A H Royal

RSI, Stochastic এবং SMA/MA ইন্ডিকেটর দিয়ে যেভাবে প্রফিট ট্রেড ওপেন করবেন।

7 posts in this topic

বন্ধুরা, আজকে আপনাদের সাথে যে স্ট্রেটেজিটা শেয়ার করবো তা বিশ্বজুড়ে অনেক ট্রেডারেরই প্রিয়। প্রিয় এ জন্য যে এর সাকসেস রেট অনেক ভালোআপনারা অনেকেই RSI, Stochastic এবং  SMA/MA(মুবিং এভারেজ) এই ইন্ডিকেটরগুলোর সাথে পরিচিত বা এগুলো দিয়ে ট্রেড করে থাকেন। আজকে আমি আপনাদেরকে এই তিনটি ইন্ডিকেটর এর সমন্বয়ে কিভাবে সাকসেস ট্রেড করবেন তা-ই বলবোআসুন তাহলে এই সাকসেস স্ট্রেটেজিটা জেনে নেই।
 
এই স্ট্রেটেজিতে ট্রেড করতে যা যা করনীয়ঃ
টাইমফ্রেম : ৪ঘন্টা/ডেইলি।
কারেন্সি পেয়ার : যে কোনো পেয়ার এ।
ইন্ডিকেটর সেটাপ : SMA/MA পিরিওড ১৫০ RSI ইনপুট ভেলু ৩, লেভেল ২০ ও ৮০। Stochastic ইনপুট ভেলু ৬,৩,৩ এবং লেভেল ৩০ ও ৭০ এভাবে ইন্ডিকেটরগুলো সেটাপ করুন।
 
এই স্ট্রেটেজিতে ট্রেড করার নিয়মঃ
বাই/বুলিশ ট্রেন্ড এ যে ভাবে বাই ট্রেড ওপেন করবেন – যখন দেখবেন মার্কেট রেট SMA/MA পিরিওড ১৫০ এর উপরে এবং RSIStochastic লেভেল যথাক্রমে ২০ এবং ৩০ এর নিচে তখনই আপনি বাই ট্রেড ওপেন করবেন।  
 
সেল/ব্যারিশ ট্রেন্ড এ যে ভাবে সেল ট্রেড ওপেন করবেন - যখন দেখবেন মার্কেট রেট SMA/MA পিরিওড ১৫০ এর নিচে এবং RSIStochastic লেভেল যথাক্রমে ৮০ এবং ৭০ এর উপরে তখনই আপনি সেল ট্রেড ওপেন করবেন। 

 


যদি উপরোক্ত নিয়মগুলোর একটিও ব্যতিক্রম দেখেন তাহলে এ পদ্ধতিতে ট্রেড থেকে বিরত থাকুন।

 
নিচে চিত্রের সাহায্যে দেখানো হলঃ
 

post-1088-0-83707100-1391282516_thumb.jp

 
স্টপ লস যেভাবে দিবেন – বাই  এর ক্ষেত্রে - যে রেট এ বাই করেছেন তার আগের সুইং লো ক্যান্ডেল এর নিচে এবং সেল এর ক্ষেত্রে - যে রেট এ সেল ট্রেড ওপেন করেছেন তার আগের সুইং হাই ক্যান্ডেল এর উপরে স্টপ লস সেট করুন।
 
যে ভাবে টেক প্রফিট দিবেন – টেক প্রফিট দেয়ার জন্য আমি আপনাকে দুইভাবে পরামর্শ দিব।

  • Stochastic এর মাধ্যমে – বাই ট্রেড এর ক্ষেত্রে Stochastic এর প্রথম লাইনটি যখন লেভেল ৭০ টাচ করবে  আর সেল ট্রেড এর ক্ষেত্রে যখন লেভেল ৩০ টাচ করবে তখনই প্রফিট নিয়ে ট্রেড থেকে বেরিয়ে যান।
  • ট্রায়ালিং স্টপ এর মাধ্যমে – বাই ট্রেড এর ক্ষেত্রে Stochastic এর প্রথম লাইনটি যখন লেভেল ৭০ এর উপরে চলে যাবে আর সেল ট্রেড এর ক্ষেত্রে যখন লেভেল ৩০ এর নিচে যাবে তখন আপনি ট্রায়ালিং স্টপ এর মাধ্যমে অর্থাৎ বর্তমান মার্কেট রেট এর আগের ক্যান্ডেল এর নিচে (বাই ট্রেড এর ক্ষেত্রে) ও আগের ক্যান্ডেল এর উপরে (সেল ট্রেড এর ক্ষেত্রে) আপনার ট্রেডটির ১ম টেক প্রফিট বুক করে রাখবেন এবং এভাবে ধাপে ধাপে ২য় টেক প্রফিট ও ৩য় টেক প্রফিট নিতে পারেন। এজন্য আপনাকে অবশ্যই উক্ত পেয়ার এর মার্কেট ট্রেন্ড বাই/সেল এ কিনা তা বুঝতে হবে।

এই স্ট্রেটেজিতে কম ঝুঁকিতে অধিক লাভ করা সম্ভব যদি আপনি ভালো ভাবে মানি ম্যানেজমেন্ট করে সঠিক পয়েন্ট এ ট্রেড করতে সক্ষম হন। তবে অধিক লাভ নেয়ার জন্য অবশ্যই মার্কেট ট্রেন্ড ফলো করবেন। তাহলে আপনি ট্রায়ালিং স্টপ এর মাধ্যমে একটি ট্রেড থেকে ২০০-৩০০পিপস প্রফিট করতে সক্ষম হবেন।


- ধন্যবাদ -

Abu Monsur, A H Royal and Mhafiz™ like this

Share this post


Link to post
Share on other sites

অনেক ধন্যবাদ, সুন্দর একটা ট্রেডিং স্ট্রেটিজি শেয়ার করার জন্য। আমরা অনেক ট্রেডারই আছি যারা হায়ার ইন্ডিকেটর দিয়ে ট্রেড করি কিন্তু ডেফল্ট যে ইন্ডিকেটর গুলো আছে সেগুলোর দিকে নজর দেয় না কিংবা গুরুত্ত দেয় না। কিন্তু মেটা ট্রেডারের যে সকল ইন্ডিকেটর আছে তার সমন্বয়ে অনেক সুন্দর স্ট্রেটিজি তৈরি করা যায় এবং ভালো ট্রেড করা যায়। 

A H Royal, Mhafiz™ and tanvirbd like this

Share this post


Link to post
Share on other sites

Thanks for sharing.Is there any instructional post on how to use the default indicators properly?

Share this post


Link to post
Share on other sites

টপিকটিতে মন্তব্য করতে সাইন ইন করুন অথবা নতুন একাউন্ট করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই মেম্বার হতে হবে

একাউন্ট করুন

খুব সহজে একাউন্ট করুন


নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন

সাইন ইন

ইতিমধ্যে একাউন্ট করেছেন ? সাইন ইন করুন


এখনি সাইন ইন করুন

  • Similar Content

    • By A H Royal
      বন্ধুরা, স্ক্যাল্পিং সম্পর্কে সবাই কম বেশী জানেন, তারপর ও আর একটু ধারনা দিই- স্বল্প সময়ে একাধিক বার স্বল্প পিপস প্রফিট/লস এ ট্রেড করার মানেই হল স্ক্যাল্পিং। স্ক্যাল্পিং ট্রেড এ প্রফিট/লস খুব কম হলেও এটা সারা বিশ্ব জুড়েই জনপ্রিয় এবং এজন্যই বিশ্বের অনেক ট্রেডারই স্ক্যাল্পিং করতে ভালোবাসেন। তবে অনেক নতুন ট্রেডার অভিজ্ঞতার অভাবে স্ক্যাল্পিং করতে গিয়ে সর্বস্বান্ত হয়। তাই আজকে আপনাদের সাথে স্ক্যাল্পিং ট্রেড নিয়ে কিছু আলোচনা শেয়ার করবো।
       
      স্ক্যাল্পিং এর সুবিধাসমূহঃ
      স্বল্প টাইম ফ্রেম এ প্রত্যেক ক্যান্ডেল পর পর ট্রেড ওপেন করে প্রফিট নেয়া যায়।   স্বল্প সময়ে লাভ/লস নির্ধারণ হয় বলে লাভ/লস এর জন্য অধিক সময় বা দিন অপেক্ষা করতে হয়না। মার্কেট এ বিশাল মুবমেন্ট না থাকলেও একাধিক বার স্ক্যাল্পিং করে দৈনিক মোটামুটি ভালো পিপস লাভ করা যায়। একাধিক বার ট্রেড করে লাভ শূন্যতে (ব্রোকার স্প্রেড দিয়ে) আসলে ট্রেড ক্লোজ করে নিজের এ্যাপিলিয়েট এ ভাল কমিশন নেয়া যায়। নরমাল ট্রেডিং স্টাইল এ যা সম্ভব নয়। উদাহরণস্বরূপ-আপনি আপনার ১০০০$ এর একাউন্ট এ নরমালি দৈনিক ১-৩ভলিউম ট্রেড ওপেন এবং ক্লোজ করেন আর যদি স্ক্যাল্পিং করেন তাহলে ১০-২০ভলিউম করতে পারবেন কারণ আপনি যখন স্ক্যাল্পিং করবেন তখন আপনি ৩-৫পিপস এর বেশী লাভের চিন্তা করবেন না। স্ক্যাল্পিং করলে আপনাকে সারাদিন ট্রেড এ সময় দিতে হবে না। এ রকম আরো সুবিধা আছে যা এখন হয়তো আমার নলেজ এ আসছে না।
       
      স্ক্যাল্পিং এর অসুবিধাঃ
      আমার দেখামতে, স্ক্যাল্পিং এর সবচেয়ে বড় অসুবিধা হল-স্টফ লস ছাড়া যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা হুট করে বিশাল লস এর সম্মুখীন হন। দু-একটি ট্রেড এ প্রফিট নেয়ার পর ট্রেড এর প্রতি ওভার-কনফিডেন্স চলে আসা। যা একাধিক ট্রেডার এর ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। যার ফলাফল পরবর্তীতে খারাপ হয়। নিজের এ্যাপিলিয়েট এ কমিশন নেয়ার জন্য একসাথে অনেক বড় ভলিউম এ ট্রেড ওপেন করে নিজের একাউন্টকে ঝুঁকির দিকে নিয়ে যাওয়া। উপরের সুবিধা ও অসুবিধাগুলো পড়ে এতক্ষণে অবশ্যই বুঝতে আপনার কষ্ট হয়নি যে, স্ক্যাল্পিং এ অসুবিধাগুলো আমরা নিজেরাই তৈরি করি যা আমাদের করা উচিৎ নয়। তাহলে বুঝতেই পারছেন যে স্ক্যাল্পিং এ সুবিধাই বেশী।
       
      যেহেতু স্ক্যাল্পিং এ সুবিধা বেশী সেহেতু আপনারা কিভাবে স্ক্যাল্পিং করবেন আমার এ ছোট্ট অভিজ্ঞতা থেকে তাই বলিঃ
      ১৫/৩০ মিনিট টাইম ফ্রেম বাঁচাই করুন। বা আরো স্বল্প ও নির্দিষ্ট একটি টাইম ফ্রেম বাছাই করুন যে টাইম ফ্রেম এ আপনি সহজেই এনালাইসিস করে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।   ব্রোকার স্প্রেড কম এমন যেকোনো একটি (মেজর) পেয়ার বাঁচাই করুন। পেয়ারটিতে যেন সারাদিনে গড়ে অন্তত ৩০পিপস মুভমেন্ট থাকে। যেমনঃ EURUSD, GBPUSD. চার্ট পরিস্কার রাখুন, যেন সব কিছু পরিস্কার দেখতে পান। তবে এজন্য আপনি ফ্রেক্টাল, প্যারাবলিক এ ধরনের ইন্ডিকেটর ব্যবহার করতে পারেন। তবে সব সময় আগে নিজের এনালাইসিসকে গুরুত্ব দিন। আপনার বাছাইকৃত টাইম ফ্রেম এ একটি ক্যান্ডেল শেষ হলেই ট্রেড এর সিদ্ধান্ত নিন। ট্রেড ওপেন করার আগে লক্ষ রাখবেন যে বিগত ক্যান্ডেল্-টির আঁকার যেন নুন্যতম ৫পিপস হয়। টেক-প্রফিটঃ ৩-১০ পিপস টেক প্রফিট দিন। বা আপনি আপনার এনালাইসিস মতে দিন।  তবে আমার মতে, স্ক্যাল্পিং এর ক্ষেত্রে ৩-৫পিপস প্রফিট আসলে আরো প্রফিট এর অপেক্ষা না করাই ভালো। স্টফ লসঃ আপনি যে ক্যান্ডেল এ ট্রেড ওপেন করেছেন বাই এর ক্ষেত্রে তার আগের ক্যান্ডেল লো এর ৩পিপস নিচে ও সেল এর ক্ষেত্রে  আগের ক্যান্ডেল হাই এর ৩পিপস উপরে দিন। আর যদি কেউ স্টফ লস ছাড়া স্ক্যাল্পিং ট্রেড করে থাকেন তাহলে ট্রেন্ড লাইন কে বেশী গুরুত্ব দিয়ে ট্রেড ওপেন করবেন। নতুবা দুর্ভাগ্যবশতঃ একাউন্ট এর অকাল মৃত্যুই আপনার প্রাপ্য হতে পারে। যেকোনো নিউজ পাবলিশ আওয়ার এ স্ক্যাল্পিং ট্রেড থেকে বিরত থাকা ভালো। আর অবশ্যই মানি ম্যানেজমেন্ট করে স্ক্যাল্পিং ট্রেড করবেন তা না হলে  ৫টি ট্রেড করে যা আয় করবেন ১ট্রেডেই হয়তো তার বেশী লস দিবেন। স্ক্যাল্পিং ট্রেড এর একটি চিত্র দেওয়া হলঃ
       

       
       
      ট্রেডপ্রিয় বন্ধুরা, স্ক্যাল্পিং সম্পর্কে আমি যতটুকু জানি চেষ্টা করেছি আপনাদের সাথে ভালোভাবে ততটুকু শেয়ার করার, তবে হয়তো ভালো করে গুচিয়ে বলতে পারিনি। ভুল হলে কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাবেন শুধরাবার চেষ্টা করবো আর স্ক্যাল্পিং ট্রেড সম্পর্কে আপনার আইডিয়া গুলো আমাদের সাথে শেয়ার করবেন। মনে রাখবেন আপনার ছোট্ট আইডিয়া থেকে হয়তো কারো অনেক বড় উপকার হতে পারে।
       
      ধন্যবাদ সবাইকে।
    • By Mhafiz™
       
      ডেইলি সুইং চার্ট অনুসারে AUD/USD  ডাউন ট্রেন্ড , যদিও মোমেনটাম উর্ধগতিতে প্রাইস .৬৬৮৮ পর্যন্তও পৌঁছে একটা বটম রিভার্সেল এর সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে।  আবার মুল রিট্রেসমেন্ট জোন থেকে যদি শক্তিশালী হতে থাকে তাহলে তা .৭০৮০ পর্যন্তও হায়ার হওয়ার সম্ভাবনা রাখে।



      বিপরীতভাবে AUD/USD মাইনর ট্রেন্ড কিন্তু আপ এই ক্ষেত্রে এই কারেন্সির এই সপ্তাহের মুল রেঞ্জ হল .৬৬৮৮ থেকে .৭০৮০ এবং রিট্রেসমেন্ট জোন হল .৬৬৮৫ থেকে .৬৯২৭ এবং এটাই হল AUD/USD   এর নেক্সট আপ সাইড ট্রেডিং;

      শুক্রবারের মার্কেট .৬৬৫০ এর ক্লোজ অনুসারে ট্রেন্ডিং ট্রেডারদের ট্রেডিং জোন .৬৬৮০ পর্যন্ত রিচ করবে আশা করা যায়।

      এই সপ্তাহের বুলিশ ট্রেডিং ফোরকাস্টঃ  শক্তিশালী মুভমেন্ট যদি .৬৬৮০ কে ক্রস করে তাহলে বুঝতে বায়ার প্রেসেন্স স্ট্রং এবং হায়ার মোমেন্টাম পরবর্তী টার্গেট .৬৯২৭ ।

      বেয়ারিশ ফোরকাস্টঃ বিপরীত ভাবে .৬৬৮০ এর নিম্নগামী গতি প্রকাশ করবে বায়ার থেকে  সেলার প্রেসার হাই।  যার পরবর্তী মুভ .৬৭৭০ পর্যন্তও হতে পারে।

           

       

    • By bmfxanalyst
      আজ আমরা GBPUSD পেয়ার নিয়ে একটু পর্যালোচনা করি।
      মাঝারি মানের টাইম ফ্রেম নিয়ে এই পেয়ারটির দিকে একটু দেখলেই আমরা ভাল একটা সম্ভাবনা দেখতে দেখতে পাই। নিচের চার্টের দিকে একটু লক্ষ্য রাখুনঃ

      আমরা দেখতে পাচ্ছি মার্কেট এই বছরের জানুয়ারী মাসের টপ থেকে শুরু হওয়া একটা ডাউনট্রেন্ডকে  টাচ করেছে একতি পিনবারের মাধ্যমে। 
      আবার দেখতে পাই, এ বছরেরই মার্চ মাসের বটম লাইন থেকে শুরু হওয়া একটা আপ ট্রেন্ডকে ব্রেক করে অনেকটা রিটেস্ট করেছে সেই পিনবারের মাধ্যমেই!
      খুব সহজেই আমরা তাহলে কি দেখতে পাচ্ছি? 
      বড় কোন সমস্যা না হলে মার্কেট এরপর ইনসাইড বা পিনবারকে আরও স্ট্রং করে দেয়, এমন কোন কনফার্মেশন দেখাতে পারলে অনেকটা নিশ্চয়তা পাওয়া যায় যে, মার্কেট নিচের দিকে নেমে যেতে পারে। এবং নিচে নেমে এ বছরের ফেব্রুয়ারী মাসের বটম লেভেল থেকে শুরু হওয়া আপট্রেন্ডের লাইনকে স্পর্শ করতে পারে। 
      সুতরাং, কনফার্মেশন পেয়ে গেছেন কি ইতোমধ্যে? তাহলে দেরী কেন? সেট আপটা নিয়ে নিন। 
      আর যদি এখনও কনফার্মেশন না পেয়ে থাকেন, তাহলে অপেক্ষা করুন, এরপর কনফার্মেশন সিগনাল পেলেই সেট আপ নিতে ভুলবেন না।
      সকলের সাফল্য কামনা করছি। ধন্যবাদ 
      => => => আমি চেষ্ঠা করছি রেগুলার বিডিফরেক্সপ্রো সাইটে আমার ট্রেড এনালাইসিস আপনাদের সাথে শেয়ার করতে। এই লেখাটি আপনি আপনার ফেসবুক গ্রুপ, ফেসবুক ওয়ালে বা আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন যাতে সকলেই সামান্য হলেও উপকৃত হতে পারে। সকলের সাফল্য কামনায়।
      আমার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়েও আমার সঙে থাকতে পারেন। ফেসবুক পেজ লিঙ্কঃ  bmfxanalyst
    • By sgtsajir
      The principle point of all analysis is deciding the minutes when merchants ought to open and close their positions, expanding their benefits simultaneously. Crucial and technical analyses supplement each other in numerous angles. Technical analysis utilizes numerical and measurable techniques and tries to decide the course of the market, by which brokers will choose to offer or purchase a specific money match. 
      The essential instruments utilized as a part of technical analysis are price outlines alongside various pointers. Various techniques for graphs analysis and distinctive sorts of diagrams (line, bar, segment, point and figure, and light and so forth.) can be used. 
      Fundamental analysis is likewise utilized as a part of value markets to price the characteristic impart esteem and to contrast it with its reasonable price. Fundamental analysis depends on money related reports, monetary pointers, news from the budgetary world and market specialists' proposal – the remainder of which obviously makes it not exceptionally exact. 
      These two analyses are partitioned into numerous angles, nonetheless, they both depend on two separate data sources – technical analysis on past information construct and central analysis in light of assets in the monetary circumstances of a specific nation and imperative financial occasions.

    • By mdashik
      Having faced rejection at 50-day SMA resistance, the pair turned back below 38.2% Fibonacci retracement level of 1.3445-1.1980 downslide. Hence, weakness below Monday’s low support near 1.2440 level is likely to drag the pair below 1.2400 round figure mark support, towards last week lows support near 1.2350 region also nearing 23.6% Fibonacci retracement level
      On the upside, 1.2540-50 region (38.2% Fibonacci retracement level) remains immediate resistance to clear above which the pair is likely to make a fresh attempt towards retesting 50-day SMA hurdle, currently near 1.2635-40 region. A convincing move above 50-day SMA is likely to trigger short-covering rally immediately towards its next major hurdle near 1.2700 handle, marking 50% Fibonacci retracement level.

      Any Forex promotional news or offer visit here Best Forex Bonus