Jump to content

Bdforexpro - ফরেক্স সংক্রান্ত আলোচনা,ফরেক্স শিক্ষা, ফরেক্স ট্রেডিং এবং এনালাইসিসের উন্মক্ত এবং অনন্য স্থান। এই ফোরামে রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রী। পোস্ট এর পূর্বে অনুগ্রহ করে ফোরাম নিতিমালা গুলো পড়ে, বুঝে পোস্ট করুন। ধন্যবাদ;

Search the Community

Showing results for tags 'forex trend'.

  • Search By Tags

    Type tags separated by commas.
  • Search By Author

Content Type


  • সাধারণ ফরেক্স সহায়তা
  • ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা, ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, নিউজ এবং সিগন্যাল সম্পর্কিত
    • নিউজ, সিগনাল ও এনালাইসিস
    • প্রশ্ন ও উত্তর
    • ট্রেডিং স্ট্রেটিজি
    • ফরেক্স স্টাডি
    • ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা
    • ট্রেডিং সফটওয়্যার - মেটাট্রেডার, সি-ট্রেডার, ওয়েবট্রেডার
    • ফোরাম ও পোর্টাল সহায়তা
    • ফরেক্স ব্রোকার
  • ফরেক্স ব্রোকার সম্পর্কিত
  • বিজ্ঞাপন
  • অফ-টপিক

Categories

  • সাধারণ ফরেক্স বই
  • টেকনিক্যাল এনালাইসিস
  • ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস
  • ক্যান্ডলেস্টিক এনালাইসিস
  • ইনডিকেটর

Find results in...

Find results that contain...


Date Created

  • Start

    End


Last Updated

  • Start

    End


Filter by number of...

Joined

  • Start

    End


Group


ওয়েবসাইট URL


ইয়াহু(Yahoo)


স্কাইপ(Skype)


মোবাইল নং


ঠিকানা


ইচ্ছা/আগ্রহ/শখ


ব্রোকার নেইম


ট্রেড অভিজ্ঞতা

Found 4 results

  1. মার্কেট ট্রেন্ড সনাক্ত করার টিপস। বন্ধুরা, মার্কেট ট্রেন্ড আঁকা ও বুঝা ফরেক্স ট্রেডারদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। যারা ট্রেন্ডলাইন বুঝে এবং আঁকতে পারে তারা যে কোনো টাইমফ্রেমে যে কোনো কারেন্সি পেয়ার/জোড় এ ট্রেড করে সফলতা অর্জন করতে সক্ষম। আর যারা ট্রেন্ড লাইন সঠিকভাবে সনাক্ত করতে ব্যর্থ হয় তারা ৭০-৯০শতাংশ সময় লসের সম্মুখীন হন। যখন কোনো ট্রেডার ট্রেড করার জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন তখন তিনি বর্তমান ট্রেন্ড লাইন ডিরেকশন বিভিন্ন টাইম ফ্রেমে দেখে তার পরই ট্রেডে এন্ট্রি দিয়ে থাকেন বা ট্রেড করার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন, ঠিক তেমনি সফল ট্রেড করার জন্য আপনাকেও একটি পেয়ারের এই সামগ্রিক দিক সমূহ দেখে ট্রেডে এন্ট্রি দিতে হবে নতুবা যা লাভ করার চিন্তা করেছেন তার কয়েকগুন লস হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। ট্রেন্ড সনাক্ত করার জন্য লং টাইম ফ্রেম সবচেয়ে নিরাপদ যেমনঃ দৈনিক ও সাপ্তাহিক চার্ট। দৈনিক ও সাপ্তাহিক চার্ট এজন্য গুরুত্বপূর্ণ যে, ছোট টাইম ফ্রেমের চার্টে আপনি বিভিন্ন ধরনের ব্রেক-আউট দেখতে পাবেন এবং ভুল সিদ্ধান্ত নিতে পারেন কিন্তু দৈনিক বা সাপ্তাহিক চার্ট আপনাকে কখনো ভুল ব্রেক আউট শো করবে না এবং সঠিক ট্রেন্ড দেখাবে। উদাহরণস্বরূপ আপনি বর্তমানের ইউরো/ইউএসডি পেয়ারটি বিভিন্ন টাইম ফ্রেমে দেখুন তাহলেই জবাবটা পেয়ে যাবেন এবং বুঝতে পারবেন যে, আমার কথা কতটুকু সত্য। আপনি যদি লং ট্রেডার হন এবং ট্রেন্ড লাইন আঁকতে জানেন, তাহলে দৈনিক ও সাপ্তাহিক চার্টে ট্রেন্ড লাইন আঁকুন তাহলেই ট্রেন্ড এর সঠিক পথ পাবেন অথবা........................... মুভিং এভারেজ মার্কেট ট্রেন্ড সনাক্ত করার আরেকটি সহজ মাধ্যম হল মুভিং এভারেজ। বিশেষ করে যারা সঠিকভাবে ট্রেন্ড লাইন আঁকতে ব্যর্থ তারাই এ পদ্ধতি ব্যবহার করে থাকে। এক্ষেত্রে আপনি ১৪ পিরিয়ড এ মুভিং এভারেজ এর লেভেল ৫০, ১০০ ও ২০০ ব্যবহার করবেন। আর এটা অবশ্যই দৈনিক চার্টে দেখবেন তাহলেই আপনি সঠিক ট্রেন্ড বুঝতে/ধরতে সক্ষম হবেন। যেভাবে ট্রেন্ড সনাক্ত করবেন এবং ট্রেড এর সিদ্ধান্ত নিবেনঃ বেশীরভাগ ট্রেডার ১০০দিনের মুভিং এভারেজ ফলো করে ট্রেডের সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন, মার্কেট মুল্য যদি ১০০মুভিং এভারেজ এর উপরে থাকে তাহলে ট্রেন্ড আপ এবং এক্ষেত্রে ট্রেডাররা শুধুই বাই ট্রেড এন্ট্রি দিয়ে থাকেন আর যদি মার্কেট মুল্য ১০০মুভিং এভারেজ এর নিচে থাকে তাহলে ট্রেন্ড ডাউন এবং এক্ষেত্রে ট্রেডাররা শুধুই সেল ট্রেড করে থাকেন। তবে আপনি যদি মুভিং এভারেজ এর সাথে ট্রেন্ড লাইন আঁকেন তাহলে ট্রেন্ড বুঝা আপনার জন্য আরো অনেক সহজ হয়ে যাবে। যদি আপনার আঁকা লাইন এবং মুবিং এভারেজ আপ ট্রেন্ড ডিরেকশন দেয় তাহলে আপনাকে বুঝে নিতে হবে যে মার্কেট আপ এ স্ট্রং, অপর দিকে ট্রেন্ড লাইন এবং মুবিং এভারেজ যদি ডাউন ট্রেন্ড ডিরেকশন দেয় তাহলে ট্রেন্ড স্ট্রং সেল বুঝাবে। তাই আমি বলবো আপনি মুভিং এভারেজ এর সাথে সাথে ট্রেন্ড লাইন আঁকা শিখুন। ট্রেন্ড লাইন আঁকা নিয়ে আপনার প্রিয় বিডিফরেক্সপ্রো-তে কয়েকটি পোষ্ট আছে সেগুলো ভালো করে দেখলে আশা করি আপনি ট্রেন্ড লাইন আঁকতে সক্ষম হবেন আর ট্রেন্ড লাইন এবং মুভিং এভারেজ এ দুটির সমন্বয়ে আপনি সঠিকভাবে ট্রেন্ড সনাক্ত করতে সক্ষম হবেন। একটি কথা মনে রাখবেন ট্রেন্ড একজন ট্রেডারের সঠিক বন্ধু। ধন্যবাদ।
  2. কেন ট্রেন্ড সত্যিই আপনার বন্ধু। বন্ধুরা, ট্রেডিং বিশ্বে একটি খুব জনপ্রিয় ও প্রচলিত কথা আছে “ট্রেন্ড আপনার বন্ধু”। যারা ভাল ট্রেডার আছেন আপনি তাদের মুখ থেকে এ শব্দটি অন্ত্যত একবার হলেও নিশ্চয়ই শুনেছেন। ট্রেন্ডলাইন হলো সফল ফরেক্স ট্রেডারদের ট্রেড করার জন্য সবচেয়ে বড় কৌশল। আপনি যতই ইন্ডিকেটর ব্যবহার করেননা কেন আপনি যদি ট্রেন্ডলাইন না বুঝেন তাহলে সফল ট্রেডার হওয়া আপনার জন্য অনেক কঠিন হবে। ট্রেড এর ক্ষেত্রে ট্রেন্ড লাইন অতিব গুরুত্বপূর্ণ কেন এটা অনেকেই জানেন না বা বুঝেন না। আর যারা ট্রেন্ড লাইন বুঝে ট্রেড করে তারা কিভাবে করে এবং তাদের সফলতাই বা কেমন? আজকের আর্টিকেল এ সংক্ষিপ্তভাবে আপনাদেরকে তাই জানাবো। ট্রেন্ড লাইন দেখে ট্রেড এ এন্ট্রি দেওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই দৈনিক বা ৪ঘন্টার চার্ট অনুসরণ করতে হবে নতুবা আপনার ট্রেন্ড লাইন ট্রেড পদ্ধতিতে নিশ্চিত ভুল হতে পারে। কিভাবে হাইয়ার টাইম ফ্রেমে ট্রেন্ড ও প্রাইচ এ্যকশনের মাধ্যমে লো স্টপ লস দিয়ে হাই প্রফিটের জন্য ট্রেড এ এন্ট্রি দিবেন চিত্রের সাহায্যে নিচে তা-ই দেখানো হলঃ উপরের চিত্রে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, ৪ঘন্টার চার্টে উক্ত পেয়ারটির ট্রেন্ড সেল এ আছে, তাই যখনই পেয়ারটির মার্কেট কারেকশনের জন্য বাই এ যাবে এবং একটা রেসিস্টেন্স/পিনবার /সেল ইন্ডিকেট করে এমন ক্যান্ডেল তৈরি করবে ঠিক তখন-ই সেল এন্ট্রি দিন এবং স্টপ লস ঐই হাই মুল্যের উপরে/ওই মুল্যের উপরেররে রেসিস্টেন্স এ দিন। এ ধরনের ট্রেড করে আপনি কম রিস্ক নিয়ে হাই প্রফিট নিতে পারবেন। নিচে আমরা ৪ঘন্টার চার্টে আরেকটি পেয়ারে ট্রেন্ড ফলো করে কিভাবে প্রফিটেবল ট্রেডের এন্ট্রি দিবো তা-ই দেখানো হলঃ উপরের চিত্রে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, পেয়ারটি ডাউন/সেল ট্রেন্ড এ আছে। যেকোনো কারেন্সি-ই অনেকটা সেল/বাই এ গেলে মিনিমাম একটা কারেকশন অবশ্যই করে থাকে, এটা আমরা সবাই কম বেশী দেখি আর এ কারেকশন মেজর পেয়ারগুলোর ক্ষেত্রে বেশীরভাগ সময় ৩০-৭০% পর্যন্ত হতে পারে। উপরের চার্টের ন্যায় যখন কোনো পেয়ার সেল এ গিয়ে সাপোর্ট/কেই লেভেল তৈরি করে, তখন আপনি কারেকশনের সুযোগটা নিতে পারেন এবং ওই সাপোর্ট/কেই লেভেল এ বাই করতে পারেন এবং রেসিস্টেন্স লেভেল/সুইং হাই দেখে টেক প্রফিট দিতে পারেন আর স্টপ লস ওই সাপোর্ট/কেই লেভেল এর নিচে দিতে পারেন। আর কারেকশন লেভেলের হাই রেট এ আবার সেল এন্ট্রি দিন এবং হাই প্রফিট নিন যেহেতু পেয়ারটির ট্রেন্ড সেলে আছে। দৈনিক চার্টে ট্রেন্ড দেখে ট্রেডে কিভাবে এন্ট্রি দিবেন, নিচের চিত্রে তাই দেখানো হলঃ উপরের চিত্রে দৈনিক চার্টে পেয়ারটির ট্রেন্ড আমরা সেল এ দেখতে পাচ্ছি, যেহেতু পেয়ারটি এর আগে একটি সাপোর্ট ও কী লেভেল ক্রস করে সেলে এসেছে তাই টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিস অনুযায়ী পেয়ারটি সে মুল্য পর্যন্ত আবার যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই আপনি এ অবস্থায় বাই ট্রেড এ এন্ট্রি দিন আর স্টপ লস বর্তমান মূল্যের সাপোর্টের নিচে দিন। যেহেতু পেয়ারটির ট্রেন্ড সেলে তাই টেক প্রফিট উপরের রেসিস্টেন্স/কী লেভেলের কাছাকাছি দিন এবং বর্তমান মুল্যের উপরের রেসিস্টেন্স/হাই/সুইং হাই এ সেল এর পেন্ডিং অর্ডার দিন আর এভাবেই ট্রেন্ড এর সাথে থেকে লুফে নিন আপনার প্রফিট। উপরের চিত্র এবং আলোচনাটুকু বুঝতে নিশ্চয় আপনার কষ্ট হবার কথা নয়, যাইহোক – মার্কেট ট্রেন্ড সব সময়-ই ট্রেডারদের বন্ধু একথা মনে রেখেই ট্রেডে এন্ট্রি দিবেন, কারেকশন ট্রেড করার সময় অবশ্যই স্টপ লস ব্যবহার করবেন নতুবা বিশাল লসের সম্মুখীন হবেন। আর সব সময় ট্রেন্ড এর সাথেই থাকুন তাহলেই সফল হবেন। আর ট্রেন্ড লাইন আঁকা এবং বুঝা নিয়ে আপনাদের প্রিয় ফরেক্স এডুকেশন সাইট বিডিফরেক্সপ্রো-তে অনেকগুলো পোষ্ট আছে, ট্রেন্ড লাইন সম্পর্কে আরো জানার জন্য পোষ্টগুলো পড়ে দেখুন আশা করি আরো পরিস্কারভাবে বুঝতে পারবেন। ধন্যবাদ।
  3. ৩) মার্কেট ট্রেন্ড বুঝা ও ট্রেন্ডলাইন আঁকার শেষ পর্বে আজ আমি আলোচনা করবো বাই/বুলিশ ট্রেন্ডলাইন এবং সেল/ব্যারিশ ট্রেন্ডলাইন নিয়ে। ট্রেন্ড হচ্ছে প্রত্যেক ট্রেডারের ট্রেড এর প্রকৃত বন্ধু। ফরেক্স মার্কেট এ ট্রেড এর সঠিক পথ প্রদর্শক হলো ট্রেন্ডলাইন। ট্রেন্ড না বুঝে ট্রেড করলে যে কোনো সময় আপনার লস হওয়াটা স্বাভাবিক বলে আমি মনে করি। অভিজ্ঞ ট্রেডাররা তখনই বাই করে যখন ট্রেন্ড বাই/বুলিশ এর দিকে থাকে আর সেল করে ট্রেন্ড যখন সেল/ব্যারিশ এর দিকে থাকে। আসুন আমরা চিত্রের সাহায্যে বাই/বুলিশ ট্রেন্ড দেখে নেইঃ উপরের চিত্রটিতে আপনি পরিস্কারভাবে দেখতে পাচ্ছেন যে উক্ত কারেন্সির ট্রেন্ড বাই এর দিকে, তাহলে এখানে সেল এ ট্রেড করা আপনার অবশ্যই বোকামিই হবে। তবে এ ও নয় যে আপনি উপরোক্ত চিত্রের ন্যায় ট্রেন্ড দেখে সাথে সাথে বাই এ ট্রেড ওপেন করবেন। উক্ত ট্রেন্ড এ তখনই বাই ট্রেড ওপেন করবেন যখন মার্কেট একটা নুন্যতম সাপোর্ট তৈরি করবে। সাপোর্ট/রেজিস্টেন্স বোঝার জন্য আপনি যে কোনো সাপোর্ট/রেজিস্টেন্স ইন্ডিকেটর (জিকজাক) ব্যাবহার করতে পারেন। সাপোর্ট এ বাই ট্রেড ওপেন করার পর যখন একটা রেজিস্টেন্স তৈরি হবে তখনই আপনার ট্রেডটি ক্লোজ করে প্রফিট নিয়ে ট্রেড থেকে বের হয়ে যাবেন। সেল/ব্যারিশ ট্রেন্ডঃ আপনি যখন একটা পেয়ার এ ট্রেন্ডলাইন আঁকার পর উপরের ন্যায় ট্রেন্ড দেখতে পাবেন তখনই বুঝে নিবেন যে উক্ত পেয়ার এর ট্রেন্ড সেল/ব্যারিশ, এখানে আপনি সেল ট্রেড করার জন্য অবশ্যই একটা রেজিস্টেন্স এর জন্য অপেক্ষা করবেন, আর রেজিস্টেন্স পয়েন্ট এ সেল ট্রেড ওপেন করার পর মার্কেট রেট সাপোর্ট এ আসলেই লাভ নিয়ে আপনার সেল ট্রেডটি ক্লোজ করে দিবেন। ট্রেন্ডলাইন আঁকার নিয়মঃ ট্রেন্ডলাইন আঁকার জন্য আপনার মেটা ট্রেডারের ভিউ - টুলবার - লাইন স্টাডিস এ ক্লিক করুন, এরপর দেখুন আপনার মেটা ট্রেডারের উপরের বার এর যে কোনো যায়গায় লাইন স্টাডিস টুলবারটি চলে এসেছে, উক্ত টুলবার এর ৫নং/আইকনগুলোর উপর মাউস নিয়ে চেক করলেই পেয়ে যাবেন ট্রেন্ডলাইন (ট্রেন্ডলাইন আঁকার টুলস)। যে কোনো পেয়ার এ ট্রেন্ডলাইন আঁকার জন্য ( সর্বনিম্ন ১ঘন্টা টাইম ফ্রেমে) দুই বা ততোধিক সাপোর্ট/রেজিস্টেন্স রেট বাছাই করুন এবং উক্ত সাপোর্ট/রেজিস্টেন্স রেটগুলোতে ট্রেন্ডলাইন এঁকে আপনার ট্রেড পেয়ার এর ট্রেন্ড কোন দিকে তা বুঝে নিন।ট্রেন্ডলাইন আঁকা তেমন কঠিন কোনো কাজ নয়, ট্রেন্ডলাইন নিয়ে আমার ধারাবাহিক তিনটি পোষ্ট পড়লেই আপনার জন্য ট্রেন্ডলাইন আঁকা ও বুঝা আশা করি অনেক সহজ হবে এবং আপনার ট্রেডিং জীবনে অনেক উপকার এ আসবে। ট্রেন্ডলাইন আঁকতে ও বুঝতে পারলে আপনার ট্রেড এর প্রতি আত্মবিশ্বাস ও সফলতা অনেক গুন বাড়বে। বিঃ দ্রঃ মানি ম্যানেজমেন্ট ছাড়া কেউ কখনো ট্রেড করবেন না। ফরেক্স মার্কেট লোভী ও উত্তেজিত মন মানুষিকতার ব্যাক্তির জন্য নয়। সবার জন্য শুভ কামনা। ধন্যবাদ।
  4. ২) ট্রেন্ডলাইন আঁকার সবচেয়ে সফল ও ভাল পদ্ধতি হলো দুইয়ের বেশি অর্থাৎ তিন বা ততোদিক হাই/লো পয়েন্ট। তবে আমি আগের পোষ্টটিতে বলেছি দুই বা ততোদিক সুইং লো থেকে সুইং লো অথবা সুইং হাই থেকে সুইং হাই, অবশ্যই আগের পদ্ধতিটি সঠিক, তবে আপনি যখন ট্রেন্ডলাইন আঁকতে গিয়ে দুটি পদ্ধতিই পাবেন তখন অবশ্যই তিন বা ততোদিক হাই/লো পয়েন্ট কে বেঁচে নিবেন কারন তিন বা ততোদিক হাই/লো পয়েন্ট এ ট্রেন্ড যেদিকে থাকে বেশিরভাগ (৯০%) সময় সে দিকেই থাকে। যদিও অনেকটা সময় ট্রেন্ড এর গতিপথে চলার পর কিছু কিছু সময় ট্রেন্ড এর বিপরীতে প্রত্যেক হাই/লো পয়েন্ট পর পর ৩০%-৫০% রিকবার করে থাকে। তবে এ পদ্ধতিগুলোতে ট্রেন্ডলাইন আঁকার জন্য আপনি ৫০বার (আনুমানিক) পর পর হাই/লো পয়েন্ট বাচাই করলে ভালো হয়। আসুন আমরা চিত্রের সাহায্যে দেখে নিই কিভাবে একটি সঠিক ট্রেন্ডলাইন সফলভাবে আঁকবোঃ উপরের চিত্রটিতে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে মার্কেট রেট দুই বার প্রায় একই রেট এর কাছাকাছি পৌঁছেচে, এ ধরনের চিত্র আমরা প্রায় সময়ই দেখি যখন মার্কেট ট্রেন্ড একদিকেই থাকে কিন্তু আমরা ভয়ে ট্রেড করিনা, ভাবি এইবার বুঝি ট্রেন্ড পরিবর্তন হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে আমি বলবো এটাই (ট্রেন্ড যে দিকে আছে সেদিকে) ট্রেডে এন্ট্রি করার প্রকৃত সময়। তবে ঐ পয়েন্টগুলোতে ট্রেড এ এন্ট্রি করার পর অবশ্যই আগের পয়েন্টটির ১৫-২০পিপস উপরে স্টপলস ব্যবহার করবেন, যদি আপনার ইকুইটি কম থাকে বা যদি আপনি স্টপলস দিতে চান। আমি মনে করি আপনি সঠিকভাবে ট্রেন্ডলাইন বুঝলে ও আঁকতে পারলে কোনো ইন্ডিকেটর ছাড়াই সফলভাবে ট্রেড করতে পারবেন, তবে অবশ্যই মানি ম্যানেজমেন্ট এর ব্যাপারটি মাথায় রাখবেন। বিঃ দ্রঃ এই পোষ্টটির শেষ পর্ব আগামী দিন দেয়া হবে।
×
×
  • Create New...