary Policy Statement & Nonfarm Payrolls   
    সমসাময়িক অবস্থার আলোকে খুবই গুরুত্তপুর্ন এবং কার্যকারী বিশ্লেষণ, নতুন - পুরাতন আপনি যে যেমন ট্রেডার হউক না কেন, ভালো ট্রেড করতে হলে প্রয়োজন সব সময় নিউজ এর প্রতি সচেতন দৃষ্টি। তাই ফরেক্স সফল ট্রেড বিষয়ক স্টাডি এবং এক্সপার্ট ট্রেড এর জন্য নিয়মিত বিডিফরেক্সপ্র"র সঙ্গে থাকুন। ধন্যবাদ; 
    ইলাহি ভাইকে অনেক ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা ফরেক্স বিষয়ক এমন সব গুরুত্তপুর্ন আলোচনার জন্য; 
  14. salmansam liked a post in a topic by MohabbatElahi in Fed's Monetary Policy Statement & Nonfarm Payrolls   
    অাপনাকেও ধন্যবাদ
  15. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in Forex Trading - the 3 Key Building Blocks for Huge Forex Profits   
    স্বাগতম বিডিফরেক্সপ্রো'তে এবং ধন্যবাদ আপনার গুরুত্তপুর্ন আলোচনার জন্য। তবে পোস্ট এর ক্ষেত্রে ন্যূনত্বম ৭৫% বাংলা কিংবা সম্পুর্ন রুপে বাংলা ভাষা ব্যাবহার বাঞ্ছনীয়। এতে করে পোস্ট রিচ ভালো হয় এবং গুরুত্তপুর্ন পোস্টের ক্ষেত্রে ফিচার সুবিধা পাওয়া যায়। সর্বোপরি আমরা বাংলাভাষায় ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনার প্ল্যাটফর্ম। ধন্যবাদ আবারো , সফল এবং লাভজনক ট্রেডিং এর জন্য আরো গুরুত্তপুর্ন পোস্ট নিয়ে এগিয়ে আসবেন আশা করি। 
    ধন্যবাদ, বিডিফরেক্সপ্রো'র সঙ্গেই থাকুন। 
  16. Mhafiz™ liked a post in a topic by salmansam in ECN বা STP ? কম স্প্রেড ব্রোকার ? কোনটি কেমন ?   
    অনেকেই কম স্প্রেড ব্রোকার সম্পর্কে জানতে চান। কারণ কম স্প্রেড ব্রোকারে ট্রেড করলে ট্রেড খুব সহজেই প্রফিটে চলে আসে। ফলে স্ক্যালপিং বা শর্ট-টার্ম ট্রেডিং করে প্রফিট করা অনেক সহজ হয়। সাধারণত ECN বা STP ব্রোকার ছাড়া কম স্প্রেড ব্রোকার হয় না। তাই কম স্প্রেডের একাউন্টের জন্য ECN বা STP ব্রোকারের উপরেই ভরসা করতে হয়। কিন্তু ফরেক্সে নতুন আসা অনেকেই বা ফরেক্সের স্বল্প জ্ঞান সম্পন্ন অনেকেই জানেন না যে, ECN/ STP অনেক ব্রোকার কম স্প্রেড অফার করলেও এখানে একটা শুভঙ্করের ফাঁকি থাকে। মার্কেট মেকার ব্রোকারের স্প্রেড সাধারণত ECN/ STP ব্রোকারের চেয়ে বেশি হয়। তাহলে সহজ কথা হচ্ছে মার্কেট মেকার ব্রোকারের চেয়ে ECN/ STP ব্রোকারে স্প্রেড কম থাকে। এটা সত্য কথা, এখানে কোনো ঘাপলা নেই। কিন্তু শুভঙ্করের ফাঁকিটি তাহলে কোথায়? আজকে সে সম্পর্কেই বলব।
    ধরুন X ব্রোকার একটি মার্কেট মেকার ব্রোকার এবং এই ব্রোকারে EURUSD পেয়ারের এভারেজ স্প্রেড 2.00 পিপস। ফিক্সড স্প্রেড ব্রোকার ছাড়া বাকি ব্রোকারে যেহেতু স্প্রেড সবসময় ওঠানামা করতে থাকে তাই অ্যাভারেজ স্প্রেড ধরে হিসাব করতে হবে। X ব্রোকারের স্প্রেড সর্বনিম্ন 1.00 পিপস থেকে নরমাল সময়ে সর্বোচ্চ 3.00 পিপস পর্যন্ত ওঠানামা করে। আর নিউজ টাইমে সেটা 3.00 থেকে 7.00 পিপস পর্যন্ত বা তারচেয়েও বেশি যেতে পারে। কিন্তু সারাদিনের অ্যাভারেজ করলে হিসাবটা মোটামুটি 2.00 পিপসই আসবে। এই ব্রোকারে শুধুমাত্র স্প্রেড ছাড়া আর কোনো কর্তন নেই।


    এবার ধরুন Y ব্রোকার একটি ECN ব্রোকার এবং এই ব্রোকার অফার করছে যে, Spread start from 0 pips. কিন্তু আপনি অবশ্যই দেখবেন এই 0 পিপস কখনো পাবেন না। ‍Start from 0 pips মানে স্প্রেড 0 না, বরং সর্বনিম্ন 0 হতে পারে। আপনি আরো ভালো করে জানার জন্য তাদের সাথে লাইভ চ্যাট করে জানলেন যে, তাদের EURUSD পেয়ারের অ্যাভারেজ স্প্রেড 1.00 পিপস। আপনি খুশিতে বাকবাকুম। কারণ কোথায় X ব্রোকারের 2.00 পিপস আর কোথায় 1.00 পিপস। একেবারে অর্ধেক স্প্রেড কম! আপনি প্র্যাকটিক্যালি একটা একাউন্ট করে স্প্রেড কাউন্ট ইন্ডিকেটর লাগিয়ে চেক করে দেখলেন আসলেই অ্যাভারেজ স্প্রেড 1.00 পিপস। স্প্রেডের হিসাবে ঠিকই আছে, কোনো ঘাপলা নেই।
    কিন্তু আপনি যেটা জানেন না সেটা হচ্ছে ECN ব্রোকারে স্প্রেড ছাড়াও আরো একটা জিনিস কেটে নেয়, আর সেটা হচ্ছে কমিশন যা মার্কেট মেকার ব্রোকার কেটে নেয় না। মার্কেট মেকার ব্রোকার শুধুমাত্র স্প্রেড নিয়েই খুশি থাকে। আর ECN/ STP ব্রোকার স্প্রেড কম দেখিয়ে এক্সট্রা কমিশনও কেটে নেয়। ফলে অনেক সময় স্প্রেড আর কমিশন মিলিয়ে মার্কেট মেকার ব্রোকারের স্প্রেড কর্তনের প্রায় সমানই হয়ে যায়। ধরুন আমরা Y (ECN) ব্রোকারের কমিশন চেক করে পেলাম যে, তারা EURUSD পেয়ারে প্রতি 1.00 লটের জন্য $10.00 কমিশন কাটে। এই $10 কমিশনকে যদি আপনি পিপসে কনভার্ট করেন তাহলে তা হবে 1.00 পিপস। এবার মূল স্প্রেড আর এই কমিশন পিপস যোগ করলে দাড়ায় 1.00 পিপস স্প্রেড + 1.00 পিপস কমিশন = মোট 2.00 পিপস কর্তন, যা ঐ মার্কেট মেকার X ব্রোকারের সমান।
    শুভঙ্করের ফাঁকিটা এখানেই। নতুন ট্রেডার, কম জানা ট্রেডারদেরকে কথিত ECN/ STP ব্রোকাররা এভাবেই বোকা বানায়। যদি দেখেন যে ECN/ STP ব্রোকারের স্প্রেড এবং কমিশন মিলিয়ে মার্কেট মেকার ব্রোকারের চেয়ে অনেক কম কর্তন হয়, তাহলে সেই ব্রোকারের স্প্রেড আসলেই কম বলে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।
    তবে ভাই ঘাপলা আরো অাছে যা আরো গভীরের। আপনি হয়ত আগেই ECN/ STP ব্রোকারের কমিশন কর্তনের বিষয়টা জানেন এবং এ বিষয়ে সচেতন। তাই ECN/ STP ব্রোকারের কমিশন চেক করেই একটা ECN ব্রোকার নির্ধারণ করলেন ট্রেড করার জন্য। এবারের ঘাপলাটা এই কমিশনের বিষয়েই। আপনি ব্রোকারের লাইভ চ্যাটে জিজ্ঞাসা করলেন যে, EURUSD তে পার (1.00 লট) লটে কত কমিশন কাটেন? ব্রোকার থেকে উত্তর দিল পার লটে $5.00 কমিশন (মানে হলো 0.50 পিপস) কাটা হয়। আপনি হিসাব করে দেখলেন স্প্রেড এবং কমিশন মিলিয়ে 1.00 পিপস + 0.50 পিপস = 1.50 পিপস, যা মার্কেট মেকার ব্রেকার ব্রোকারের 2.00 পিপস থেকে কম। তবুও তো কিছু কম আছে। সেই ভালো। কিন্তু না। আপনার আসলে জিজ্ঞাসা করার দরকার ছিল -- EURUSD তে পার (1.00 লট) লটে রাউন্ড টার্ন কত কমিশন কাটেন? আপনি যদি ”রাউন্ড টার্ন” শব্দদ্বয় ব্যবহার না করেন, তাহলে ব্রোকার থেকে কখনোই আপনাকে তা জানাবে না। আর আপনি যদি শব্দদ্বয় ব্যবহার করেন, তাহলে ব্রোকার ”রাউন্ড টার্ন” শব্দদ্বয়ের আলোকেই উত্তর দেবে। ”রাউন্ড টার্ন” মানে হচ্ছে অর্ডার ওপেনিংয়ে অর্ধেক কমিশন কাটা এবং অর্ডার ক্লোজিং এ বাকি অর্ধেক কমিশন কাটা। অর্থাৎ দুই সাইডেই কমিশন কাটে। বেশিরভাগ ECN ব্রোকারের লাইভ চ্যাট থেকে কমিশন জানতে চাওয়া হলে শুধুমাত্র এক সাইডের কমিশনের কথা বলবে। আপনি অন্ধকারে আছেন, অন্ধকারেই থাকুন। ব্রোকার আপনাকে স্বপ্রণোদিত হয়ে জানাবে না। ঘাপলাওয়ালা ECN ব্রোকার আপনার ”EURUSD তে পার (1.00 লট) লটে রাউন্ড টার্ন কত কমিশন কাটেন” প্রশ্নের জবাবে বলবে কমিশন কাটা হয় $5.00 ডলার। যদি জিজ্ঞাসা করেন রাউন্ড টার্ন কত কাটেন? তখন বলবে পার সাইড $5.00 এবং রাউন্ড টার্ন কমিশন $10.00. তাহলে যেই লাউ সেই কদু। স্প্রেড 1.00 পিপস + কমিশন 1.00 পিপস = 2.00 পিপস কর্তন। মার্কেট মেকার ব্রোকারের সাথে পার্থক্য কোথায়? সুতরাং রাউন্ড টার্ন কমিশন পিপস আর স্প্রেড মিলিয়ে যদি মোট পিপস মার্কেট মেকার ব্রোকারের স্প্রেড পিপসের চেয়ে অনেক কম হয়, তাহলেই আপনি বলতে পারবেন যে, আপনার ECN ব্রোকারের মোট কর্তন কম। তখন শর্ট-টার্ম বা স্ক্যালপিং ট্রেড করে শান্তি পাবেন।
    ও হ্যাঁ, আরেকটি বিষয়! ব্রোকার আপনার থেকে প্রতি অর্ডারে কত কমিশন কেটে নিচ্ছে তা কি আপনি বের করতে জানেন? না জানলে আজকেই বের করুন। একদম সহজ। সংযুক্ত স্ক্রিনশটের মতো অর্ডার প্যানেলের যে কোনো ওপেন অর্ডারের উপরে রাইট ক্লিক করুন এবং Commission এ টিক মার্ক দিয়ে দিন। এখন থেকে প্রফিট/ লসের পাশাপাশি অর্ডারে কত কমিশন কাটা হচ্ছে সেটাও দেখা যাবে। হিস্টোরি অর্ডারেও একই কাজ করুন।
    Courtesy by: Tanvir Ahmed
  17. al amin khan liked a post in a topic by salmansam in ফিশফরেক্স রোবট নিয়ে নিন ফ্রি   
    ফরেক্স রোবট প্রেমি যারা আছেন তাদের জন্য সুখবর , নিয়ে নিন একটি কমার্শিয়াল রোবট সম্পূর্ণ ফ্রিতে। আপনার ফরেক্স ফিশিং সেশন এখন থেকে শুরু।
    এই রোবটটি তৈরি করা হয়েছে ফরেক্স এক্সপার্ট ব্রোকারদের জন্য, যা এটি এখন ব্যাবহার হচ্ছে পুরোপুরি ফরেক্স নভিস থেকে শুরু করে সবার কাছে। ৫ মিনিটেই রোবটটি ইন্সটল করুন আর মাসে প্রফিট করুন ২০০০-৩০০০ ডলার। আর প্রতিদিন মাত্র ১০ মিনিট ট্রেড মনিটর করুন।







    ডাউনলোড

    আপনাকে এক্সপার্ট ট্রেডার হওয়ার প্রয়োজন নাই, রোবটটি সব কিছুই নিজ দায়িত্বে করবে। হাঁ ভাইয়েরে ঠিকই ধরেছেন, এমনি বলছে রোবটটির নির্মাণকারী। ডাউনলোড ফাইলে বিস্তারিত নিয়ম দেওয়া আছে কিভাবে ব্যাবহার করবেন। অবশ্যই ডেমো ট্রেডারে ইন্সটল করে দেখেন তারপর মতামত শেয়ার করেন।
  18. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in Double Bollinger bands - এইবার প্রফিট না হইয়া যাইব কই ! নিশ্চিত প্রফিট ট্রেডিং স্ট্রেটিজি।   
    বলিঙ্গার বেন্ডের ধারাবাহিক আলোচনায় আবারো স্বাগতম সবাইকে, বলেছিলাম যে যারা আমার এই পোস্টগুলো নিয়মিত ফলো করবেন এবং অনুশীলনের মাধ্যমে সেই মোতাবেক ট্রেড করবেন তাদেরকে নিশ্চিত প্রফিট করিয়ে ছাড়বো এবং বলিঙ্গার এক্সপার্ট ট্রেডার বানাবো। হ্যাঁ এখনও তাই বলছি তার তারই ধারাবাহিক পর্ব হিসেবে আজকে শুরু করছি এই সিরিজের পঞ্চম পর্ব , ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, প্রফিট না হইয়া যাইব কই !
    What is Double Bollinger Bands?
    সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং সুবিধার জন্য ডাবল বলিঙ্গার বেন্ডটি প্রথমদিকে একটি টুল হিসেবে ব্যাবহার হত। সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং খুবই চেলেঞ্জিং একটি পদ্ধতি যেখানে ট্রেডাররা অনেক রিস্ক নিয়ে এই ধরনের ট্রেড করে থাকেন। আর এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং রিস্ক কমানোর জন্যই ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড এর উৎপত্তি, যেই পদ্ধতিতে ট্রেডাররা আগের এই পদ্ধতিতে রিস্ক অনেক কমিয়ে আগের চেয়ে ভালো ট্রেড করতে পারে। এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং টাইমিং টা খুবই জরুরি একটা ফেক্টর যার অভাবে অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত বিসয় ঘটতে পারে যা ট্রেডার জন্য মোটেও ভালো নয়।
    How does double Bollinger bands work?
    মুলত এই পদ্ধতির ট্রেডিং এর জন্য ২ সেট বলিঙ্গার বেন্ড এর প্রয়োজন হয় বলে ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড হিসেবে নাম করন করা হয়েছে। যেখানে একটি বেন্ডের উপর আরেকটি বেন্ড স্ব- স্ব ভেলু নিয়ে কাজ করে থাকে। এই ক্ষেত্রে একটি বলিঙ্গার বেন্ড ২০ ডে মুভিং আভারেজ এবং স্ট্যান্ডার্ড ডিবিয়েশন ১ এবং অপরটি সেইম মুভিং এভারেজে স্ট্যান্ডার্ড ডিবিয়েশন ২ ভেলুতে সেট করে কাজ করতে হয়। এতে করে দুটি বলিঙ্গার এর মাঝে একটি গ্যাপ তৈরি হয় যার মাধ্যমেই এই স্ট্রেটিজির প্রফিট লস এবং স্টপ লস সেটিং করে ট্রেড করা হয়। ট্রেডাররা দুটি বলিঙ্গার এর স্প্রেড বা গ্যাপ কে ট্রেডিং এন্ট্রি এবং এক্সিট ধরে ট্রেড শুরু করে।
    তাহলে দুটি বলিঙ্গার এর মান হবে নিম্বের মতঃ
     
    প্রথম বলিঙ্গার বেন্ড ভেলু;
    Period: 20
    Deviations: 2
    Shift: 0
    দ্বিতীয় বলিঙ্গার বেন্ড ভেলুঃ
    Period: 20
    Deviations: 1
    Shift: 0
    আপনার চার্ট কে দুটি বলিঙ্গার বেন্ডের ভিন্ন ভিন্ন ডিবিয়েশনে সেট করা পর দেখতে এমন হবে। মনে রাখবেন দুটি বলিঙ্গারের মিডল বেন্ড কিন্তু সেইম। দুটি ভিন্ন ডিবিয়েশনের অবস্থান বোঝানোর জন্য দুটিকে আমি আলাদা আলাদা রঙ্গে সেট করেছি আশা করছি বুঝতে সমস্যা হবে না।
    সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং থেকে ভালো প্রফিট করার সবচেয়ে গুরত্তপুর্ন এবং উপযোগী একটি পদ্ধতি হল ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড স্ট্রেটিজি। আসুন দেখি এইবার কিভাবে আপনার ট্রেডগুলো সেট হবে। আরেকটা কথা স্ট্রেটিজিটি একটু স্লোলি বুঝে পড়ুন দেখবেন একদম সহজ, পড়ার সাথে সাথে ছবি ধরে বুঝে এগুতে থাকুন, জটিল হবে না।
    লং ট্রেড সেটআপঃ
    তাহলে এতক্ষণের আলোচনায় আশা করছি দুটি বলিঙ্গার বেন্ড বুঝে নিয়েছেন এবং সেটিং তা বুঝতে পেরেছেন ভালো ভাবে, এইবার ট্রেডে কিভাবে ঢুকবেন তা বলছি খেয়াল করুন। আরেকটা কথা বলে নেয়, আলোচনার জন্য আমি ডিবিয়েশন ১ বলিঙ্গার কে BB1 এবং ডিবিয়েশন ২ বলিঙ্গারকে BB2 নাম ধরে ডাকবো।  
     
    বায় ট্রেডে ডুকার জন্য আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে একটি ক্যান্ডলের জন্য যা BB1 এর আপার বেন্ডে ক্লোজ হয়েছে। তারপর আপনাকে দেখতে হবে যে তার পূর্বের ক্যান্ডলে গুলো কোথায় ক্লোজ হয়েছে BB1 এর আপার বেন্ডের উপরে নাকি নিচে। যদি তাই হয় তাহলে আপনি পেয়ে গেছেন লং ট্রেড সিগনাল। অর্থাৎ আপনি এখন নিশ্চিত বায় ট্রেড করতে পারবেন। খেয়াল করুন নিচের চিত্রে BB1 এর আপার বেন্ডের উপরে ৩ নম্বর ক্যান্ডেল্টি ক্লোজ হয়েছে। এবং পূর্বের ২টি ক্যান্ডেল ক্লোজ হয়েছে BB1 আপার বলিঙ্গারের নিচে। আর মাধ্যমে আপনি নিশ্চিত ৩ নাম্বার ক্যান্ডেল বায় ট্রেড দিতে পারেন।
    স্টপ লসঃ
    ৩ নাম্বার ক্যন্ডেলের লো প্রাইসে অর্থাৎ BB1 এর আপার বেন্ডে ৩য় ক্যন্ডেল ক্লোজে আপনি যে বায় অর্ডার দিয়েছেন তার লো একদম লো প্রাইসে স্টপ লস সেট করে দিবেন। অনেকে অবশ্য ৩য় ক্যান্ডেলের লো প্রাইসের ১০-১৫ পিপস নিচে স্টপ লস সেট করে থাকেন, এই ক্ষেত্রে আপনি বলব আপনি প্র্যাকটিস এর মাধ্যমে নিজেই ঠিক করে নিবেন কোথায় স্টপ লস সেট করবেন।
    টেইক প্রফিটঃ
    যে পরিমান স্টপ লস অর্থাৎ যত পিপস স্টপ লস পয়েন্ট সেট করেছেন তার দ্বিগুণ টেইক প্রফিট সেট করে ট্রেডকে ফাইনালি সেট করে নিন। এই ক্ষেত্রে অনেক ট্রেডার আছেন যারা ট্রেইলিং করে থাকেন, যেমন মার্কেট যদি ৫০ পিপস আপনার অনুকুলে যায় তখন স্টপ লসও ৫০ পিপস ট্রেইল করে করে এইভাবে দীর্ঘ মেয়াদি প্রায় ২০০-৫০০ পিপস পর্যন্ত বা তার ও বেশি প্রফিট নিয়ে থাকেন।
    এইভাবে লং ট্রেড করবেন, এর শর্ট ট্রেডের কথা আশা করি আর বলতে হবে না, লং ট্রেড যেভাবে করেছেন তার বিপরীত নিয়মে BB1 লাওয়ার বেন্ডের মাধ্যমে শর্ট ট্রেড করবেন।
    পদ্ধতিটি অনেক সুপার কাজ করে যদি ঠিক মত অনুশীলন করে ব্যাবহার করতে পারেন তাহলে নিশ্চিত ভালো প্রফিট নিতে পারবেন।
    View the full article
  19. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in Double Bollinger bands - এইবার প্রফিট না হইয়া যাইব কই ! নিশ্চিত প্রফিট ট্রেডিং স্ট্রেটিজি।   
    বলিঙ্গার বেন্ডের ধারাবাহিক আলোচনায় আবারো স্বাগতম সবাইকে, বলেছিলাম যে যারা আমার এই পোস্টগুলো নিয়মিত ফলো করবেন এবং অনুশীলনের মাধ্যমে সেই মোতাবেক ট্রেড করবেন তাদেরকে নিশ্চিত প্রফিট করিয়ে ছাড়বো এবং বলিঙ্গার এক্সপার্ট ট্রেডার বানাবো। হ্যাঁ এখনও তাই বলছি তার তারই ধারাবাহিক পর্ব হিসেবে আজকে শুরু করছি এই সিরিজের পঞ্চম পর্ব , ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, প্রফিট না হইয়া যাইব কই !
    What is Double Bollinger Bands?
    সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং সুবিধার জন্য ডাবল বলিঙ্গার বেন্ডটি প্রথমদিকে একটি টুল হিসেবে ব্যাবহার হত। সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং খুবই চেলেঞ্জিং একটি পদ্ধতি যেখানে ট্রেডাররা অনেক রিস্ক নিয়ে এই ধরনের ট্রেড করে থাকেন। আর এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং রিস্ক কমানোর জন্যই ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড এর উৎপত্তি, যেই পদ্ধতিতে ট্রেডাররা আগের এই পদ্ধতিতে রিস্ক অনেক কমিয়ে আগের চেয়ে ভালো ট্রেড করতে পারে। এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং টাইমিং টা খুবই জরুরি একটা ফেক্টর যার অভাবে অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত বিসয় ঘটতে পারে যা ট্রেডার জন্য মোটেও ভালো নয়।
    How does double Bollinger bands work?
    মুলত এই পদ্ধতির ট্রেডিং এর জন্য ২ সেট বলিঙ্গার বেন্ড এর প্রয়োজন হয় বলে ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড হিসেবে নাম করন করা হয়েছে। যেখানে একটি বেন্ডের উপর আরেকটি বেন্ড স্ব- স্ব ভেলু নিয়ে কাজ করে থাকে। এই ক্ষেত্রে একটি বলিঙ্গার বেন্ড ২০ ডে মুভিং আভারেজ এবং স্ট্যান্ডার্ড ডিবিয়েশন ১ এবং অপরটি সেইম মুভিং এভারেজে স্ট্যান্ডার্ড ডিবিয়েশন ২ ভেলুতে সেট করে কাজ করতে হয়। এতে করে দুটি বলিঙ্গার এর মাঝে একটি গ্যাপ তৈরি হয় যার মাধ্যমেই এই স্ট্রেটিজির প্রফিট লস এবং স্টপ লস সেটিং করে ট্রেড করা হয়। ট্রেডাররা দুটি বলিঙ্গার এর স্প্রেড বা গ্যাপ কে ট্রেডিং এন্ট্রি এবং এক্সিট ধরে ট্রেড শুরু করে।
    তাহলে দুটি বলিঙ্গার এর মান হবে নিম্বের মতঃ
     
    প্রথম বলিঙ্গার বেন্ড ভেলু;
    Period: 20
    Deviations: 2
    Shift: 0
    দ্বিতীয় বলিঙ্গার বেন্ড ভেলুঃ
    Period: 20
    Deviations: 1
    Shift: 0
    আপনার চার্ট কে দুটি বলিঙ্গার বেন্ডের ভিন্ন ভিন্ন ডিবিয়েশনে সেট করা পর দেখতে এমন হবে। মনে রাখবেন দুটি বলিঙ্গারের মিডল বেন্ড কিন্তু সেইম। দুটি ভিন্ন ডিবিয়েশনের অবস্থান বোঝানোর জন্য দুটিকে আমি আলাদা আলাদা রঙ্গে সেট করেছি আশা করছি বুঝতে সমস্যা হবে না।
    সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং থেকে ভালো প্রফিট করার সবচেয়ে গুরত্তপুর্ন এবং উপযোগী একটি পদ্ধতি হল ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড স্ট্রেটিজি। আসুন দেখি এইবার কিভাবে আপনার ট্রেডগুলো সেট হবে। আরেকটা কথা স্ট্রেটিজিটি একটু স্লোলি বুঝে পড়ুন দেখবেন একদম সহজ, পড়ার সাথে সাথে ছবি ধরে বুঝে এগুতে থাকুন, জটিল হবে না।
    লং ট্রেড সেটআপঃ
    তাহলে এতক্ষণের আলোচনায় আশা করছি দুটি বলিঙ্গার বেন্ড বুঝে নিয়েছেন এবং সেটিং তা বুঝতে পেরেছেন ভালো ভাবে, এইবার ট্রেডে কিভাবে ঢুকবেন তা বলছি খেয়াল করুন। আরেকটা কথা বলে নেয়, আলোচনার জন্য আমি ডিবিয়েশন ১ বলিঙ্গার কে BB1 এবং ডিবিয়েশন ২ বলিঙ্গারকে BB2 নাম ধরে ডাকবো।  
     
    বায় ট্রেডে ডুকার জন্য আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে একটি ক্যান্ডলের জন্য যা BB1 এর আপার বেন্ডে ক্লোজ হয়েছে। তারপর আপনাকে দেখতে হবে যে তার পূর্বের ক্যান্ডলে গুলো কোথায় ক্লোজ হয়েছে BB1 এর আপার বেন্ডের উপরে নাকি নিচে। যদি তাই হয় তাহলে আপনি পেয়ে গেছেন লং ট্রেড সিগনাল। অর্থাৎ আপনি এখন নিশ্চিত বায় ট্রেড করতে পারবেন। খেয়াল করুন নিচের চিত্রে BB1 এর আপার বেন্ডের উপরে ৩ নম্বর ক্যান্ডেল্টি ক্লোজ হয়েছে। এবং পূর্বের ২টি ক্যান্ডেল ক্লোজ হয়েছে BB1 আপার বলিঙ্গারের নিচে। আর মাধ্যমে আপনি নিশ্চিত ৩ নাম্বার ক্যান্ডেল বায় ট্রেড দিতে পারেন।
    স্টপ লসঃ
    ৩ নাম্বার ক্যন্ডেলের লো প্রাইসে অর্থাৎ BB1 এর আপার বেন্ডে ৩য় ক্যন্ডেল ক্লোজে আপনি যে বায় অর্ডার দিয়েছেন তার লো একদম লো প্রাইসে স্টপ লস সেট করে দিবেন। অনেকে অবশ্য ৩য় ক্যান্ডেলের লো প্রাইসের ১০-১৫ পিপস নিচে স্টপ লস সেট করে থাকেন, এই ক্ষেত্রে আপনি বলব আপনি প্র্যাকটিস এর মাধ্যমে নিজেই ঠিক করে নিবেন কোথায় স্টপ লস সেট করবেন।
    টেইক প্রফিটঃ
    যে পরিমান স্টপ লস অর্থাৎ যত পিপস স্টপ লস পয়েন্ট সেট করেছেন তার দ্বিগুণ টেইক প্রফিট সেট করে ট্রেডকে ফাইনালি সেট করে নিন। এই ক্ষেত্রে অনেক ট্রেডার আছেন যারা ট্রেইলিং করে থাকেন, যেমন মার্কেট যদি ৫০ পিপস আপনার অনুকুলে যায় তখন স্টপ লসও ৫০ পিপস ট্রেইল করে করে এইভাবে দীর্ঘ মেয়াদি প্রায় ২০০-৫০০ পিপস পর্যন্ত বা তার ও বেশি প্রফিট নিয়ে থাকেন।
    এইভাবে লং ট্রেড করবেন, এর শর্ট ট্রেডের কথা আশা করি আর বলতে হবে না, লং ট্রেড যেভাবে করেছেন তার বিপরীত নিয়মে BB1 লাওয়ার বেন্ডের মাধ্যমে শর্ট ট্রেড করবেন।
    পদ্ধতিটি অনেক সুপার কাজ করে যদি ঠিক মত অনুশীলন করে ব্যাবহার করতে পারেন তাহলে নিশ্চিত ভালো প্রফিট নিতে পারবেন।
  20. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in Double Bollinger bands - এইবার প্রফিট না হইয়া যাইব কই ! নিশ্চিত প্রফিট ট্রেডিং স্ট্রেটিজি।   
    বলিঙ্গার বেন্ডের ধারাবাহিক আলোচনায় আবারো স্বাগতম সবাইকে, বলেছিলাম যে যারা আমার এই পোস্টগুলো নিয়মিত ফলো করবেন এবং অনুশীলনের মাধ্যমে সেই মোতাবেক ট্রেড করবেন তাদেরকে নিশ্চিত প্রফিট করিয়ে ছাড়বো এবং বলিঙ্গার এক্সপার্ট ট্রেডার বানাবো। হ্যাঁ এখনও তাই বলছি তার তারই ধারাবাহিক পর্ব হিসেবে আজকে শুরু করছি এই সিরিজের পঞ্চম পর্ব , ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, প্রফিট না হইয়া যাইব কই !
    What is Double Bollinger Bands?
    সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং সুবিধার জন্য ডাবল বলিঙ্গার বেন্ডটি প্রথমদিকে একটি টুল হিসেবে ব্যাবহার হত। সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং খুবই চেলেঞ্জিং একটি পদ্ধতি যেখানে ট্রেডাররা অনেক রিস্ক নিয়ে এই ধরনের ট্রেড করে থাকেন। আর এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং রিস্ক কমানোর জন্যই ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড এর উৎপত্তি, যেই পদ্ধতিতে ট্রেডাররা আগের এই পদ্ধতিতে রিস্ক অনেক কমিয়ে আগের চেয়ে ভালো ট্রেড করতে পারে। এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং টাইমিং টা খুবই জরুরি একটা ফেক্টর যার অভাবে অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত বিসয় ঘটতে পারে যা ট্রেডার জন্য মোটেও ভালো নয়।
    How does double Bollinger bands work?
    মুলত এই পদ্ধতির ট্রেডিং এর জন্য ২ সেট বলিঙ্গার বেন্ড এর প্রয়োজন হয় বলে ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড হিসেবে নাম করন করা হয়েছে। যেখানে একটি বেন্ডের উপর আরেকটি বেন্ড স্ব- স্ব ভেলু নিয়ে কাজ করে থাকে। এই ক্ষেত্রে একটি বলিঙ্গার বেন্ড ২০ ডে মুভিং আভারেজ এবং স্ট্যান্ডার্ড ডিবিয়েশন ১ এবং অপরটি সেইম মুভিং এভারেজে স্ট্যান্ডার্ড ডিবিয়েশন ২ ভেলুতে সেট করে কাজ করতে হয়। এতে করে দুটি বলিঙ্গার এর মাঝে একটি গ্যাপ তৈরি হয় যার মাধ্যমেই এই স্ট্রেটিজির প্রফিট লস এবং স্টপ লস সেটিং করে ট্রেড করা হয়। ট্রেডাররা দুটি বলিঙ্গার এর স্প্রেড বা গ্যাপ কে ট্রেডিং এন্ট্রি এবং এক্সিট ধরে ট্রেড শুরু করে।
    তাহলে দুটি বলিঙ্গার এর মান হবে নিম্বের মতঃ
     
    প্রথম বলিঙ্গার বেন্ড ভেলু;
    Period: 20
    Deviations: 2
    Shift: 0
    দ্বিতীয় বলিঙ্গার বেন্ড ভেলুঃ
    Period: 20
    Deviations: 1
    Shift: 0
    আপনার চার্ট কে দুটি বলিঙ্গার বেন্ডের ভিন্ন ভিন্ন ডিবিয়েশনে সেট করা পর দেখতে এমন হবে। মনে রাখবেন দুটি বলিঙ্গারের মিডল বেন্ড কিন্তু সেইম। দুটি ভিন্ন ডিবিয়েশনের অবস্থান বোঝানোর জন্য দুটিকে আমি আলাদা আলাদা রঙ্গে সেট করেছি আশা করছি বুঝতে সমস্যা হবে না।
    সাইডওয়ে মার্কেট ট্রেডিং থেকে ভালো প্রফিট করার সবচেয়ে গুরত্তপুর্ন এবং উপযোগী একটি পদ্ধতি হল ডাবল বলিঙ্গার বেন্ড স্ট্রেটিজি। আসুন দেখি এইবার কিভাবে আপনার ট্রেডগুলো সেট হবে। আরেকটা কথা স্ট্রেটিজিটি একটু স্লোলি বুঝে পড়ুন দেখবেন একদম সহজ, পড়ার সাথে সাথে ছবি ধরে বুঝে এগুতে থাকুন, জটিল হবে না।
    লং ট্রেড সেটআপঃ
    তাহলে এতক্ষণের আলোচনায় আশা করছি দুটি বলিঙ্গার বেন্ড বুঝে নিয়েছেন এবং সেটিং তা বুঝতে পেরেছেন ভালো ভাবে, এইবার ট্রেডে কিভাবে ঢুকবেন তা বলছি খেয়াল করুন। আরেকটা কথা বলে নেয়, আলোচনার জন্য আমি ডিবিয়েশন ১ বলিঙ্গার কে BB1 এবং ডিবিয়েশন ২ বলিঙ্গারকে BB2 নাম ধরে ডাকবো।  
     
    বায় ট্রেডে ডুকার জন্য আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে একটি ক্যান্ডলের জন্য যা BB1 এর আপার বেন্ডে ক্লোজ হয়েছে। তারপর আপনাকে দেখতে হবে যে তার পূর্বের ক্যান্ডলে গুলো কোথায় ক্লোজ হয়েছে BB1 এর আপার বেন্ডের উপরে নাকি নিচে। যদি তাই হয় তাহলে আপনি পেয়ে গেছেন লং ট্রেড সিগনাল। অর্থাৎ আপনি এখন নিশ্চিত বায় ট্রেড করতে পারবেন। খেয়াল করুন নিচের চিত্রে BB1 এর আপার বেন্ডের উপরে ৩ নম্বর ক্যান্ডেল্টি ক্লোজ হয়েছে। এবং পূর্বের ২টি ক্যান্ডেল ক্লোজ হয়েছে BB1 আপার বলিঙ্গারের নিচে। আর মাধ্যমে আপনি নিশ্চিত ৩ নাম্বার ক্যান্ডেল বায় ট্রেড দিতে পারেন।
    স্টপ লসঃ
    ৩ নাম্বার ক্যন্ডেলের লো প্রাইসে অর্থাৎ BB1 এর আপার বেন্ডে ৩য় ক্যন্ডেল ক্লোজে আপনি যে বায় অর্ডার দিয়েছেন তার লো একদম লো প্রাইসে স্টপ লস সেট করে দিবেন। অনেকে অবশ্য ৩য় ক্যান্ডেলের লো প্রাইসের ১০-১৫ পিপস নিচে স্টপ লস সেট করে থাকেন, এই ক্ষেত্রে আপনি বলব আপনি প্র্যাকটিস এর মাধ্যমে নিজেই ঠিক করে নিবেন কোথায় স্টপ লস সেট করবেন।
    টেইক প্রফিটঃ
    যে পরিমান স্টপ লস অর্থাৎ যত পিপস স্টপ লস পয়েন্ট সেট করেছেন তার দ্বিগুণ টেইক প্রফিট সেট করে ট্রেডকে ফাইনালি সেট করে নিন। এই ক্ষেত্রে অনেক ট্রেডার আছেন যারা ট্রেইলিং করে থাকেন, যেমন মার্কেট যদি ৫০ পিপস আপনার অনুকুলে যায় তখন স্টপ লসও ৫০ পিপস ট্রেইল করে করে এইভাবে দীর্ঘ মেয়াদি প্রায় ২০০-৫০০ পিপস পর্যন্ত বা তার ও বেশি প্রফিট নিয়ে থাকেন।
    এইভাবে লং ট্রেড করবেন, এর শর্ট ট্রেডের কথা আশা করি আর বলতে হবে না, লং ট্রেড যেভাবে করেছেন তার বিপরীত নিয়মে BB1 লাওয়ার বেন্ডের মাধ্যমে শর্ট ট্রেড করবেন।
    পদ্ধতিটি অনেক সুপার কাজ করে যদি ঠিক মত অনুশীলন করে ব্যাবহার করতে পারেন তাহলে নিশ্চিত ভালো প্রফিট নিতে পারবেন।
    View the full article
    View the full article
  21. Mhafiz™ liked a post in a topic by salmansam in Octa FX লেনদেন থেকে সাবধান সতর্ক হউন।   
    একটি ব্রোকার ব্র্যাক ব্যাংক ও ডিবিবিল এর মাধ্যমে ব্যাংক ডিপোজিটের অপশন চালু করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে দেশের সকল ব্যাংকের প্রতিটি ইনকামি ও আউটগোয়িং ট্রানজেকশন কঠোরভাবে মনিটর করা হয়। বাংলাদেশ থেকে বিদেশের ব্রোকারে টাকা ট্রান্সফার করে ফরেক্স ট্রেডিং করা বৈধ নয়। তার উপরে সরাসরি যদি ব্যাংকের মাধ্যমে কোনো ব্রোকারে টাকা ট্রান্সফার করেন তাহলে খুব বেশিদিন অপেক্ষা করতে হবে না, আপনি নিজে আইনি ঝামেলায় জড়াবেন সাথে সেই ব্যাংকও কিছুটা ঝামেলায় জড়াবে। তবে ব্যাংক ঝামেলা থেকে পার পেয়ে যাবে যেকোনো উপায়ে, পার পাবেন না আপনি। সেই সাথে নিজের ফরেক্স ট্রেডিং ক্যারিয়ার তো ধ্বংস করবেনই সাথে বাংলাদেশের বাকি ফরেক্স ট্রেডারদেরকেও হুমকির মুখে ফেলে দেবেন। পরিণতিতে মোটামুটি নির্বিঘ্নে করে আসা ফরেক্স ট্রেডিং আর নির্বিঘ্নে করা যাবে না।

    সাবধানতা অবলম্বন করুন। নিজে সেফ থাকুন, অন্য ট্রেডারকেও সেফ থাকতে সহায়তা করুন। ভুলেও ব্যাংকের মাধ্যমে ডিপোজিট-উইথড্র করতে যাাবেন না। অনেক সমস্যা থাকার পরেও নেটেলার-স্ক্রিলই ভালো। যে কুম্ভকর্ণ ঘুমিয়ে আছে তাকে অযথা খোঁচাতে যাবেন না। জেগে গেলে সবার বারোটা বাজিয়ে দেবে এ আমি হলফ করে বলে রাখলাম। কুম্ভকর্ণ বলতে কাকে বুঝাচ্ছি তা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন!
    অনুগ্রহপূর্বক ফরেক্স রিলেটেড যে যত পারেন শেয়ার করুন অথবা কপি-পেস্ট করে সবাইকে সচেতন ও সতর্ক করে দিন। এভাবেই আমরা তাদের এই অপরিণামদর্শী ক্ষতিকর প্রয়াসটি ভুন্ডল করে দিতে পারি।
     
    Post Courtesy by:  Tanvir Ahmed
  22. FXBD liked a post in a topic by salmansam in আপনি যদি মুসলিম ফরেক্স ট্রেডার হয়ে থাকেন এবং ধর্মীয় বিধি-বিধান মেনে চলেন, তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য   
    আপনি কি আপনার ট্রেডিং একাউন্টের Swap (সুদ) এর বিষয়ে সচেতন? যদি সচেতন না হোন, তাহলে আজকে থেকেই সচেতন হোন এবং বিগত দিনের এবং রানিং ট্রেডিং একাউন্টগুলোর Swap (সুদ) গণনা করে সেগুলো সোয়াবের নিয়্যত ছাড়া দান করে দিন। কারণ মহান আল্লাহ পাক পবিত্র কোরআনের সুরা বাক্কারায় বলেছেন,
    “আমি ব্যবসাকে হালাল করেছি এবং সুদকে করেছি হারাম।”

    যেহেতু আমরা ফরেক্স ট্রেডিং করছি এবং চাইলেও অনেক ক্ষেত্রেই সোয়াপ-মুক্ত একাউন্ট পাই না, তাই বাধ্য হয়ে সোয়াপ-যুক্ত একাউন্টে ট্রেড করতে হয়। সাধারণত একদিনের বেশি ট্রেড হোল্ড করলে রানিং অর্ডারের উপর সোয়াপ ধার্য হয়ে থাকে। যারা ডে ট্রেডিং (দিনের ট্রেড দিনের মধ্যেই ক্লোজ) কিংবা স্ক্যালপিং ট্রেডিং করে থাকেন, তাদের একাউন্টে সাধারণত সোয়াপ যুক্ত হয় না। একদিনের বেশি ট্রেড হোল্ড করতে গেলেই সোয়াপের কার্যক্রম শুরু হয়ে যায়। বেশিরভাগ কারেন্সি পেয়ারেই সোয়াপ আপনার একাউন্ট থেকে কেটে নেয়া হয়। তবে কিছু কিছু কারেন্সি পেয়ারে আপনার একাউন্টে সোয়াপ যোগ হয়ে থাকে। অর্থাৎ আপনি সুদ পেয়ে থাকেন। যেক্ষেত্রে আপনার একাউন্ট থেকে সোয়াপ (সুদ) কেটে নেয়া হয়, সেক্ষেত্রে আপনার করার কিছুই নেই। অর্থাৎ এটা কিন্তু আপনি না চাইলেও দিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু যে কিছু কিছু ক্ষেত্রে সোয়াপ (সুদ) আপনি না চাইলেও আপনার একাউন্টে যোগ হয়ে যাচ্ছে, পরিমাণে যত কমই হোক না কেন সেটা কিন্তু আপনি পেয়ে যাচ্ছেন। অর্থাৎ আপনি বিধান মেনে চলা মুসলিম হিসেবে সুদ নিশ্চয়ই খাবেন না? তাই আপনার উচিত একাউন্টে যোগ হওয়া এই সোয়াপ (সুদ) পরিমাণে যত কমই হোক না কেন, সে বিষয়ে সচেতন থাকা এবং টাইম টু টাইম সেই সোয়াপ হিসাব করে বের করে ফেলা। একাউন্ট থেকে প্রফিট উইথড্র করার পরে উক্ত সোয়াপ বা সুদ সোয়াবের নিয়্যত ছাড়া দান করে দেয়াটাই হবে সঠিক কাজ।
    আপনাদেরকে উক্ত সোয়াপ বিষয়ে সচেতন করাসহ সহজেই সোয়াপের হিসাব বের করার জন্য আমি আপনাদেরকে অামার নিজের তৈরি একটি Script উপহার হিসেবে দিচ্ছি। এই Script দিয়ে আপনি একাউন্ট শুরুর দিন থেকে কিংবা নির্দিষ্ট দিন গণনা করে সোয়াপ বের করে ফেলতে পারবেন।
    সুতরাং সোয়াপ বিষয়ে সচেতন হোন এবং সোয়াপ গণনা করে বের করে প্রাপ্ত সোয়াপ বিনা সোয়াবের নিয়্যতে দান করে দিয়ে আল্লাহকে সন্তুষ্ট করুন।
     
    Collected from  Tanvir Ahmed
  23. Mhafiz™ liked a post in a topic by salmansam in ফুল টাইম ট্রেডার ভাবার পুর্বে ৫ টি প্রশ্ন নিজেকে নিজে করেছেন তো ???   
    Very Informative , Thank you - হা মুল কাজ হিসেবে ফরেক্স ট্রেডিং বেঁছে নেওয়ার আগে উপরের প্রশ্ন গুলোর সঠিক জবাব দেওয়াটা জরুরি বটে, নচেৎ নিজের পায়ে নিজেই কুড়াল মারার সমান হবে। ধন্নবাদ ভাই গুরুত্তপুর্ন সব বিষই তুলে ধরার জন্য।
  24. salmansam liked a post in a topic by Mhafiz™ in ফুল টাইম ট্রেডার ভাবার পুর্বে ৫ টি প্রশ্ন নিজেকে নিজে করেছেন তো ???   
    ফরেক্স ট্রেডিং যারা ভালো পারেন কিংবা ভালো ভাবে নিতে চান অর্থাৎ ফুল টাইম ট্রেডার হিসেবে কাজ করতে চান তাদের অনেকের মনে অনেক প্রশ্ন থাকে যে আসলে আমি কতটুকু জানি বা আদো আমি ফুল টাইম ট্রেডার হিসেবে নিজেকে যোগ্য কিনা ইত্যাদি ইত্যাদি... আসলে এই প্রশ্নের উত্তরে হয়ত অনেক কিছুই বলা যাবে অনেক কিছু লিখা যাবে। তবে কয়েকটি প্রশ্ন নিজেকে নিজে করে তার উত্তরেই আপনি ভাবতে পারেন আপনি আসলেই ফুল টাইম ট্রেডার হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছেন কি না !
     
    # ১ : আপনি ফরেক্স ট্রেডিং কতটুকু অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন ?
    অভিজ্ঞতা প্রতিটি কাজে খুব গুরুত্তপুর্ন ভুমিকা পালন করে। আপনারা দেখে থাকবেন অর্থবাজার প্রতিনিয়ত  এক একটি সাইকেল এর মাধ্যামে মুভ করে আর ফরেক্স মার্কেট ও তার বিপরিত নয়। তাই আপনি যদি নিয়মিত এবং ধারাবাহিক ভাবে ট্রেড চালিয়ে যেতে চান তাহলে আপনাকেও অবশ্যই ভিবিন্ন সাইকেল সম্পর্কে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে;
    যেমন আজ থেকে যদি ৮-১০ বছর আগের ফরেক্স মার্কেট এর চিত্র দেখি তাহলে যারা দেখেছেন তারাও বলতে পারবেন যে কি পরিমান মুভমেন্ট ছিল প্রতি মিনিটে কিংবা প্রতি ২৪ ঘন্টায়। কম না হলে ও ১০০ পিপস এর আপ-ডাউন ছিল প্রতি ঘন্টায় যা ছিল তখনকার মার্কেট এর স্বাভাবিক চিত্র অথচ বর্তমান সময়ে হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ ছাড়া খুব একটা ঐ চিত্র দেখা যায় না। তাই বুঝতেই পারছেন আপনি কোন ট্রেন্ডে আছেন কিংবা আগামি দিনের ট্রেন্ডটি কি হতে পারে।

     
    # ২: আপনি কি ট্রেডিংএর যেকোন অবস্থা কে মোকাবেলা করতে প্রস্তুত?
    প্রথমত ফুল টাইম ট্রেডিং অনেক লাভের তা নিঃসন্দেহে , আপনাকে প্রতিটি সময় কাজে লাগাতে হবে এবং ইনকাম করতে হবে যা মোটেই সহজ কোন কাজ নয়। স্বাভাবিক ভাবে আপনি মনিটরিং রাখবেন আপনার কারেন্সিকে যতক্ষণ না সিগনাল পাবেন ততক্ষণ কোন এন্ট্রিতে যাবেন না , এই জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হলে তাও করতে হবে;
    সঠিক সিগনাল পেতে হলে আপনার সব গুলো সেটআপ মিলতে হবে যখনি আপনি আপনার সেটআপ মতে ট্রেন্ড পাবেন তখন আপনার আন্ট্রি এক্সিকিউট হবে।  হয়ত আন্ট্রি নেওয়ার পর কিছু পজেটিভ পিপস  হয়ে আবার রিভার্স করে নেগেটিভ পিপস এ পরিণত হল ,
    এই অবস্থায় আপনি কি করবেন ?
    আপনার সব স্ট্রেটেজি এবং সেটআপ ম্যাচ হওয়ার পরই তো এন্ট্রি নিলেন, আসলেই এটাই হচ্ছে ফরেক্স মার্কেট এর সবচেয়ে কঠিন সময়; তাই ঐ সব সময়ের সঠিক সিদ্ধান্তই আপনাকে চিন্তিত না করে বরং ঐ অবস্থায় আরেকটি যথাযথ সিদ্ধান্ত এবং প্রতিটি ট্রেড থেকে আলাদাভাবে প্রফিট না নিয়ে আভারেজ ইনকাম করে নেওয়া;
     
    # ৩: আপনি কি আপনার রিস্ক ম্যানেজ করতে পারেন ?
    উপরের ঐ কঠিন পরিস্থিতিতে আপনাকে জানতে হবে কিভাবে আপনি আপনার রিস্ক ম্যানেজ করবেন। আপনি নিশ্চিত ভাবে জানেন না যে পরবর্তী  মার্কেটে ঠিক কি ঘটতে চলেছে। তাই আপনাকে উভয় রকম সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রস্তুত থাকতে হবে যে মার্কেট আপনার অনুকুলে বা প্রতিকুলে গেলে কি করবেন।
    তাই আপনাকে রিস্ক ম্যানেজিং কিছু প্ল্যান সেট এর মাদ্ধমে ট্রেড সেটআপ করতে হবে; প্রতিটি ট্রেডে কতটুকু রিস্ক নিবেন; কোথায় স্টপ লস সেট করবেন (আদো আপনি স্টপ লস সেট করেন ?) কখন/কিভাবে আপনি ট্রেড থেকে বের হউন; আপনি কি আপনার ট্রেডিং সাইজ বাড়ানোর কথা চিন্তা করছেন; আপনি কি অতিরিক্ত রিস্ক নিতে যাচ্ছেন; তাই উপরের পয়েন্টস গুলো ভাবেন এবং সময় অনুযায়ী সঠিক সিদ্ধান্ত নিন।
     
    # ৪: প্রতিমাসে আপনার কত ইনকাম করার প্ল্যান থাকে ?
    এই প্রশ্নটি অনেকগুলো গুরুত্তপুর্ন প্রশ্নের মধ্যে একটি যা ট্রেডার টু ট্রেডার ভিন্ন হয়ে থাকে; প্রতিমাসে উইথড্র’র চিন্তা না করাটাই ভালো। আপনি যদি আপনার মাসিক লোন পরিশোধ করতে ট্রেডিং করে ইনকাম করতে চান আমার মনে হয় আপনি ট্রেডিং এ ভালো সিদ্ধান্ত নিতে নাও পারেন। বুদ্ধিমানের কাজ ঐ টাই হবে আপনি যদি ফুল টাইম ট্রেডিং কে আপনার নিয়মিত অনন্যাও জবের মত করে চিন্তা করেন এবং লিমিটেশন টা মাথায় রাখেন।
    কারন ফুল টাইম ট্রেডার হিসেবে আপনার ইনকাম সব গুলো মাসে সমান হবে না, কোন মাস খারাপ যাবে, কোন মাস ভালো আবার কোন মাস অনেক ভালো যাবে আবার কোন কোন মাস অনেক খারাপ যাবে এটাই স্বাভাবিক; যদি আপনি আপনার ইনকামটা কে মাসিক রিটার্ন হিসেব না করে ন্যুন্নতম ৬ মাস ধরেন তাহলে আমার মনে হয় আপানার রিটার্নটা অনেক ভালো হবে এবং স্ট্রেসলেস হবে;
     
    # ৫: আপনি কি আপনার ট্রেডিং কে দ্বিতীয় ইনকাম সোর্স হিসেবে ভেবেছেন ?
     
    একজন ফুল টাইম ট্রেডার হিসেবে প্রথমে আপনাকে একটি সামঞ্জস্যপূর্ণ ট্রেডিং করতে জানতে হবে। অর্থাৎ আপানাকে প্রমান করতে হবে যে আপনি প্রতিনিয়ত একটি স্টেবল ইনকাম করতে পারেন। তাই সেই জন্য প্রমান সরুপ প্রথমে প্রথম সোর্স হিসেবে চিন্তা না করে দ্বিতীয় সোর্স হিসেবেই চিন্তা করলে ভালো করবেন।
    মনে রাখবেন যদি দ্বিতীয় সোর্স হিসেবে আপনি প্রমান করতে ব্যর্থ হউন যে আপনি নিয়মিত ভাবে একটি ফ্লেক্সিবল ইনকাম করতে পারেন তাহলে ফুল টাইম ট্রেডার হিসেবে নিজে চিন্তা থেকে বিরত রাখুন নচেত নিজের বিপদ নিজেই ডেকে আনবেন।
     
    সবশেষে এইটুকু বলতে চাই এবং যে কথাটাই ভালো ভাবে মনে গেথে রাখবেন তা হল আপনার ম্যাজিকেল টুলস এবং ফর্মুলায় নির্ভরশীল না হয়ে মার্কেট কি করছে তার দিকে নজর দিন যখনি আপনি তা বুঝবেন তখন মুভ করুন।
  25. Mhafiz™ liked a post in a topic by salmansam in ফরেক্স ট্রেডিং এর বিভিন্ন সেশন বিস্তারিত (১ম অংশ)।   
    ধন্যবাদ সুন্দর ভাবে বিভিন্ন ট্রেডিং সেশন আলোচনা করার জন্য ! নতুন পুরাতন আশা করছি ফরেক্স ট্রেডিং সম্পর্কে এবং ভিবিন্ন সেশনে ট্রেডিং সুবিধা অসুবিধা সম্পর্কে জাদের পুর্ন ধারনা নাই কিংবা জানেন না তারা অনেক উপকৃত হবেন, এবং আগের চেয়ে আরো ভালো ট্রেডিং করতে পারবেন। আবারো ধন্যবাদ রয়েল ভাই এবং বিডিফরেক্সপ্রো'