Search the Community

Showing results for tags 'eurusd forecast this week'.



More search options

  • Search By Tags

    Type tags separated by commas.
  • Search By Author

Content Type


  • সাধারণ ফরেক্স সহায়তা
  • ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা, ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, নিউজ এবং সিগন্যাল সম্পর্কিত
    • ফোরাম ও পোর্টাল সহায়তা
    • সাধারণ ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা
    • নিউজ, সিগনাল ও এনালাইসিস
    • প্রশ্ন ও উত্তর
    • ট্রেডিং স্ট্রেটিজি
    • ফরেক্স স্টাডি
  • বিজ্ঞাপন
    • কমার্শিয়াল কন্টেন্ট
    • ক্রয়-বিক্রয়-এক্সচেঞ্জ
  • ট্রেডিং সফটওয়্যার (প্লাটফর্ম-মেটা ট্রেডার)
    • ইন্ডিকেটর
    • অটোট্রেডিং
    • মেটাট্রেডার ৪, ৫
  • ফরেক্স ব্রোকার সম্পর্কিত
    • ফরেক্স ব্রোকার
    • ফরেক্স অফার
    • পেইমেন্ট মেথড
  • অফ-টপিক

Categories

  • সাধারণ ফরেক্স বই
  • টেকনিক্যাল এনালাইসিস
  • ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস
  • ক্যান্ডলেস্টিক এনালাইসিস
  • ইনডিকেটর

Group


ওয়েবসাইট URL


ইয়াহু(Yahoo)


স্কাইপ(Skype)


ঠিকানা


ইচ্ছা/আগ্রহ/শখ

Found 10 results

  1. EURUSD মার্কেট আউটলুক ০৬ই অক্টোবর থেকে ১০ই অক্টোবর পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত তিন মাস ধরে একচেটিয়া সেলে ক্রমাগত ধাবিত হচ্ছে বিগত সপ্তাহেও তার ব্যতিক্রম হয়নি, বিগত সপ্তাহে পেয়ারটি ১৮০পিপ্স এর মত সেলে গিয়ে ১.২১১৫ মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে। বর্তমানে সবধরনের চার্টে পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসের দিকে ফলো করে ধারনা করা যে পেয়ারটি এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে তবে সেটা বেশীরভাগ নির্ভর করবে উভয় কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট এর উপর যেহেতু এ সপ্তাহে পেয়ারটির উভয় কারেন্সিতে শুধুমাত্র তিনটি নিউজ রয়েছে, তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বলা যায়, পেয়ারটি এ সপ্তাহে বাই এ কিছুটা কারেকশন করে আবার সেল এর দিকেই ধাবিত হবে যদি পেয়ারটির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট USD কারেন্সির ফেবার এ থাকে। তবে আমার মতে এ সপ্তাহে নিউজ এর দিন পেয়ারটি হুট করে যে কোনো দিকে বিশাল একটা মুবমেন্ট ঘটাতে পারে। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.২৪৪৩ ও ১.২৩৩৬ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.২৬২৫ ও ১.২৭৪৫। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.২৬৬০-১.২৭৪৫ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.২৪৯৬ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.২৪০০-১.২৩৪০ পর্যন্ত যেতে পারে। যদি উক্ত পেয়ারটির বিগত বছরগুলোর সাপোর্টমুল্য বিবেচনা করেন তাহলে পেয়ারটি সেলে যাওয়াটা টেকনিক্যালি স্বাভাবিক। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.২৫৬৩। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.২৫৬৬, ১.২৬২৪, ১.২৬৬০, ১.২৭০০, ১.২৭৪৫ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.২৯১০। সাপোর্ট সমুহঃ ১.২৪৯৬, ১.২৪৪৩, ১.২৪০৭, ১.২৩৩৬, ১.২২৮৫ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.২২৪০। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ০৬ই অক্টোবর সোমবার – মার্কেট ওপেনের প্রথম দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। ০৭ই অক্টোবর মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনেও পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। ০৮ই অক্টোবর বুধবার – সপ্তাহের এ দিনটিতেও পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্টের কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। ০৯ই অক্টোবর বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনটিতে পেয়ারটির মেজর কারেন্সি USD তে দুটি ও EUR কারেন্সিতে ১টি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ রয়েছে এবং এ তিনটি নিউজই উক্ত পেয়ারটির এ সপ্তাহের নিউজ, এছাড়া এ সপ্তাহে পেয়ারটিতে আর কোনো হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ নেই, তাই এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল হয়ে উঠবে কারণ এ দিন USD এর FOMC Meeting Minutes ও EUR এর ECB President Draghi Speaks দুটি রয়েছে তাই এ সপ্তাহের এ দিনে পেয়ারটি যে কোনো দিকে বিশাল মুবমেন্ট ঘটাতে পারে। তাই এ দিন উক্ত পেয়ারটিতে নিউজ বুঝে সাবধানে ট্রেড করুন। রাত ১২.০০মিনিট USD FOMC Meeting Minutes সন্ধ্যা ৬.০০মিনিট USD Unemployment Claims রাত ৯.০০মিনিট EUR ECB President Draghi Speaks ১০ই অক্টোবর শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্টের কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। বন্ধুরা, উপরোক্ত নিউজগুলো দেখেই এতক্ষণে বুঝতে পারছেন যে, এ সপ্তাহে পেয়ারটি উভয় কারেন্সিতে শুধুমাত্র তিনটি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ রয়েছে, তাই আশা করি এ সপ্তাহে পেয়ারটির মার্কেট নিউজ পাবলিশ এর দিন ছাড়া অন্য দিনগুলোতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসমতে চলবে, এবং উক্ত নিউজগুলো পাবলিশ এর দিন পেয়ারটি যেকোনো দিকে ভালো একটি মুবমেন্ট ঘটাবে। তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটিতে ট্রেড করার জন্য টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস এর উপর গুরুত্ব দিন শুধুমাত্র নিউজ পাবলিশ এর দিন নিউজ ফলো করুন। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ সাধারন নিয়মে পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.২৫৬৬ ক্রস করলে বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.২৫১০ আর টেক প্রফিট দিন ৭০-১০০ পিপ্স এবং পেয়ারটির মার্কেট মুল্য যদি প্রথম সাপোর্ট ১.২৪৯৬ ক্রস করে তাহলে সেল ট্রেড করুন আর এক্ষেত্রে টেক প্রফিট ৮০-১২০পিপ্স দিন এবং স্টপ লস দিন ১.২৫৬৫। আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি বাই এ যায় তাহলে ১.২৬০০-১.২৬৩০ এর মধ্যে সেল ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.২৬৭০ এবং টেক প্রফিট দিন ৭০-৯০পিপ্স। আর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য যদি সেল এ যায় তাহলে ১.২৪১০-১.২৩৮০ এর মধ্যে বাই ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.২৩৫০ এবং টেক প্রফিট দিন ৮০-১১০পিপ্স। উপরোক্ত ট্রেডগুলোর টেক প্রফিট ও স্টপলস আপনি চাইলে আপনার মত করে দিতে পারেন। তবে স্টপলস এর ক্ষেত্রে অবশ্যই সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্স দেখে দিন। উপরোক্ত যে কোনো অর্ডার মেক করার পর যদি দেখেন যে আপনার ট্রেড প্রফিটে আছে কিন্তু নিউজ আপনার ট্রেড এর বিপরীতে তাহলে ঐই ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেড এ উপস্থিত না থাকলে একটির বেশী পেন্ডিং অর্ডার দিবেন না। যদি আপনার একটি অর্ডার নিয়ে নেয় তাহলে সে অর্ডারটি ক্লোজ না করে আরেকটি অর্ডার দিবেন না। বিশেষ করে বাই সেল করে ট্রেড লক করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে এজন্য উভয় কারেন্সির নিউজগুলোর উপর অবশ্যই চোখ রাখবেন আর অবশ্যই ট্রেন্ড ফলো করবেন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আওয়ার এ দেখে ও বুঝে ট্রেড করবেন। এই এ্যনালাইসিস সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করলে ভালো, তবে ডেইলি ট্রেডাররা লট সাইজ আনুপাতিক হারে কমিয়ে করতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  2. EURUSD মার্কেট আউটলুক সেপ্টেম্বর ২২ থেকে ২৬ তারিখ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে বাই এ রিকবার না করে ১৭০পিপ্স এর মত সেলে গেইন করে ১.২৮২৮ মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে। আর এর একমাত্র কারন ছিল FOMC এর নিউজগুলো। যারা বুমেরাং ট্রেড না করে সাপোর্ট রেসিসিটেন্স, ট্রেন্ড এবং নিউজ ফলো করে ট্রেড করেছেন আশা করি তারা ভালোই প্রফিট করেছেন আর যারা এই মনে করে ট্রেডে এন্ট্রি দিয়েছেন যে মার্কেট আর কত সেল এ যাবে, এ ধরনের ট্রেডারের ধারণা বেশীরভাগ সময়ই ভুল হয়ে থাকে কারন ফরেক্স মার্কেট এ হাই ইম্প্যাক্ট নিউজ আওয়ারে ডেইলি ট্রেডারদের জন্য প্রাইচ এ্যকশনের মুল্যায়ন সব সময় সঠিক হয় না, আর মার্কেট মূল্য বা প্রাইচ এ্যকশন লং টাইম ট্রেডারদের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য যারা প্রাইচ এ্যকশন এর মাধ্যমে একটি ট্রেড করে কাঙ্খিত লাভের জন্য সপ্তাহ, মাস অপেক্ষা করে থাকে। যাইহোক, বর্তমানে আপনি যে টাইম ফ্রেমেই পেয়ারটিকে দেখেন না কেন, দেখবেন যে সবধরনের চার্টে পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে, তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসের দিকে ফলো করে বলা যায় যে পেয়ারটি এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে, তবে সেটা বেশীরভাগ নির্ভর করবে পেয়ারটির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট এর উপর যেহেতু এ সপ্তাহে EUR কারেন্সিরও হাই ইমপ্যাক্ট এর কয়েকটি নিউজ রয়েছে, তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটি বাই এ যাওয়ার জন্য/কারেকশন করার জন্য উক্ত EUR এর নিউজগুলো কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারে। যেহেতু এ সপ্তাহে EUR কারেন্সির ECB President Draghi Speaks সহ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিউজ রয়েছে তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটির বাই/সেল ট্রেন্ড বেশীরভাগ নির্ভর করবে EUR এবং USD কারেন্সির New Home Sales ও Unemployment Claims নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.২৭৪৫ ও ১.২৬২০ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.২৮৯০ ও ১.৩১৭০। মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.২৯৬০-১.৩০৬০ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.২৭৯৫ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.২৭৪৫-১.২৬৫০ পর্যন্ত যেতে পারে। যদি উক্ত পেয়ারটির EUR কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহে পেয়ারটি বাই এ রিকবার করবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.২৮৯৩। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.২৮৪৮, ১.২৮৮৯, ১.২৯৫০, ১.২৯৯৪, ১.৩০৫৫ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩১৭০। সাপোর্ট সমুহঃ ১.২৭৯৫, ১.২৭৪৫, ১.২৭১৭, ১.২৬৯০, ১.২৬৬০ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.২৬২০। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ২২ই সেপ্টেম্বর সোমবার – মার্কেট ওপেনের প্রথম দিনে পেয়ারটির শুধুমাত্র EUR কারেন্সিতে ECB President Draghi Speaks নিউজটি রয়েছে, তাই এ দিন পেয়ারটিতে সাবধানে ট্রেড করুন, কারণ এ দিন পেয়ারটি যেকোনো দিকে ভালো একটি মুবমেন্ট হতে পারে। তবে নিউজের ফলাফল যাই হোক এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকবে। সন্ধ্যা ৭.০০মিনিট EUR ECB President Draghi Speaks ২৩ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনেও পেয়ারটির EUR কারেন্সিতে হাই ইম্প্যাক্টের দুটি নিউজ রয়েছে, এ দিন নিউজগুলো এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট পেয়ারটিকে ট্রেডেবল করে তুলবে আর যদি নিউজগুলো পজিটিভ হয় তাহলে বাই এ ভালো একটা মুবমেন্ট ঘটাবে। তাই এ দিন পেয়ারটিতে নিউজ দেখে সাবধানে ট্রেড করুন। দুপুর ১.০০মিনিট EUR French Flash Manufacturing PMI দুপুর ১.৩০মিনিট EUR German Flash Manufacturing PMI ২৪ই সেপ্টেম্বর বুধবার – সপ্তাহের এই দিনে পেয়ারটির দুটি কারেন্সিতেই হাই ইমপ্যাক্ট এর একটি করে নিউজ রয়েছে, নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট ভাল হলে এদিন পেয়ারটি ট্রেডেবল হয়ে উঠবে এবং ভালো স্ক্যাল্পিং করা যাবে। তবে এই দিন EUR থেকে USD এর নিউজটি বেশী ইফেক্টিভ হবে বলে মনে হয়। দুপুর ২.০০মিনিট EUR German Ifo Business Climate রাত ৮.০০মিনিট USD New Home Sales ২৫ই সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনটিতে শুধুমাত্র পেয়ারটির USD কারেন্সিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কিছু নিউজ রয়েছে। তাই এই দিন পেয়ারটি অবশ্যই ট্রেডেবল থাকবে এবং এ দিন যদি USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট ভালো আসে তাহলে পেয়ারটি এ দিন নিশ্চিত সেলে থাকবে। তাই এ দিন পেয়ারটিতে নিউজ বুঝে ট্রেড করুন। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Core Durable Goods Orders m/m সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Durable Goods Orders m/m সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims ২৬ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন উক্ত পেয়ারে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। বন্ধুরা, উপরোক্ত নিউজগুলো দেখেই এতক্ষণে বুঝতে পারছেন যে, এ সপ্তাহে পেয়ারটি EUR কারেন্সির কয়েকটি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আছে অপরদিকে USD কারেন্সিতেও এ সপ্তাহে কয়েকটি নিউজ রয়েছে,তবে নিউজগুলোর মধ্যে হাইলাইটেড হল, EUR এর ECB President Draghi Speaks, Manufacturing PMI এবং USD এর New Home Sales, Unemployment Claims. তাই আশা করি এ সপ্তাহে পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকবে। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ সাধারন নিয়মে পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.২৮৯০ ক্রস করলে বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.২৮২০ আর টেক প্রফিট দিন ১০০-১৫০ পিপ্স এবং পেয়ারটির মার্কেট মুল্য যদি প্রথম সাপোর্ট ১.২৭৯৫ ক্রস করে তাহলে সেল ট্রেড করুন আর এক্ষেত্রে টেক প্রফিট ৮০-১৩০পিপ্স দিন এবং স্টপ লস দিন ১.২৮৬৫। আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি সেল এ যায় তাহলে ১.২৭০০-১.২৬৬০ এর মধ্যে বাই ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.২৬০৫ এবং টেক প্রফিট দিন ১৫০-২০০পিপ্স। আর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য যদি বাই এ যায় তাহলে ১.৩১২০-১.৩১৭০ এর মধ্যে সেল ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.৩২৩৫ এবং টেক প্রফিট দিন ১৫০-২০০পিপ্স। উপরোক্ত ট্রেডগুলোর টেক প্রফিট ও স্টপলস আপনি চাইলে আপনার মত করে দিতে পারেন। তবে স্টপলস এর ক্ষেত্রে অবশ্যই সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্স দেখে দিন। উপরোক্ত যে কোনো অর্ডার মেক করার পর যদি দেখেন যে আপনার ট্রেড প্রফিটে আছে কিন্তু নিউজ আপনার ট্রেড এর বিপরীতে তাহলে ঐই ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেড এ উপস্থিত না থাকলে একটির বেশী পেন্ডিং অর্ডার দিবেন না। যদি আপনার একটি অর্ডার নিয়ে নেয় তাহলে সে অর্ডারটি ক্লোজ না করে আরেকটি অর্ডার দিবেন না। বিশেষ করে বাই সেল করে ট্রেড লক করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে এজন্য উভয় কারেন্সির নিউজগুলোর উপর অবশ্যই চোখ রাখবেন আর অবশ্যই ট্রেন্ড ফলো করবেন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আওয়ার এ দেখে ও বুঝে ট্রেড করবেন। এই এ্যনালাইসিস সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করলে ভালো, তবে ডেইলি ট্রেডাররা লট সাইজ আনুপাতিক হারে কমিয়ে করতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  3. EURUSD মার্কেট আউটলুক সেপ্টেম্বর ১৫ থেকে ১৯ তারিখ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে ১২০পিপ্স এর মত সেলে গিয়ে সপ্তাহের শেষের দিকে আবার বাই এ ফিরে এসে ১.২৯৬৪ মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে যা অনেক ট্রেডারকেই লসের সম্মুখীন করেছে। বর্তমানে সবধরনের চার্টে পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসের দিকে ফলো করে ধারনা করা যে পেয়ারটি এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে তবে সেটা বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট এর উপর যেহেতু এ সপ্তাহে EUR কারেন্সির হাই ইমপ্যাক্ট এর শুধুমাত্র একটি নিউজ রয়েছে, তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটি বাই এ যাওয়ার জন্য/কারেকশন করার জন্য উক্ত নিউজটি সহযোগিতা করতে পারে। যেহেতু এ সপ্তাহে USD কারেন্সির FOMC এর কয়েকটি নিউজ রয়েছে তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটির বাই/সেল ট্রেন্ড বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.২৮০৫ ও ১.২৭৫০ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩০৪০ ও ১.৩২৫০। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.৩০৪০-১.৩১৭৫ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.২৯২০ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.২৮৪০-১.২৭৫০ পর্যন্ত যেতে পারে। যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেলে-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.২৯২৪। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.২৯৮৭, ১.৩০৩৭, ১.৩০৯৫, ১.৩১৩২, ১.৩১৭৬ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩২৫০। সাপোর্ট সমুহঃ ১.২৯২০, ১.২৮৮২, ১.২৮৪০, ১.২৭৯৫, ১.২৭৫০ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.২৬৬০। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ১৫ই সেপ্টেম্বর সোমবার – মার্কেট ওপেনের প্রথম দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন উক্ত পেয়ারে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। ১৬ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনে EUR কারেন্সির এ সপ্তাহের একমাত্র হাই ইম্প্যাক্ট নিউজটি রয়েছে, তাছাড়া এ দিন USD কারেন্সিরও একমাত্র নিউজটি রয়েছে। তাই এ দিন পেয়ারটিতে ভাল মুবমেন্ট আশা করা যায়। দুপুর ৩.০০মিনিট EUR German ZEW Economic Sentiment সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD PPI m/m ১৭ই সেপ্টেম্বর বুধবার – সপ্তাহের এই দিনে USD কারেন্সিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর একটি নিউজ রয়েছে, নিউজটির এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট ভাল হলে এদিন পেয়ারটি ট্রেডেবল হয়ে উঠবে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Core CPI m/m ১৮ই সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনটিতে উক্ত পেয়ারের মেজর কারেন্সি USD তে হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ এর সংখ্যা সবছেয়ে বেশী। তাই এই দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা খুবই বেশী এবং এ দিন পেয়ারটি ভালো একটা মুবমেন্ট ঘটাতে পারে। তাই এ দিন পেয়ারটিতে নিউজ বুঝে ট্রেড করুন। রাত ১২.০০মিনিট USD FOMC Economic Projections রাত ১২.০০মিনিট USD FOMC Statement রাত ১২.০০মিনিট USD Federal Funds Rate রাত ১২.৩০মিনিট USD FOMC Press Conference সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Building Permits সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims সন্ধ্যা ৬.৪৫মিনিট USD Fed Chair Yellen Speaks রাত ৮.০০মিনিট USD Philly Fed Manufacturing Index ১৯ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন উক্ত পেয়ারে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করে ট্রেড করুন। বন্ধুরা, উপরোক্ত নিউজগুলো দেখেই এতক্ষণে বুঝতে পারছেন যে, এ সপ্তাহে পেয়ারটি EUR কারেন্সিতে একটিমাত্র হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আছে অপরদিকে USD কারেন্সিতে এ সপ্তাহে নিউজের ছড়াছড়ি, তাই আশা করি এ সপ্তাহে পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকবে। তবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট যদি ভালো হয় তাহলে আমার মনে হয় পেয়ারটি এ সপ্তাহেও তার ট্রেন্ড সেলে-ই ধরে রাখবে এবং ১০০-২০০ পিপ্স মুবমেন্ট ঘটাবে। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ সাধারন নিয়মে পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩০০০ ক্রস করলে ১.৩০১৫ এ বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.২৯২০ আর টেক প্রফিট দিন ১০০-১৫০ পিপ্স এবং পেয়ারটির মার্কেট মুল্য যদি প্রথম সাপোর্ট ১.২৯২০ ক্রস করে তাহলে সেল ট্রেড করুন আর এক্ষেত্রে টেক প্রফিট ৮০-১২০পিপ্স দিন এবং স্টপ লস দিন ১.২৯৯০। আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি বাই এ যায় তাহলে ১.৩১২০-১.৩১৫০ এর মধ্যে সেল ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.৩১৭৫ এবং টেক প্রফিট দিন ৭০-৯০পিপ্স। আর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য যদি সেল এ যায় তাহলে ১.২৮০০-১.২৮৩০ এর মধ্যে বাই ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.২৭৫০ এবং টেক প্রফিট দিন ৭০-১১০পিপ্স। উপরোক্ত ট্রেডগুলোর টেক প্রফিট ও স্টপলস আপনি চাইলে আপনার মত করে দিতে পারেন। তবে স্টপলস এর ক্ষেত্রে অবশ্যই সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্স দেখে দিন। উপরোক্ত যে কোনো অর্ডার মেক করার পর যদি দেখেন যে আপনার ট্রেড প্রফিটে আছে কিন্তু নিউজ আপনার ট্রেড এর বিপরীতে তাহলে ঐই ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেড এ উপস্থিত না থাকলে একটির বেশী পেন্ডিং অর্ডার দিবেন না। যদি আপনার একটি অর্ডার নিয়ে নেয় তাহলে সে অর্ডারটি ক্লোজ না করে আরেকটি অর্ডার দিবেন না। বিশেষ করে বাই সেল করে ট্রেড লক করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে এজন্য USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর অবশ্যই চোখ রাখবেন আর অবশ্যই ট্রেন্ড ফলো করবেন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আওয়ার এ দেখে ও বুঝে ট্রেড করবেন। এই এ্যনালাইসিস সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করলে ভালো, তবে ডেইলি ট্রেডাররা লট সাইজ আনুপাতিক হারে কমিয়ে করতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  4. EURUSD মার্কেট আউটলুক সেপ্টেম্বর ০৮ থেকে ১২ তারিখ পর্যন্ত। বন্ধুরা, ECB এর নিউজটি পাবলিশ এর পর পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে নাটকীয়ভাবে নামতে থাকে যা অনেক ট্রেডারকেই বিপদের সম্মুখীন করেছে আবার অনেকে অধিক প্রফিট নিয়ে আনন্দে হয়তো সারা রাত ঘুমাতে পারেননি। পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে মোট ২৪০পিপ্স এর মত সেল এ গেইন করে এবং ১.২৯৫০ এ সেল মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে। বর্তমানে সবধরনের চার্টে পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসের দিকে ফলো করে ধারনা করা যে পেয়ারটি এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে তবে সেটা বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট এর উপর যেহেতু এ সপ্তাহে EUR কারেন্সির হাই ইমপ্যাক্ট কোনো নিউজ নেই, তবে EUR কারেন্সির মিডিয়াম ইমপ্যাক্ট এর দু-একটি নিউজ এ সপ্তাহে পেয়ারটি বাই এ যাওয়ার জন্য/কারেকশন করার জন্য সহযোগিতা করতে পারে যেমন, Trade balance figures, and industrial output numbers। তবে এ সপ্তাহের বাই/সেল ট্রেন্ড বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.২৮০৫ ও ১.২৭৫০ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩০৪০ ও ১.৩১৭৬। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.২৯৯০-১.৩১৭৫ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.২৯২০ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.২৮৪০-১.২৭৫০ পর্যন্ত যেতে পারে। যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেলে-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.৩০০৬। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.২৯৮৭, ১.৩০৩৭, ১.৩০৯৫, ১.৩১৩২ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩১৭৬। সাপোর্ট সমুহঃ ১.২৯২০, ১.২৮৮০, ১.২৮৪০, ১.২৮০৪, ১.২৭৫০ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.২৬৬০। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ০৮ই সেপ্টেম্বর সোমবার – মার্কেট ওপেনের এই দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বুঝে ট্রেড করুন। ০৯ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনেও পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বুঝে ট্রেড করুন। ১০ই সেপ্টেম্বর বুধবার – এ দিনও পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বুঝে ট্রেড করুন। ১১ই সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার – এ মার্কেট ওপেনের চতুর্থ দিনে পেয়ারটির USD কারেন্সিতে একটিমাত্র নিউজ রয়েছে যা পেয়ারটির মার্কেটের মুবমেন্ট কিছুটা পরিবর্তন করতে পারে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims ১২ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সিতে কয়েকটি নিউজ রয়েছে। তাই এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকবে আর যদি USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট ভাল হয় তাহলে পেয়ারটির ট্রেন্ড এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে। তাই মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে নিউজ বুঝে পেয়ারটিতে সাবধানে ট্রেড করুন। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Core Retail Sales m/m সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Retail Sales m/m সন্ধ্যা ৭.৫৫মিনিট USD Prelim UoM Consumer Sentiment বন্ধুরা, উপরোক্ত নিউজগুলো দেখেই এতক্ষণে বুঝতে পারছেন যে, এ সপ্তাহে পেয়ারটি EUR কারেন্সিতে কোনো হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ নেই এবং অপর কারেন্সি USD তে ও Unemployment Claims নিউজটি ছাড়া তেমন ভাল কোনো নিউজ নেই তাই এ সপ্তাহটি পেয়ারটিতে মুবমেন্ট কম হতে পারে। তবে আমার মনে হয় পেয়ারটি এ সপ্তাহেও তার ট্রেন্ড সেলে-ই ধরে রাখবে। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ সাধারন নিয়মে পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.২৯৫৫ ক্রস করলে ১.২৯৭০ এ বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.২৯৩৫ আর টেক প্রফিট দিন ৫০-৮০ পিপ্স এবং পেয়ারটির মার্কেট মুল্য যদি প্রথম সাপোর্ট ১.২৯২০ ক্রস করে তাহলে সেল ট্রেড করুন আর এক্ষেত্রে টেক প্রফিট ৬০-৮০পিপ্স দিন এবং স্টপ লস দিন ১.২৯৬৫। আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি বাই এ যায় তাহলে ১.৩০৪০-১.৩০৬০ এর মধ্যে সেল ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.৩০৯০ এবং টেক প্রফিট দিন ৫০-৭০পিপ্স। আর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য যদি সেল এ যায় তাহলে ১.২৮০০-১.২৮৪০ এর মধ্যে বাই ট্রেড করুন এক্ষেত্রে স্টপ লস দিন ১.২৮৮০ এবং টেক প্রফিট দিন ৭০-১১০পিপ্স। উপরোক্ত ট্রেডগুলোর টেক প্রফিট ও স্টপলস আপনি চাইলে আপনার মত করে দিতে পারেন। তবে স্টপলস এর ক্ষেত্রে অবশ্যই সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্স দেখে দিন। উপরোক্ত যে কোনো অর্ডার মেক করার পর যদি দেখেন যে আপনার ট্রেড প্রফিটে আছে কিন্তু নিউজ আপনার ট্রেড এর বিপরীতে তাহলে ঐই ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেড এ উপস্থিত না থাকলে একটির বেশী পেন্ডিং অর্ডার দিবেন না। যদি আপনার একটি অর্ডার নিয়ে নেয় তাহলে সে অর্ডারটি ক্লোজ না করে আরেকটি অর্ডার দিবেন না। বিশেষ করে বাই সেল করে ট্রেড লক করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে এজন্য অবশ্যই ট্রেন্ড এবং নিউজ ফলো করবেন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আওয়ার এ দেখে ও বুঝে ট্রেড করবেন। এই এ্যনালাইসিস সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করলে ভালো, তবে ডেইলি ট্রেডাররা লট সাইজ আনুপাতিক হারে কমিয়ে করতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  5. EURUSD মার্কেট আউটলুক সেপ্টেম্বর ০১ থেকে ০৫ তারিখ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে উইন্ডো গ্যাপ দিয়ে ৯০পিপ্স এর মত সেল এ গেইন করে এবং ১.৩১৩১ এ সেল মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে। বর্তমানে ৪ঘন্টা, দৈনিক ও সাপ্তাহিক চার্টে পেয়ারটি এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসের দিকে ফলো করে ধারনা করা যে পেয়ারটি এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে তবে সেটা বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট এর উপর অপরদিকে পেয়ারটি এ সপ্তাহে বাই এ যাওয়ার জন্য EUR কারেন্সির Minimum Bid Rate, ECB Press Conference নিউজদুটির উপর। এ সপ্তাহে USD কারেন্সিতে অনেকগুলো হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ রয়েছে। তাই এ সপ্তাহের বাই/সেল ট্রেন্ড বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.৩০৯৮ ও ১.২৯৯৬ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩২২০ ও ১.৩৩৪৩। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.৩১৭৫-১.৩২৫৫ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.৩১২৮ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.৩১০০-১.৩০০০ পর্যন্ত যেতে পারে। যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেলে-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.৩১৮৮। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.৩১৫৪, ১.৩১৯১, ১.৩২২১, ১.৩২৫৫, ১.৩২৯৮ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩৩৪৩। সাপোর্ট সমুহঃ ১.৩১২৮, ১.৩০৯৮, ১.৩০৫৮, ১.২৯৯৮, ১.২৯৫৪ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.২৯০৪। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ০১লা সেপ্টেম্বর সোমবার – মার্কেট ওপেনের এই দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বুঝে ট্রেড করুন। ০২রা সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনে পেয়ারটির USD কারেন্সিতে একটি নিউজ রয়েছে। উক্ত কারেন্সির নিউজটির এ্যাকচুয়্যাল রিপোর্ট যদি ভাল হয় তাহলে এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল হবে। রাত ৮.০০মিনিট USD ISM Manufacturing PMI ০৩রা সেপ্টেম্বর বুধবার – মার্কেট ওপেনের তৃতীয় দিনেও পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বুঝে ট্রেড করুন। ০৪ঠা সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার – এ সপ্তাহের এই দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর নিউজ সংখ্যা সবচেয়ে বেশী। আর EUR কারেন্সির এ সপ্তাহের নিউজগুলো এ দিন প্রকাশিত হবে, তাই এই দিন মেজর পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা খুবই বেশী। তাই এ দিন নিউজ দেখে পেয়ারটিতে সাবধানে বুঝে ট্রেড করুন। বিকাল ৫.৪৫মিনিট EUR Minimum Bid Rate সন্ধ্যা ৬.১৫মিনিট USD ADP Non-Farm Employment Change সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট EUR ECB Press Conference সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Trade Balance সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims রাত ৮.০০মিনিট USD ISM Non-Manufacturing PMI ০৫ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে শুধুমাত্র USD কারেন্সির নিউজ রয়েছে। তাই এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকাটা স্বাভাবিক এবং যদি উক্ত নিউজগুলো পজিটিভ হয় তাহলে পেয়ারটি এ দিন সেল ট্রেন্ড এ থাকবে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Non-Farm Employment Change সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Rate রাত ৮.০০মিনিট USD Ivey PMI এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ (১) পেয়ারটির মার্কেট মূল্য প্রথম রেসিস্টেন্স ১.৩১৫৪ ক্রস করলে বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.৩১২০ আর টেক প্রফিট দিন ৬০-৯০ পিপ্স। (২) আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি সেল এ থাকে তাহলে ১.৩১২০ মুল্যে আসলে সেল ট্রেড এ এন্ট্রি দিন আর স্টপ লস ১.৩২৭৮ এবং টেক প্রফিট দিন ৮০-১২০ পিপ্স। (৩) পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩২৪০ ক্রস করলে সেল ট্রেড করুন এবং স্টপ লস ১.৩২৮০ টেক প্রফিট ৭০-৯০পিপ্স দিন। (৪) পেয়ারটির মার্কেট মুল্য সেল এ থাকলে ১.৩০৪০-১.৩০০০ এর মধ্যে যে কোনো মুল্যে বাই ট্রেড এ এন্ট্রি নিন এ ক্ষেত্রে স্টপ লস ১.২৯৫০ আর টেক প্রফিট দিন ১৫০-২০০পিপ্স। উপরোক্ত ট্রেডগুলোর টেক প্রফিট ও স্টপলস আপনি চাইলে আপনার মত করে দিতে পারেন। তবে স্টপলস এর ক্ষেত্রে অবশ্যই সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্স দেখে দিন। উপরোক্ত যে কোনো অর্ডার মেক করার পর যদি দেখেন যে আপনার ট্রেড প্রফিটে আছে কিন্তু নিউজ আপনার ট্রেড এর বিপরীতে তাহলে ঐই ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেড এ উপস্থিত না থাকলে একটির বেশী পেন্ডিং অর্ডার দিবেন না। যদি আপনার একটি অর্ডার নিয়ে নেয় তাহলে সে অর্ডারটি ক্লোজ না করে আরেকটি অর্ডার দিবেন না। বিশেষ করে বাই সেল করে ট্রেড লক করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে এজন্য অবশ্যই ট্রেন্ড এবং নিউজ ফলো করবেন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আওয়ার এ দেখে ও বুঝে ট্রেড করবেন। এই এ্যনালাইসিস সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করলে ভালো, তবে ডেইলি ট্রেডাররা লট সাইজ আনুপাতিক হারে কমিয়ে করতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  6. EURUSD মার্কেট আউটলুক আগস্ট ২৫ থেকে আগস্ট ২৯ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে ১৮০পিপ্স এর মত সেল এ গেইন করে এবং ১.৩২৩৯ এ সেল মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে। বর্তমানে ৪ঘন্টা, দৈনিক ও সাপ্তাহিক চার্টে পেয়ারটি এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসের দিকে ফলো করে ধারনা করা যে পেয়ারটি এ সপ্তাহেও সেলে-ই থাকবে তবে সেটা বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল রিপোর্ট এর উপর অপরদিকে পেয়ারটি এ সপ্তাহে বাই এ যাওয়ার জন্য EUR কারেন্সির German Ifo Business Climate, German Prelim CPI m/m, CPI Flash Estimate y/y নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহে USD কারেন্সিতে কয়েকটি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ রয়েছে। তাই এ সপ্তাহের বাই/সেল ট্রেন্ড বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.৩১৭৩ ও ১.২৯৯০ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩৩২৫ ও ১.৩৫০২। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.৩৩২৫-১.৩৪৪০ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.৩২২১ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.৩১৪০-১.৩১০০ পর্যন্ত যেতে পারে। যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেলে-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.৩২৭০। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.৩২৮২, ১.৩৩২৫, ১.৩৩৭২, ১.৩৪১৩, ১.৩৪৪৬ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩৫৩৯। সাপোর্ট সমুহঃ ১.৩২২১, ১.৩১৭৪, ১.৩১৪০, ১.৩০৯৮, ১.৩০৫৮ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.২৯৯৬। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ২৫ই আগস্ট সোমবার – মার্কেট ওপেনের এই দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর দুটি নিউজ রয়েছে, তাই এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা বেশী। দুপুর ২.০০মিনিট EUR German Ifo Business Climate রাত ১২.০০মিনিট USD New Home Sales ২৬ই আগস্ট মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনে পেয়ারটির USD কারেন্সিতে দুটি নিউজ আছে। উক্ত কারেন্সির নিউজগুলোর এ্যাকচুয়্যাল রিপোর্ট যদি ভাল হয় তাহলে এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল হবে এবং সেলে থাকবে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Core Durable Goods Orders m/m রাত ৮.০০মিনিট USD CB Consumer Confidence ২৭ই আগস্ট বুধবার – সপ্তাহের এই দিনে পেয়ারটিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর কোনো নিউজ নেই, তাই এ দিন টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস দেখে বুঝে ট্রেড করুন। ২৮ই আগস্ট বৃহস্পতিবার – এ সপ্তাহের এই দিনটিতে হাই ইমপ্যাক্ট/ভোল্টেজ এর নিউজ সংখ্যা বেশী। তাছাড়া এ দিন USD এর নিউজগুলো মোটামুটি গুরুত্বপূর্ণ। তাই এদিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা খুবই বেশী আর এ দিন পেয়ারটিতে নিউজ দেখে সাবধানে বুঝে ট্রেড করুন। সারাদিন EUR German Prelim CPI m/m সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Prelim GDP q/q সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims রাত ৮.০০মিনিট USD Pending Home Sales m/m ২৯ই আগস্ট শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে পেয়ারটি শুধুমাত্র EUR কারেন্সির নিউজ রয়েছে। তাই এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকাটা স্বাভাবিক। দুপুর ৩.০০মিনিট EUR CPI Flash Estimate y/y এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ (১) মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য প্রথম রেসিস্টেন্স ১.৩২৮৫ ক্রস করলে বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.৩২৩০ আর টেক প্রফিট দিন ৫০-৮০ পিপ্স। (২) আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি সেল এ থাকে তাহলে ১.৩২২০ মুল্যে আসলে সেল ট্রেড এ এন্ট্রি দিন আর স্টপ লস ১.৩২৮৫ এবং টেক প্রফিট দিন ৭০-৯০ পিপ্স। (৩) পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩৩৭০ ক্রস করলে ১.৩৩৭০-১.৩৪০০ এর মধ্যে সেল ট্রেড করুন এবং স্টপ লস ১.৩৪৪৭ টেক প্রফিট ৮০-১১০পিপ্স দিন। (৪) পেয়ারটির মার্কেট মুল্য সেল এ থাকলে ১.৩১৫০-১.৩১০০ এর মধ্যে যে কোনো মুল্যে বাই ট্রেড এ এন্ট্রি নিন এ ক্ষেত্রে স্টপ লস ১.৩০৮৫ আর টেক প্রফিট দিন ৮০-১২০পিপ্স। যদি আপনার একটি ট্রেড মার্কেটে থাকে তাহলে ওই ট্রেডটি ক্লোজ না করে আরেকটি ট্রেড ওপেন করবেন না যদি করে থাকেন তাহলে ট্রেড ভলিউম কমিয়ে/মানি ম্যানেজমেন্ট করে করুন। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন। উপরোক্ত ট্রেডগুলোর টেক প্রফিট ও স্টপলস আপনি চাইলে আপনার মত করে দিতে পারেন। তবে স্টপলস এর ক্ষেত্রে অবশ্যই সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্স দেখে দিন। উপরোক্ত যে কোনো অর্ডার মেক করার পর যদি দেখেন যে আপনার ট্রেড প্রফিটে আছে কিন্তু নিউজ আপনার ট্রেড এর বিপরীতে তাহলে ঐই ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেড এ উপস্থিত না থাকলে একটির বেশী পেন্ডিং অর্ডার দিবেন না। যদি আপনার একটি অর্ডার নিয়ে নেয় তাহলে সে অর্ডারটি ক্লোজ না করে আরেকটি অর্ডার দিবেন না। বিশেষ করে বাই সেল করে ট্রেড লক করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে এজন্য অবশ্যই ট্রেন্ড এবং নিউজ ফলো করবেন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আওয়ার এ দেখে ও বুঝে ট্রেড করবেন। এই এ্যনালাইসিস সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করলে ভালো, তবে ডেইলি ট্রেডাররা লট সাইজ আনুপাতিক হারে কমিয়ে করতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  7. EURUSD মার্কেট আউটলুক আগস্ট ১১ থেকে আগস্ট ১৫ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে ১০০পিপ্স মুবমেন্ট হয় এবং ১.৩৩৩১ পর্যন্ত সেল এ গিয়ে আবার বাই মোড় নিয়ে ১.৩৪০৮ মুল্যে মার্কেট ক্লোজ করে এবং ৪ঘন্টা ও দৈনিক চার্টে পেয়ারটি এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট ক্লোজিং দিনে বাই এর দিকে মুব করেছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস অনুযায়ী পেয়ারটি ১.৩৪৪৫-১.৩৫০৫ পর্যন্ত বাই এ যেতে পারে এবং তারপর হয়তো পুরোপুরি সেল এ মোড় নিতে পারে। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সর্বনিম্ন সাপোর্ট হিসেবে ধরা যায় যথাক্রমে ১.৩৩০৬ ও ১.৩২০৪ এবং সরবোচ্চ রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩৫০৫ ও ১.৩৬৫০। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে এ সপ্তাহে বাই গেলে ১.৩৫০৫ পর্যন্ত এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.৩৩৬৪ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করলে ১.৩৩০৬-১.৩২০০ পর্যন্ত যেতে পারে, যদিও দৈনিক চার্টে পেয়ারটির ট্রেন্ড বর্তমানে ১.৩৪০৮ মুল্যে বাই এর দিকে তবে সেটা অতটা স্ট্রং নয়। তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটির ঊর্ধ্ব গতির ভাগ্য নির্ভর করবে EUR এর একমাত্র নিউজ German Prelim GDP q/q আর নিম্ন গতি USD এর যাবতীয় নিউজগুলোর উপর। যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেল এ-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.৩৩৬৩। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.৩৪২০, ১.৩৪৫৪, ১.৩৫০৫, ১.৩৫৫৫, ১.৩৫৯৭, ১.৩৬৫০ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩৭০৪। সাপোর্ট সমুহঃ ১.৩৪০০, ১.৩৩৬৪, ১.৩৩২৫, ১.৩২৯৫, ১.৩২৫৫ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.৩২০৪। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ১১ই আগস্ট সোমবার – মার্কেট ওপেনের এই দিনে উক্ত পেয়ারটির কোনো হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ নেই, তাই এ দিন পেয়ারটিতে ট্রেড করার জন্য শুধুমাত্র টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করুন। ১২ই আগস্ট মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনেও উক্ত পেয়ারটির কোনো হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ নেই, তাই এ দিনও পেয়ারটিতে ট্রেড করার জন্য শুধুমাত্র টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ফলো করুন। ১৩ই আগস্ট বুধবার – মার্কেট ওপেনের তৃতীয় দিনে পেয়ারটির USD কারেন্সিতে দুটি নিউজ আছে। এ দিন উক্ত নিউজ দুটি আশা করি পেয়ারটির মার্কেটকে ট্রেডেবল করে তুলবে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Core Retail Sales m/m সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Retail Sales m/m ১৪ই আগস্ট বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনটিতে EUR কারেন্সির একমাত্র নিউজটি আছে। তাছাড়া USD এর Unemployment Claims নিউজটিও এ দিনেই রিলিজ হবে, তাই এদিন পেয়ারটিতে বড় ধরনের মুবমেন্ট হতে পারে এবং পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা আছে। দুপুর ১২.০০মিনিট EUR German Prelim GDP q/q সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims ১৫ই আগস্ট শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে USD এর দুটি নিউজ রয়েছে, নিউজগুলোর এ্যাকচুয়্যাল রিপোর্ট ভাল হলে পেয়ারটি এ দিনও ট্রেডেবল থাকবে। তবে এ দিন EUR কারেন্সি এর French ও Italy এর ব্যাংক ছুটির দিন। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD PPI m/m সন্ধ্যা ৭.৫৫মিনিট USD Prelim UoM Consumer Sentiment এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ (১) মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য প্রথম রেসিস্টেন্স ১.৩৪২০ ক্রস করলে বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.৩৩৭৫ আর টেক প্রফিট দিন ৫০-৮০ পিপ্স। (২) পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩৪৮০ ক্রস করলে সেল ট্রেড করুন এবং স্টপ লস ১.৩৫২৫ টেক প্রফিট ৮০-১৩০পিপ্স দিন। (৩) আর যদি মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটি সেল এ থাকে তাহলে ১.৩৩৬০ তে আসলে সেল ট্রেড এ এন্ট্রি দিন, এ ক্ষেত্রে স্টপ লস ১.৩৪২০ এবং টেক প্রফিট দিন ৬০-৯০ পিপ্স। (৪) পেয়ারটির মার্কেট মুল্য সেল এ থাকলে ১.৩৩৪০ এর নিচে যে কোনো মুল্যের মধ্যে বাই ট্রেড এ এন্ট্রি নিন এ ক্ষেত্রে স্টপ লস ১.৩২৯০ আর টেক প্রফিট দিন ১০০-১২০পিপ্স, এ ট্রেডটিতে এন্ট্রি নিলে এর টেক প্রফিট এ সপ্তাহে হিট নাও করতে পারে, তাই উক্ত ট্রেড এর পূর্ণ টেক প্রফিট নিতে হলে আগামী সপ্তাহ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন বা এ্যনালাইসিস করে নিজে সিদ্ধান্ত নিন। যদি আপনার একটি ট্রেড মার্কেটে থাকে তাহলে ওই ট্রেডটি ক্লোজ না করে আরেকটি ট্রেড ওপেন করবেন না যদি করে থাকেন তাহলে ট্রেড ভলিউম কমিয়ে/মানি ম্যানেজমেন্ট করে করুন। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  8. EURUSD মার্কেট আউটলুক আগস্ট ০৪ থেকে আগস্ট ০৮ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট বিগত সপ্তাহে ১.৩৩৬৫ পর্যন্ত সেল এ গিয়ে ১.৩৪২৮ মুল্যে ক্লোজ করে এবং দৈনিক চার্টে পেয়ারটি এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে আর ৪ঘন্টার চার্টে বাই। যেহেতু পেয়ারটির মার্কেট চার ঘন্টার চার্টে বর্তমানে বাই এ আছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস অনুযায়ী পেয়ারটি আরো ৫০-৭০ পিপ্স বাই এ যেতে পারে এবং তারপর পুরোপুরি সেল এ মোড় নিতে পারে। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সাপোর্ট ধরা যায় ১.৩৩২৫ ও ১.৩২৯৫ এবং রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩৫০৫ ও ১.৩৬৫০। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে বাই এ মোড় নেওয়ার জন্য ১.৩৫৫০ রেসিস্টেন্স এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.৩৩৬৫ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করতে হবে, যদিও দৈনিক চার্টে পেয়ারটির ট্রেন্ড বর্তমানে ১.৩৪২৮ মুল্যে সেল এর দিকে তবে সেটা অতটা স্ট্রং নয়। তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটির ঊর্ধ্ব বা নিম্ন গতির ভাগ্য নির্ভর করবে EUR এর ECB Press Conference এবং USD এর যাবতীয় নিউজগুলোর উপর আর যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেল এ-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে নিউজের এ্যকচুয়্যাল রিপোর্টের উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমূহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। পিভট পয়েন্টঃ ১.৩৩৮৭। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.৩৪৪৩, ১.৩৫০৫, ১.৩৫৪৮, ১.৩৫৮৬, ১.৩৬৫০ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩৭৫০। সাপোর্ট সমুহঃ ১.৩৩৯৯, ১.৩৩৬৫, ১.৩৩২৫, ১.৩২৯৫, ১.৩২৫৫ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.৩২০৫। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ৪ঠা আগস্ট সোমবার – মার্কেট ওপেনের প্রথম দিনে পেয়ারটির জন্য কোনো হাই ইম্প্যাক্ট নিউজ নেই, তাই এ দিন পেয়ারটিতে ট্রেড করার জন্য টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস অনুসরণ করুন। ৫ই আগস্ট মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনে উক্ত পেয়ারের USD এর একামাত্র নিউজটির ফলাফল ভালো হলে পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকবে নতুবা এ দিনও পেয়ারটিতে ট্রেড করার জন্য টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস অনুসরণ করুন। রাত ৮.০০মিনিট USD ISM Non-Manufacturing PMI ৬ই আগস্ট বুধবার – এ দিনও উক্ত পেয়ারের USD কারেন্সিতে একটিমাত্র নিউজ রয়েছে। তাই এ দিনও নিউজটির ফলাফলের উপর পেয়ারটির মুবমেন্ট নির্ভরশীল করবে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Trade Balance ৭ই আগস্ট বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনে পেয়ারটিতে ঊর্ধ্বগতি/নিম্নগতির সরবোচ্চ মুবমেন্ট সংঘটিত হতে পারে, কারন এ দিন EUR এর এ সপ্তাহের নিউজ দুটি রয়েছে এবং তার পাশাপাশি USD কারেন্সিতেও একটি নিউজ রয়েছে। তবে এ দিন সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট এ EUR এর ECB Press Conference নিউজটি পেয়ারটিকে যেকোনো দিকে নিতে পারে। তাই এ দিন সবাই উক্ত পেয়ারটিতে সাবধানে ট্রেড করবেন। বিকাল ৫.৪৫মিনিট EUR Minimum Bid Rate সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট EUR ECB Press Conference সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims ৮ই আগস্ট শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনটিতে উক্ত পেয়ারের কোনো কারেন্সিতে কোনো নিউজ নেই তাই এ দিন পেয়ারটিতে ট্রেড করতে চাইলে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস অনুসরণ করুন। যেহেতু এ সপ্তাহে পেয়ারটিতে EUR এর ECB Press Conference এবং USD এর বেশ কয়েকটি হাই ইম্প্যাক্ট নিউজ রয়েছে তাই নিঃস্বন্ধেহে বলা যায় যে, পেয়ারটি এ সপ্তাহে ট্রেডেবল থাকবে, তবে মুবমেন্ট কোন দিকে হবে সেটা নির্ভর করবে EUR এর ECB Press Conference এর উপর। তবে। যাইহোক এ সপ্তাহে পেয়ারটির ভাগ্য বেশীরভাগ নির্ভর করবে EUR এর ECB Press Conference এর উপর। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ (১)মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য প্রথম রেসিস্টেন্স ১.৩৪৪৩ ক্রস করলে বাই ট্রেড করুন স্টপ লস ১.৩৪১০ আর টেক প্রফিট দিন ৫০-৭০ পিপ্স। (২) পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩৩৬৫ ক্রস করলে সেল ট্রেড করুন এবং স্টপ লস ১.৩৪১৫ টেক প্রফিট ৮০-১৩০পিপ্স দিন। (৩) ১.৩৫০০-১.৩৫২৫ এর মধ্যে সেল ট্রেড এ এন্ট্রি দিন, এ ক্ষেত্রে স্টপ লস ১.৩৫৫৫ এবং টেক প্রফিট দিন ৭০-১৫০ পিপ্স। যদি আপনার একটি ট্রেড মার্কেটে থাকে তাহলে ওই ট্রেডটি ক্লোজ না করে আরেকটি ট্রেড ওপেন করবেন না যদি করে থাকেন তাহলে ট্রেড ভলিউম কমিয়ে/মানি ম্যানেজমেন্ট করে করুন। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন, তবে বৃহস্পতি ও শুক্রবার ট্রেন্ড ও নিউজ দেখে স্ক্যাল্পিং করুন, না হয় আপনি লসের সম্মুখীন হতে পারেন ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  9. EURUSD মার্কেট আউটলুক জুলাই ২৮ থেকে আগস্ট ০১ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট গত সপ্তাহে ১.৩৪২৭ মুল্যে ক্লোজ করে এবং দৈনিক চার্টে এখনো সেল ইন্ডিকেট করছে। যেহেতু পেয়ারটি গত সপ্তাহের আগের সপ্তাহে তার দৈনিক চার্টের ১.৩৫০২ সাপোর্ট ক্রস করেছে এবং বর্তমানে বেশীরভাগ ইন্ডিকেটর ও পেয়ারটির মার্কেট ট্রেন্ড সেল দেখাচ্ছে, তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস ভিউ থেকে বলা যায় পেয়ারটি এ সপ্তাহে আরো সেলে যাবে। এ সপ্তাহের জন্য পেয়ারটির সাপোর্ট ধরা যায় ১.৩৩২৫ ও ১.৩২৯৫ এবং রেসিস্টেন্স হিসেবে ১.৩৪৯৪ ও ১.৩৫৮৬। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে বাই এ মোড় নেওয়ার জন্য ১.৩৫০২ রেসিস্টেন্স এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.৩৩৯৯ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করতে হবে, যদিও দৈনিক চার্টে পেয়ারটির ট্রেন্ড বর্তমানে ১.৩৫২৭ মুল্যে সেল এর দিকে তবে সেটা অতটা স্ট্রং নয়। তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটির ঊর্ধ্ব বা নিম্ন গতির ভাগ্য নির্ভর করবে EUR এর German Prelim CPI m/m, CPI Flash Estimate y/y এবং USD এর যাবতীয় নিউজগুলোর উপর আর যদি উক্ত পেয়ারটির USD কারেন্সির বেশীরভাগ নিউজ পজিটিভ হয় তাহলে এ সপ্তাহেও পেয়ারটি নিশ্চিত সেল এ-ই থাকবে। তবে সেটা অধিকাংশ নির্ভর করবে USD এর FOMC Statement নিউজটির উপর। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ পিভট পয়েন্টঃ ১.৩৪৩২ রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.৩৪৫০, ১.৩৪৯৪, ১.৩৫৪৮, ১.৩৫৮৬, ১.৩৬৫০ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩৭৩৮। সাপোর্ট সমুহঃ ১.৩৩৯৯, ১.৩৩৫৮, ১.৩৩২৫, ১.৩২৯৫, ১.৩২৫৫ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.৩২৩০। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ২৮ই জুলাই সোমবার – মার্কেট ওপেনের এই দিনে USD এর একটি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ ছাড়া তেমন কোনো নিউজ নেই। সুতারাং এ দিন উক্ত পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা আছে। তবে এ দিন সন্ধ্যার আগে বিশেষ করে USD এর নিউজটি পাবলিশ হওয়ার আগে উক্ত পেয়ারে ট্রেড করা থেকে বিরত থাকাই ভালো। রাত ৮.০০মিনিট USD Pending Home Sales m/m ২৯ই জুলাই মঙ্গলবার – মার্কেট ওপেনের দ্বিতীয় দিনেও শুধুমাত্র USD কারেন্সির একমাত্র নিউজটিই উক্ত পেয়ারের মার্কেট মুবমেন্টের একমাত্র ভরসা। রাত ৮.০০মিনিট USD Existing CB Consumer Confidence ৩০ই জুলাই বুধবার – এ দিন হয়তো এ পেয়ারটির মার্কেট ভালো মুবমেন্ট করতে পারে। কারণ এ দিন USD ও EUR দুটি কারেন্সিতে হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আছে। এতে EURUSD পেয়ারটি এ দিন ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা বেশী এবং এ দিন পেয়ারটির মার্কেটে ভালো স্ক্যাল্পিংও করা যেতে পারে। দুপুর ১২.০০মিনিট EUR German Prelim CPI m/m সন্ধ্যা ৬.১৫মিনিট USD ADP Non-Farm Employment Change সন্ধ্যা ৬.১৫মিনিট USD Advance GDP q/q ৩১ই জুলাই বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনটিতে পেয়ারটির দুটি কারেন্সিতেই হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আছে। তাই এ দিন পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকার সম্ভাবনা খুব বেশী। বিশেষ করে USD এর FOMC Statement নিউজটি যদি মার্কেট বান্ধব হয় তাহলে পেয়ারটি ভালো মুবমেন্ট ঘটাতে পারে। রাত ১২.০০মিনিট( AM) USD FOMC Statement দুপুর ৩.০০মিনিট EUR CPI Flash Estimate y/y সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims ০১লা আগস্ট শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে USD এর নিউজগুলো EURUSD পেয়ারটিকে চাঙ্গা করে তুলতে পারে, যেহেতু এ দিন EUR এর কোনো নিউজ নেই তাই USD কারেন্সির নিউজগুলো পজেটিভ হলে এ দিন পেয়ারটি সেল এ থাকাটা স্বাভাবিক। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Non-Farm Employment Change সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Rate রাত ৮.০০মিনিট USD ISM Manufacturing PMI যেহেতু এ সপ্তাহে পেয়ারটিতে EUR এর থেকে USD কারেন্সির নিউজের পরিমান বেশী এবং পেয়ারটির মার্কেট ট্রেন্ডও বর্তমানে সেল এ, তাহলে আমরা ন্যাচারেলি ধরে নিতে পারি যে উক্ত পেয়ারটির মার্কেট এ সপ্তাহে সেল এ থাকার সম্ভাবনা আছে, তবে সে জন্য USD কারেন্সির নিউজগুলো অবশ্যই পজিটিভ হতে হবে। যাইহোক এ সপ্তাহে পেয়ারটির ভাগ্য বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ (১)মার্কেট ওপেন হওয়ার পর পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩৪২০ এ আসলে সেল ট্রেড করুন স্টপ লস ১.৩৪৫২ আর টেক প্রফিট দিন ৫০-৮০ পিপ্স। (২) পেয়ারটির মার্কেট মূল্য ১.৩৪৭০-১.৩৪৯৫ এর মধ্যে সেল ট্রেড করুন এবং স্টপ লস ১.৩৫৩০ টেক প্রফিট ৮০-১৩০পিপ্স দিন। (৩) ১.৩৩৪০-১.৩৩৭০ এর মধ্যে বাই ট্রেড এ এন্ট্রি দিন, এ ক্ষেত্রে স্টপ লস ১.৩৩২০ এবং টেক প্রফিট দিন ৮০-১২০ পিপ্স। যদি আপনার একটি ট্রেড মার্কেটে থাকে তাহলে ওই ট্রেডটি ক্লোজ না করে আরেকটি ট্রেড ওপেন করবেন না যদি করে থাকেন তাহলে ট্রেড ভলিউম কমিয়ে/মানি ম্যানেজমেন্ট করে করুন। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা আশা করি পেয়ারটিতে এ সপ্তাহে ভালো করতে পারবেন তবে ট্রেন্ড ও নিউজ বান্ধব স্ক্যাল্পিং করুন, না হয় আপনি লসের সম্মুখীন হতে পারেন এবং এ সপ্তাহের ৩১ই জুলাই বৃহস্পতিবার রাত ১২.০০মিনিট( AM) USD এর FOMC Statement নিউটির উপর অবশ্যই নজর রাখবেন। আরেকটি কথা সবাই মনে রাখবেন, এ সপ্তাহে যেহেতু পবিত্র ঈদ-উল ফিতর তাই সবাই সাবধানে ট্রেড করবেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।
  10. EURUSD মার্কেট আউটলুক জুলাই ১৪ থেকে ১৮ পর্যন্ত। বন্ধুরা, পেয়ারটির মার্কেট গত সপ্তাহে খুব একটা ভাল মুবমেন্ট করেনি এবং অনেক টাইট পজিশন এ ১.৩৬০৬ মুল্যে পেয়ারটি মার্কেট ক্লোজ করে, এটা আপনারা সবাই দেখেছেন, কারন গত সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে নিউজের পরিমান যথেষ্ট কম ছিল আর যে নিউজগুলো ছিল সেগুলোর এ্যকচুয়্যলটাও ভাল না আসায় পেয়ারটি নিদ্দিষ্ট একটা গন্ডির মধ্যেই মুবমেন্ট করেছে। যার ফলে পেয়ারটির মার্কেট একচেটিয়া বাই বা সেল কোনো দিকেই যায়নি, তবে নিদ্দিষ্ট একটি গন্ডির মধ্যে থাকায় যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা হয়তো ভালো করেছেন কারন এ ধরণের মার্কেট পরিস্থিতিতে ভালো স্ক্যাল্পিং করা যায়, অপরদিকে যারা দৈনিক বা সাপ্তাহিক ট্রেড করে থাকেন তারা কোনো সুবিধা করতে পারেননি। যাইহোক, মার্কেট এ পরিস্থিতি থেকে বাই এ মোড় নেওয়ার জন্য ১.৩৬৫০ রেসিস্টেন্স এবং সেল এ যাওয়ার জন্য ১.৩৬০০ সাপোর্ট মুল্য ক্রস করতে হবে, যদিও দৈনিক চার্টে পেয়ারটির ট্রেন্ড বাই এর দিকে তবে সেটা অতটা স্ট্রং নয়। তাই এ সপ্তাহে পেয়ারটির ঊর্ধ্ব বা নিম্ন গতির ভাগ্য নির্ভর করবে EUR এর Industrial production, Draghi’s testimony, German ZEW Economic Sentiment and ZEW Economic Sentiment, inflation data ও USD সহ যাবতীয় নিউজগুলোর উপর। তাহলে এখন কি বলা যাবে যে পেয়ারটি বাই বা সেল মোড় নিবে? এটা অবশ্যই বলা মুশকিল, কারন ডে চার্ট দেখলে বুঝবেন যে পেয়ারটির মার্কেট এখন টাইট পজিশন এ আছে, এখান থেকে মার্কেট যেকোনো দিকে যাওয়ার পসিবিলিটি আছে। তাই আমি স্বাভাবিকভাবে বলবো মার্কেট ১.৩৫০০-১.৩৫৪০ এর কাছাকাছি আসলে লং টাইম ট্রেডাররা বাই করতে পারেন এবং মার্কেট ওপেন হয়ে কোনো গ্যাপ না দিলে সেল ট্রেড এ থাকুন। তবে সেল ট্রেড এর টেক প্রফিট দেখে ও বুঝে ১.৩৫০০ এর উপরে দিন। কারন পেয়ারটির মার্কেট এর নিচে না ও আসতে পারে। আপনাদের যাতে এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে ট্রেড করতে সুবিধা হয় সেজন্য চিত্রের সাহায্যে পেয়ারটির সাপোর্ট, রেসিস্টেন্স, মার্কেট ট্রেন্ড ও ট্রেড আইডিয়া শেয়ার করলাম। দৈনিক চার্টে মার্কেট ট্রেন্ডঃ সাপোর্ট রেসিসটেন্স ও ট্রেড আইডিয়া চিত্রঃ উপরোক্ত চিত্রেঃ সম্পূর্ণ চার্ট আয়ত্তে না আসায় সকল সাপোর্টসমুহ গ্রাফের সাহায্যে দেখানো সম্ভব হয়নি। রেসিসটেন্স সমুহঃ ১.৩৬১৪, ১.৩৬৫০, ১.৩৬৭৭, ১.৩৭২২, ১.৩৭৫৬, ১.৩৮৩২ ও স্ট্রং রেসিসটেন্স ১.৩৮৯৬। সাপোর্ট সমুহঃ ১.৩৫৮৫, ১.৩৫৪৭, ১.৩৫০২, ১.৩৪৪৯, ১.৩৪০৮ ও স্ট্রং সাপোর্ট ১.৩৩২৪। এ সপ্তাহে উক্ত পেয়ারটিতে হাই ইম্প্যাক্ট যে নিউজগুলো আছে তা নিম্নরুপঃ ১৪ই জুলাই সোমবার – মার্কেট ওপেন এর এই দিনে শুধুমাত্র EUR কারেন্সিতে একটি নিউজ আছে ECB President Draghi Speaks, এ নিউজটি পাবলিশ হওয়ার পর বেশীরভাগ সময় মার্কেট মুবমেন্ট বেশ ভালোভাবে চাঙ্গা হয়ে উঠে, অপরদিকে এ দিন EUR এর French Bank Holiday। রাত ১১.০০মিনিট EUR ECB President Draghi Speaks ১৫ই জুলাই মঙ্গলবার – নিচে আপনারা দেখতে পাচ্ছেন যে, এ দিনের হাই ইমপ্যাক্ট নিউজগুলোর মধ্যে EUR থেকে USD এর নিউজ সংখ্যাই বেশী, নিউজগুলো পাবলিশ হওয়ার পরই বলা যাবে এ দিন পেয়ারটি কোন দিকে থাকবে। দুপুর ৩.০০মিনিট EUR German ZEW Economic Sentiment সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Core Retail Sales m/m সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Retail Sales m/m রাত ৮.০০মিনিট USD Fed Chair Yellen Testifies ১৬ই জুলাই বুধবার – এ দিনও শুধুমাত্র মেজর কারেন্সি USD এর দুটি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আছে। তবে USD এর দুটি হাই ইমপ্যাক্ট নিউজ আছে। তবে USD এর নিউজগুলো যদি পজিটিভ হয় তাহলে বলা যায় যে, এ দিন মার্কেটে ভাল একটা মুবমেন্ট হতে পারে। বিশেষ করে EURUSD পেয়ারটির মার্কেট এ দিন চাঙ্গা থাকতে পারে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD PPI m/m রাত ৮.০০মিনিট USD Fed Chair Yellen Testifies ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার – সপ্তাহের এই দিনটিতে শুধুমাত্র USD কারেন্সিতে হাই ইমপ্যাক্ট এর তিনটি নিউজ আছে। যদি নিম্মোক্ত নিউজগুলোর এ্যকচুয়্যাল পজিটিভ হয় তাহলে নিশ্চিত করে বলা যায় যে, উক্ত পেয়ারটি এ দিন অবশ্যই ট্রেডেবল থাকবে এবং যেকোনো একদিকে ভালোভাবে মোড় নিতে পারে। সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Building Permits সন্ধ্যা ৬.৩০মিনিট USD Unemployment Claims রাত ৮.০০মিনিট USD Philly Fed Manufacturing Index ১৮ই জুলাই শুক্রবার – মার্কেট ক্লোজিং এর এ দিনে পেয়ারটির শুধুমাত্র USD কারেন্সির একটি হাই ইমপ্যাক্টের নিউজ আছে, USD কারেন্সির নিউজটি যদি অত্যাদিক পজিটিভ হয় এবং মার্কেট ক্লোজিং ডে হিসেবে আগের দিনের নিউজের রেশ থাকলে এ দিনও পেয়ারটি ট্রেডেবল থাকবে। রাত ৭.৫৫মিনিট USD Prelim UoM Consumer Sentiment যেহেতু এ সপ্তাহে পেয়ারটিতে EUR থেকে USD কারেন্সির নিউজের পরিমান অনেক বেশী তাহলে আমরা ন্যাচারেলি ধরে নিতে পারি যে উক্ত পেয়ারটির মার্কেট এ সপ্তাহে সেল এ থাকার সম্ভাবনা আছে, তবে সে জন্য USD কারেন্সির নিউজগুলো অবশ্যই পজিটিভ হতে হবে। যাইহোক এ সপ্তাহে পেয়ারটির ভাগ্য বেশীরভাগ নির্ভর করবে USD কারেন্সির নিউজগুলোর উপর। এ সপ্তাহে আপনি উক্ত পেয়ারটিতে যেভাবে ট্রেড করবেনঃ পেয়ারটির মার্কেট মূল্য প্রথম সাপোর্ট ক্রস করলে ১.৩৫৮০ তে সেল ট্রেড করুন আর দ্বিতীয় রেসিসটেন্স ক্রস করলে ১.৩৬৫৫ তে বাই ট্রেড করুন। সাপোর্ট রেসিসটেন্স দেখে স্টপলস দিন আর টেক প্রফিট ৭০-১১০পিপ্স দিন। আর যারা পেয়ারটিতে লং পজিশনে ট্রেড করতে চান তারা ১.৩৫৫০-১.৩৫১০ এ লং ট্রেড এন্ট্রি দিন স্টপ লস দিন ১.৩৪৯০ টেক প্রফিট দিন ১২০-১৫০ পিপ্স এবং যদি আপনার একটি ট্রেড মার্কেটে থাকে তাহলে ওই ট্রেডটি ক্লোজ না করে আরেকটি ট্রেড ওপেন করবেন না। আর যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা এ সপ্তাহের ট্রেন্ড বান্ধব স্ক্যাল্পিং করুন না হলে আপনি লসের সম্মুখীন হতে পারেন। ধন্যবাদ। বিঃ দ্রঃ ফরেন এক্সচেঞ্জ একটি হাই রিস্ক লেভেল ট্রেডিং মার্কেট যা সকল ইনভেস্টর বা ট্রেডারদের জন্য যথাযোগ্য নয়। কারেন্সি ট্রেডিং এ ট্রেডারদের ট্রেড এর যে কোনরূপ পরিবর্তন ট্রেডাররা নিজ দায়িত্বে বহন করবে। সে জন্য বিডিফরেক্সপ্রো কোনো প্রকার দায়ী থাকিবে না।