Jump to content

Bdforexpro - ফরেক্স সংক্রান্ত আলোচনা,ফরেক্স শিক্ষা, ফরেক্স ট্রেডিং এবং এনালাইসিসের উন্মক্ত এবং অনন্য স্থান। এই ফোরামে রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রী। পোস্ট এর পূর্বে অনুগ্রহ করে ফোরাম নিতিমালা গুলো পড়ে, বুঝে পোস্ট করুন। ধন্যবাদ;

Search the Community

Showing results for tags 'forex strategy'.

  • Search By Tags

    Type tags separated by commas.
  • Search By Author

Content Type


  • সাধারণ ফরেক্স সহায়তা
  • ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা, ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, নিউজ এবং সিগন্যাল সম্পর্কিত
    • নিউজ, সিগনাল ও এনালাইসিস
    • প্রশ্ন ও উত্তর
    • ট্রেডিং স্ট্রেটিজি
    • ফরেক্স স্টাডি
    • ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা
    • ট্রেডিং সফটওয়্যার - মেটাট্রেডার, সি-ট্রেডার, ওয়েবট্রেডার
    • ফোরাম ও পোর্টাল সহায়তা
    • ফরেক্স ব্রোকার
  • ফরেক্স ব্রোকার সম্পর্কিত
  • বিজ্ঞাপন
  • অফ-টপিক

Categories

  • সাধারণ ফরেক্স বই
  • টেকনিক্যাল এনালাইসিস
  • ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস
  • ক্যান্ডলেস্টিক এনালাইসিস
  • ইনডিকেটর

Find results in...

Find results that contain...


Date Created

  • Start

    End


Last Updated

  • Start

    End


Filter by number of...

Joined

  • Start

    End


Group


ওয়েবসাইট URL


ইয়াহু(Yahoo)


স্কাইপ(Skype)


মোবাইল নং


ঠিকানা


ইচ্ছা/আগ্রহ/শখ


ব্রোকার নেইম


ট্রেড অভিজ্ঞতা

Found 5 results

  1. ফরেক্স মার্কেটে নিয়মিত/অনিয়মিত ট্রেডিং যারা করে থাকেন তাদের নতুন করে বোঝাতে হবে না যে ব্রেকআউট কি, এবং এর গুরুত্ত কতটুকু। ট্রেডের হিসেবে আপনি যেমনই হউন না কেন ট্রেড ব্রেকআউটেই মুলত মুল প্রফিট নির্ভর করে তা নিশ্চয়ই জানেন। এবং এটাও সত্যি যে ফলস ব্রেকাউটে পড়ে গেলে কি পরিমান ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। সাধারনভাবে মার্কেট একটি শক্তিশালী এবং গুরুত্তপুর্ন সাপোর্ট/রেসিসটেন্স লেভেল থেকে ব্রেক হয়ে কয়েকটি ক্যান্ডেল এর পর পুনরায় যখন ব্যাক করে একই রেঞ্জে চলে আসে তখনই হয় একটি ফলস ব্রেকআউট। হর হামেশাই এটা ঘটে থাকে তাই এটিও ট্রেডের একটি অংশ। তাই আপনি চেষ্টা করবেন কিভাবে এই ধরনের ফলস ব্রেকআউট থেকে মুক্তি পেতে পারেন অর্থাৎ ফলস ব্রেকআউট এড়িয়ে চলতে পারেন, আপনাকে জানতে হবে ঠিক কখন এই ধরনের ফলস ব্রেকআউট ঘটে এবং এদের নেচার কি ইত্যাদি ইত্যাদি। যখন মার্কেটে বায়ার এবং সেলার এর মধ্য হিস্র একটি যুদ্ধ ঘটে অর্থাৎ বায়/সেল ফ্লো ঘটে থাকে তখন মার্কেট ট্রেন্ড একীভূত হয় যাকে আমরা থাকি। কিছু কিছু সময় বায়ার এবং সেলার ইচ্ছুক থাকে এবং অপেক্ষা করে একটি নির্দিষ্ট এবং গুরুত্ত পূর্ণ লেভেল ট্রেড নেওয়ার এবং দেখার যে কি পরিমান ট্রেডের নির্দিষ্ট একটি লেভেলে অবস্থান করছে বা করে। এর ভিত্তিতে দুটি ফলাফল আসে। ১। যখন অনেক ট্রেডার একটি শক্তিশালী অবস্থানে থাকে এবং তারা মার্কেট পুল ব্যাক করে আগের মার্কেট রেঞ্জে চলে আসে তখনি একটি ফলস ব্রেকআউট ঘটে। ২। আর যখন অনেক ট্রেডার নির্দিষ্ট কোন স্ট্রেন্থে থাকে না তখন মার্কেট একটি স্বাভাবিক গতিতে থেকে ব্রেকআউট করে আর ওটাই হয় একটি ভেলিড বা সঠিক ব্রেকআউট। তাই এখন প্রশ্ন হচ্ছে আপনি কখন জানবেন যে মার্কেটে একটি শক্তিশালী বায়ার/সেলার ফ্লো আছে এবং আপনি এই রকম ফলস ব্রেকআউট থেকে নিজের ট্রেডকে দূরে রাখবেন। হ্যাঁ , যখন আপনি দেখবেন মার্কেট ট্রেডার লম্বা একটি সময় ধরে একটি গুরুত্তপুর্ন লেভেলে অবস্থান করছে তখনি মার্কেটে বায়ার এবং সেলার স্ট্রেনথ তৈরি হয় আর ঠিক তখনি এই ধরনের ফলস ব্রেকআউট ঘটে।
  2. এনগাল্পিং (Engulfing) ট্রেড পদ্ধতি। বন্ধুরা, এনগাল্পিং ট্রেডিং পদ্ধতি সম্পর্কে আশা করি অনেকেই জানেন। হয়তো নিজের আর্তবিশ্বাস এবং এনগাল্পিং ট্রেডিং পদ্ধতি সম্পর্কে সঠিক জ্ঞানের অভাবে আপনার ট্রেডিং পেয়ার থেকে অধিক লাভ নিতে পারেন না/লসের সম্মুখীন হন। মার্কেট পরিস্থিতি কেমন হলে বুঝবেন যে এটা পুরোপুরি এনগাল্পিং হয়েছে এবং তখন কিভাবে কোনদিকে ট্রেড করবেন, স্টপ লস কিভাবে দিবেন আর কিভাবে ট্রেড থেকে সরবোচ্চ প্রফিট নিয়ে বের হবেন ইত্যাদিই আজকের বিষয়। তাহলে আসুন আর দেরি না করে সফল এনগাল্পিং ট্রেডিং পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নেই- সর্বজন (ট্রেডার) মতে, এনগাল্পিং পদ্ধতি ট্রেড করার একটি সহজ পদ্ধতি এবং একটি অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য ট্রেডিং কৌশল, যার মাধ্যমে ট্রেড করতে তেমন কোনো এ্যনালাইসিস করতে হয়না, যার মাধ্যমে স্বল্প রিস্ক নিয়ে অধিক লাভ করা সম্ভব, অনেকটা পিনবার ট্রেডিং পদ্ধতির মত। আমরা কোনো লেনদেন করতে যেমন দুটি পক্ষ লাগে ঠিক তেমনি প্রত্যেক এনগাল্পিং ট্রেডিং প্যাটার্ন এ দুটি ক্যান্ডেল জড়িত থাকে এবং একটি ক্যান্ডেল তার শরীর দ্বারা আগের ক্যান্ডেলটির শরীরকে পুরোপুরিভাবে আবৃত করে ফেলে, এতে এনগাল্পিং ট্রেড করার পরিবেশ তৈরি হয়। আর এ ধরণের এনগাল্পিং বাই অথবা সেল উভয়ের ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। তাইতো এনগাল্পিং ট্রেডিং পদ্ধতি অনেক জনপ্রিয়। নিচে বিভিন্ন ধরণের এনগাল্পিং ক্যান্ডেল প্যাটার্ন এর চিত্র দেওয়া হলঃ উপরের চিত্রে এনগাল্পিং এর বিভিন্ন ধরনের সেটাপ দেখানো হল। এনগাল্পিং চিত্রগুলোতে প্রথম ক্যান্ডেলটির মূল শরীরকে দ্বিতীয় ক্যান্ডেলটির মূল শরীর পুরোপুরি পূরণ করে উপরে/বাই বা নিচে/সেল এ চলে গেছে। এতে করে পরিস্কারভাবে বুঝা যায় যে, প্রথম ক্যান্ডেলটির শরীর দ্বিতীয় ক্যান্ডেলটির বডি/শরীর দ্বারা এনগাল্পিং হয়েছে এবং ট্রেড এ এন্ট্রি দেওয়ার পরিবেশ তৈরি হচ্ছে। এনগাল্পিং ট্রেড করার জন্য যে নিয়মগুলো মেনে চলবেনঃ যে কোনো পেয়ারে এনগাল্পিং হওয়ার পর ট্রেড এ এন্ট্রি দেওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই কিছু নিয়ম মেনে ট্রেড এ এন্ট্রি দিতে হবে। যে নিয়মগুলো আপনাকে মেনে চলতে হবে তা হলঃ অধিক প্রফিট করতে হলে আপনাকে অবশ্যই মিনিমাম ৪ঘন্টা/ডেইলি চার্ট ফলো করতে হবে আর যদি আপনি আরো কম টাইম ফ্রেম এ এনগাল্পিং ট্রেড করে থাকেন তাহলে এ ক্ষেত্রে আপনার ট্রেডে সফলতার পরিমাণও অনেক কম হবে। আপনি যে টাইম ফ্রেমে এনগাল্পিং ট্রেড করেন আপনাকে অবশ্যই সে টাইম ফ্রেমে সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্সসমূহ জানতে হবে। আপনার টাইম ফ্রেমে কোনো ক্যান্ডেল এনগাল্পিং হলে যে ক্যান্ডেলটি এনগাল্পিং করবে সে ক্যান্ডেলটি শেষ হওয়া পর্যন্ত আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে কারণ অনেক সময় এরকম এনগাল্পিং করে আবার সেই ক্যান্ডেলেই সুটিং ষ্টার/ষ্টার/হ্যামার/অন্যান্য ক্যান্ডেলের রূপ ধারন করে। তাই ট্রেডে এন্ট্রি দেওয়ার জন্য এনগাল্পিং ক্যান্ডেলটি শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন এবং সিউর হয়ে পরের ক্যান্ডেল এ ট্রেড এন্ট্রি দিন। হাই ইমপ্যাক্ট নিউজের সময় এ ধরণের ট্রেড এ এন্ট্রি থেকে বিরত থাকুন কারণ এ সময় নিউজের কারনে ট্রেডে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। নিচে এনগাল্পিং ট্রেড এর একটি চিত্র দেওয়া হলঃ এনগাল্পিং ট্রেড এ এন্ট্রিঃ আপনার ব্যবহৃত টাইম ফ্রেমে কোনো ক্যান্ডেল এনগাল্পিং হওয়ার পর দেখে নিন যে, তারা তাদের আগের সাপোর্ট বা রেসিস্টেন্সকে অতিক্রম করেছে কিনা, যদি সেল এর ক্ষেত্রে পেয়ারটি তার আগের সাপোর্টকে অতিক্রম করে এনগাল্পিং করে এবং বাই এর ক্ষেত্রে পেয়ারটি তার আগের রেসিস্টেন্সকে অতিক্রম করে এনগাল্পিং করে তাহলে নিশ্চিন্তে ট্রেডে এন্ট্রি দিন। স্টপলসঃ আপনার ব্যবহৃত টাইম ফ্রেমে বেয়ারিশ/সেল এনগাল্পিং ট্রেড এর ক্ষেত্রে বর্তমান মার্কেট মূল্যের আগের সাপোর্ট এর ৫পিপ্স উপরে এবং বুলিশ/বাই এনগাল্পিং ট্রেড এর ক্ষেত্রে বর্তমান মার্কেট মূল্যের আগের রেসিস্টেন্সের ৫পিপ্স নিচে স্টপলস দিন। অথবা যে ক্যান্ডেলটি এনগাল্পিং হয়েছে যে ক্যান্ডেলের উপরে/নিচে দিন। টেক প্রফিটঃ এ ধরণের ট্রেডে কয়েক-ভাবে টেক প্রফিট দেওয়া যায়। সেগুলো হলোঃ এ ধরণের ট্রেড এ বেশীরভাগ সময়ে রিস্ক রেশিউ হিসেব করে টেক প্রফিট দেওয়া হয় যেমনঃ মিনিমাম ১:১। ট্রেড এ নিজে নজরদারি করে পরিস্থিতি বুঝে প্রফিট নিয়ে ট্রেড ক্লোজ করে দেওয়া। বেয়ারিশ/সেল ট্রেড এর ক্ষেত্রে এ্যনালাইসিস করে মার্কেট মূল্যের পরবর্তী সাপোর্ট এর কাছাকাছি এবং বুলিশ/বাই ট্রেড এর ক্ষেত্রে পরবর্তী রেসিস্টেন্স এর কাছাকাছি টেকপ্রফিট দিন। আমার অভিজ্ঞতামতে, এনগাল্পিং ট্রেড করার জন্য ৪ঘন্টা/ডেইলি চার্ট ফলো করা উচিৎ এতে সফলতা নিশ্চিত থাকে। এ ধরণের ট্রেড করার পর আপনার ট্রেডটি প্রফিটে থাকা অবস্থায় যদি ঐই পেয়ারে হাই ইম্প্যাক্ট নিউজ থাকে তাহলে আপনার ট্রেডটি নিউজ পাবলিশ হওয়ার আগেই প্রফিট নিয়ে ট্রেড ক্লোজ করে বেরিয়ে যান। কারণ নিউজ যদি আপনার ট্রেডের বিপরীতে হয় তাহলে হয়তো আপনি ঐই প্রফিটটা হারাবেন। তবে নিউজ পাবলিশ এর পর নিউজ যদি আপনার করা ট্রেড এর অনুকূলে থাকে তাহলে এ্যনালাইসিস করে একই ধরণের (বাই/সেল) ট্রেড এ আবার এন্ট্রি দিতে পারেন। ধন্যবাদ সবাইকে।
  3. মভিং এভারেজ ট্রেড বিস্তারিত (শেষ অংশ)। ট্রেডপ্রিয় বন্ধুরা, মভিং এভারেজ ট্রেড বিস্তারিত এর প্রথম অংশে এর উপর মোটামুটি আইডিয়া পেয়ে গেলেন, আজকে মভিং এভারেজ ট্রেড বিস্তারিত এর শেষ অংশে কিভাবে মভিং এভারেজ দিয়ে ট্রেড করবেন এবং এর অসুবিধা ইত্যাদি সম্পর্কে বলবো। তাহলে আসুন আর দেরী না করে আজকের পর্বে আশা যাক। ট্রেডিং স্ট্রেটেজি – ক্রসওভারঃ মভিং এভারেজ স্ট্রেটেজিগুলোর মধ্যে ক্রসওভার হলো প্রধান/অন্যতম স্ট্রেটেজি। এটার প্রথম ধরন হলো প্রাইচ ক্রসওভার বা মুল্য সমন্বয়। এটা প্রথম অংশেও একটু করে বলা হয়েছে যে, মার্কেট মুল্য/মার্কেট যখন মভিং এভারেজ এর উপরে বা নিচে দেখা যায় তখন এর মানে হলো মার্কেট ট্রেন্ড পরিবর্তনের পূর্বাভাস দেওয়া। প্রাইচ ক্রসওভার বা মুল্য সমন্বয় চিত্রঃ চার্টে মভিং এভারেজ দিয়ে আরেকটি স্ট্রেটেজিও অনুসরণ করা যায়, সেটা হলো – একটা লং ও একটা শর্ট মভিং এভারেজ ব্যবহার। যেমন- লং MA ১০০ পিরিয়ড হলে শর্ট ২৫/৩০ MA। যখন শর্ট MA লং MA কে ক্রস করে উপরে যাবে তখন বাই সিগন্যাল এবং মার্কেট বাই ট্রেন্ড এ আছে, এটিকে আবার “গোল্ডেন ক্রস” বলা হয়ে থাকে। আর যখন শর্ট MA লং MA কে ক্রস করে নিচের দিকে যাবে তখন সেল সিগন্যাল এবং মার্কেট ট্রেন্ড সেল। এটি “মৃত / মৃত্যুর ক্রস” নামে পরিচিত। গোল্ডেন ক্রস ও “মৃত / মৃত্যুর ক্রস” চিত্রঃ মভিং এভারেজ এর অসুবিধাঃ এতক্ষণ আমারা মভিং এভারেজ এর অনেক গুনাগুন ও সুফলের কথা শুনেছি, এর যেমন সুফল আছে তেমন কিছুটা অসুবিধা বা কুফল ও আছে। মভিং এভাজের হিস্টোরিক্যাল ডাটার উপর ভিত্তি করে তার হিসাব করে থাকে, হিসেব করে বা প্রাকৃতিকভাবে কোনো ভবিষ্যৎবাণী দেয় না। অতএব, মভিং এভারেজ ব্যবহারের ফলাফল র‍্যন্ডম হতে পারে – সময়ে সময়ে মভিং এভারেজ খুব ভাল সাপোর্ট রেসিস্টেন্স ও ট্রেড সিগন্যাল দেয় আবার অনেক সময় এগুলোর কোনোটিকেই যথাযথ সম্মান করে না। ট্রেড এ একটা বড় সমস্যা হলো যদি মার্কেট মুল্য/প্রাইচ এ্যকশান অস্থির আচরন করে এবং মার্কেট মুল্য সুইং করে তাহলে মার্কেট রিভার্স ট্রেড সিগন্যাল দেয়। তার মানে মভিং এভারেজ এর দুটি লিখাতে যা শিখলেন তা বেকার! ভয় পাবেন না, সমস্যা ও সমাধান পাশাপাশি বসবাস করে, শুধু সমাধানটা নিজেকে বের করে নিতে হয়। এ ধরনের সমস্যা এড়ানোর জন্য মভিং এভারেজ এর সাথে আপনি আপনার পছন্দসই আরেকটি ইন্ডিকেটর ব্যবহার করুন। মভিং এভারেজ শক্তিশালী ট্রেন্ড এ ভালো ফলাফল দেয়। কিন্তু অনেক সময়ই দুর্বল, অস্থির ও ছোট অবস্থায় থাকে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে সামঞ্জস্যপূর্ণ টাইমফ্রেম মিলিয়ে নিলে মভিং এভারেজ সাময়িকভাবে সাহায্য করতে পারে। মভিং এভারেজ ইতিকথাঃ একটি মবিং এভারেজ গড় মুল্যের মাধ্যমে সহজভাবে একটি বহমান লাইন দ্বারা মার্কেটের বর্তমান অবস্থার রূপ দেখায়। এই সহজ প্রবণতা পৃথকরূপেও সনাক্ত করা যায়। ব্যাখ্যামূলক মভিং এভারেজ প্রাইচ পরিবর্তনের সময় দ্রুত প্রতিক্রিয়া দেখায় এবং তারপর নরমাল হয়ে যায়। ২০দিনের মভিং এভারেজ এ আপনি যদি স্ট্রং বাই ট্রেন্ড দেখেন, ১০০বা২০০ দিনের মভিং এভারেজ এ তা না দেখারই কথা। আবার অনেক সময় মার্কেটের দ্রুত পরিবর্তনে মভিং এভারেজ আপনাকে মিথ্যা ব্রেকআউট দেখাতে পারে এ জন্য আপনি অন্য ইন্ডিকেটর বা মভিং এভারেজের পিরিয়ড বাড়িয়ে মার্কেটের প্রকৃত ট্রেন্ড দেখে নিন, যাতে ট্রেড এ ভুল সিদ্ধান্ত নিতে না হয়। মভিং এভারেজ স্ট্রেটেজির মধ্যে ক্রসওভার স্ট্রেটেজিটি বাই/সেল ও ট্রেড ক্লোজ এর জন্য অধিক জনপ্রিয় এবং মভিং এভারেজ সম্ভাব্য সাপোর্ট ও রেসিস্টেন্সগুলোও হাইলাইট করে তুলে ধরে, যারফলে ট্রেড এ সিদ্ধান্ত নিতে অনেক সুবিধা হয়। ধন্যবাদ সবাইকে।
  4. Money Hedging in forex, বিষয়টার গুরুত্ত সহকারে অনেকে ফলো করতে বলে, এবং এই পদ্ধতিতে ট্রেডিং নাকি অনেক বেশী সফলতা পাওয়া যায় এবং বড় লস থেকেও নাকি প্রফিট রিকাভার করা যায়। কিন্তু বিষয়টা পরিস্কার ধারনা নাই তাই ব্যাবহার করতে পারছি না বা আসলে বুঝতে পারছিনা যে এই ধরণের স্ট্রেটিজি আসলে কখন ব্যাবহার করা যেতে পারে, আবারো অভিজ্ঞ ট্রেডারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, আশা করি শেয়ার করে বিষয়টা পরিস্কার করবেন এবং সুন্দর ধারনা পাবো। বিডিফরেক্সপ্র'কে ভালোবাসি তাই নিজের অজানাগুলোকে জানার তাগিতে আশা প্রকাশ করলাম।
  5. I-FX Simple Supper Trading System Trading strategy setup: Currency pair: EUR/USD or any other pairs. Time frame: 15 min Indicators: Zigzag, Stochastic, Moving Average- Simple, Manual Support & Resistance Indicator input: Zigzag= 24, 10, 6 SMA= 96, 480 EMA= 200 (optional) Stochastic= 14,3,3 Trading Rules: This is very simple trading system for the traders who love day trading. In my system I used 3 different indicators which will help to make a good entry and exit setup. This system may not work in extreme volatile or supper trendy market. The Reward to Risk ratio depends on you and recommended risk level is not more than 2% per trade. Entry Rules: First put SMA to confirm trend. Here I use Black line as SMA 96 and Red line as SMA 480. When Red SMA cross price, black SMA and RED SMA stay down we have uptrend confirmation. After that we will draw support & resistance using Zigzag swing high and low points. Finally we will take our Entry based on Stochastic over sold conditions and support resistance. Here most Important thing is we will trade only favor on trend. So when we have upward trend confirmation we will just go for long using horizontal support & resistance line following Stochastic oversold condition. In the down trend we will use same rules i.e Vice versa. Exit Rules: We will close Trade based on previous Support or Resistance. If we hold position for long we will set our TP on recent resistance or vice-versa. for short entry. I have 3 different Stop-loss (SL) rules. First you can set your SL on recent support below immediate support. 2nd u can set your SL below 200 EMA line. 3rd u can use 20 pips par trade. Here is Short Setup using I-FX System: I-FX Trading System Developed by D.Hossain Ifti Chief Technical Analyst at TigerFX Bangladesh
×
×
  • Create New...