Bdforexpro.com will be sold with its all assets ! - (SEE DETAILS) Interested can Contact !

বিডিফরেক্সপ্রো' ফরেক্স সংক্রান্ত সব আলোচনা, মতামত এবং ফরেক্স শিক্ষা বিষয়ক এক উন্মক্ত এবং অনন্য স্থান। মান সম্মত আলোচনা, প্রতিনিয়ত গুরুত্তপুর্ন সব ট্রেডিং স্ট্রেটিজি এবং এনালাইসিসের মাধ্যমে সঠিক ট্রেডিং গাইডলাইন প্রদান বিডিফরেক্সপ্রো'র অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট। এই ফোরামে রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রী। পোস্ট এর পূর্বে অনুগ্রহ করে ফোরাম নিতিমালা গুলো পড়ে, বুঝে পোস্ট করুন। ধন্যবাদ;

MohabbatElahi

ব্রিটেনের ইইউ ত্যাগ ও ফরেক্স মার্কেটে এর প্রভাব বিষয়ক পর্যালোচনা

5 posts in this topic

M-Elahi%2BEU.jpg

ব্রেক্সিট কি ? ব্রেক্সিট শব্দটির বিশ্লেষন হচ্ছে ব্রিটেন+এক্সিট = ব্রেক্সিট,অর্থাৎ ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়া কে ব্রেক্সিট বলে বুঝানো হয়

ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ হচ্ছে মূলত ২৮ জাতির জোট কিন্তু ২৩ জুন বৃহস্পতিবার ব্রেটেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তরভুক্ত হয়ে থাকা না থাকা বিষয়ে ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে যা পাল্টে দিতে পারে যে কোন সমীকরন

অর্থাৎ এই ভোটে ব্রিটেন ইউরোপ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার বিষয় টি নিশ্চিত হলে এটি হবে ব্রিটেনের অর্থনীতি ও সমাজ নীতির জন্যে বড় ধরনের হুমকি

পাশাপাশি এ সিদ্ধান্তে ইউরোপী ইউনিয়নও প্রচুর ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে,কারন এতে করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত অন্য সব দেশও ব্রিটেনের পথে হাঁট তে পারে এবং সময়ের ব্যবধানে সমগ্র ইউরোপ ভেঙ্গে কয়েক ভাগে ভাগ হয়ে যেতে পারে

ঠিক এ আশংকা থেকে জি-৭ সম্মেলনে অংশ গ্রহন কারী বিশ্ব নেতৃবৃন্দ ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেন কে বের না হওয়ার বিষয়ে গুরুত্ব আরোপ করেন এবং সর্তকও করেন কিন্তু ব্রিটেনের অধিকাংশ জনগন মনে করেন তাদের ইইউ থেকে বেরিয়ে যাওয়া টা এখন সময়ের দাবি

ফরেক্স মার্কেটে এ ইভেন্টসের সম্ভাব্য প্রভাব ?

ফরেক্স মার্কেটে এ ইভেন্টসের সম্ভাব্য প্রভাব  আমরা কয়েক দিক থেকে মূল্যায়ন করতে পারি

  • এক- যদি ব্রিটেন ইউরোপ থেকে বেরিয়ে যায় তাহলে EUR মূদ্রা টি ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে, সে ক্ষেত্রে USD শক্তিশালী হবে
  • দুই- বৃটিশ পাউন্ডও চরম বিপর্যয়ে পড়তে পারে যা হয়ত মার্কিন ডলারের বিপরিতে বিগত দিনের সর্ব নিম্ম মূল্য ১.৩৮ নেমে আসতে পারে
  • তিন- ব্রিটেন ইউরোপে থেকে গেলে প্রথমিক পর্যায়ে পাউন্ড ১.৫২ পর্যন্ত উঠে আসতে পারে
  • চার- ব্রিটেন ইউরোপে থেকে গেলে ইউরো মূদ্রাটিও মার্কিন ডলারের বিপরিতে প্রাথমিক পর্যায়ে শক্তিশালী হয়ে ১.১৬ পর্যন্ত উঠে আসতে পারে
  • পাঁচ- আগামীকাল জুয়াড়ীদের প্রবেশের সম্ভাবনা থাকতে পারে যা পাল্টে দিতে পারে সকল হিষাব ও ধারনা কে কিন্তু তা হবে ক্ষনস্থায়ী

ট্রেড শতর্কতা ও আমাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা যতটুকু সম্ভব ট্রেড এড়িয়ে চলা ভাল, কিন্তু যদি মার্কেটে চেলেঞ্জ নিতে ভালবাসেন তবে ECN একাউন্ট হুলডারগন ট্রেড থেকে বিরত থাকবেন কারন এই ইভেন্টেসে আপনার চলতি ট্রেডে S/L প্রাইজ ওভার হয়ে গেলেও আপনার ট্রেড ক্লোজ হওয়ার সম্ভাবনা কম

লংপজিশন = লংপজিশন গ্রহনের ক্ষেত্রে দুটি প্রাইজে বাই লিমিট নেওয়া যেতে পারে যখা ১.৪৪০০ অথবা ১.৪০০০ , তবে উল্লেখ্য যে আপনার যথেষ্ট পরিমান পিপস হাতে নিয়ে ট্রেড নিতে হবে কারন এসএল ওভার হলেও যেন মার্কেটে টিকে থাকা যায়

শর্ট পজিশন= শর্ট পজিশন গ্রহনের ক্ষত্রে ১.৪৯০০ প্রাইজে এস এল সেট করে ১.৪৫ রেঞ্জ থেকে সেল স্টপ নেওয়া যেতে পারে অথবা ১.৪৯৫০ থেকে সেল লিমিটও নেওয়া যেতে পারে

মার্কেট সেন্টিমেন্টঃ সামগ্রিক ভাবে আমি USD কে সাপোর্ট করছি, তবে যারা উপেরোক্ত এনালাইসিস টি বুঝতে সক্ষম হয়েছেন তারা মার্কেটে প্রবেশ করতে পারেন কিন্তু সামগ্রিক ভাবে প্রবেশ না করা টি খুবই যুক্তিযুক্ত কারন আগামী কালের মার্কেট শুধু মাত্র প্রপেশনালদের জন্যে ইমোশনাল ও বিগেইনারদের জন্যে নয়

-------------------------------------------------

Md Mohabbat E Elahi

Analytical Expert: Forex & CFD Market.

Writer:The insider secret of global Forex Market.

Phone:+880-1936236148

 

Share this post


Link to post
Share on other sites

তথ্যমুলক এবং সময়পযোগী  পোস্টের জন্য ধন্যবাদ; আশা করছি অনেকের উপকার হবে; যেহেতু ব্রেক্সিট ভোটের উপর নির্ভর করবে বিশেষ করে GBP এর ভাগ্য উত্থান-পতন; আর কয়েক ঘন্টার মধ্যই শুরু হবে ভোট গ্রহন। এবং আগামিকাল দেখা যাবে লাইভ মার্কেটে এর ফলাফল তাই এই মুহূর্তে সকল GBP ট্রেডের ক্ষেত্রে সাবধানতা রেখা তৈরি করা রাখাটা খুব জরুরি। যাদের এই মুহূর্তে GBP ট্রেড ওপেন আছে বলা যাচ্ছে না আপনার ট্রেড আপনাকে কোথায় নিয়ে যায় , তাই বুদ্ধিমানের কাজ হচ্ছে সকল ট্রেডের স্টপ লস সেট করে দেওয়া যেন ট্রেড আপানার প্রতিকুলে গেলে আপনাকে মাঠে মারতে না পারে।  

Share this post


Link to post
Share on other sites

আমি ও একমত আপনাদের সাথে এই মুহূর্তে GBP/USD ট্রেড থাকলে ক্লোজ করে দিন অথবা স্টপ লস সেট করে নিন। এবং ধন্যবাদ ইলাহি ভাইকে গুরুত্তপুর্ন পোস্টের জন্য। আশা করি সব সময় এমন গুরুত্তপুর্ন এবং প্রফিট ট্রেডিং সহায়ক পোস্ট পাবো; ভালো থাকুন। আবারো ধন্যবাদ। 

Share this post


Link to post
Share on other sites

এনালাইসিস  পরবর্তিতে মার্কেট ফলাফল

সামগ্রিক ভাবে আমি মার্কিন ডলার কে সমর্থন করেছিলাম, সে দৃষ্টিকোন থেকে

.৪৯৫০ এর সেল লিমিট পজিশন থেকে মার্কেট পতন হয়েছে প্রায় ১৭০০ পিপস

.৪৫০০ রেঞ্জ থেকে সেল স্টপ পজিশন থেকে মার্কেট পতন হয়েছে প্রায় ১২০০ পিপস হিপী ট্রেডিং সাপ্তাহ... নিরাপদ হোক সবার ট্রেডিং .

Share this post


Link to post
Share on other sites

টপিকটিতে মন্তব্য করতে সাইন ইন করুন অথবা নতুন একাউন্ট করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই মেম্বার হতে হবে

একাউন্ট করুন

খুব সহজে একাউন্ট করুন


নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন

সাইন ইন

ইতিমধ্যে একাউন্ট করেছেন ? সাইন ইন করুন


এখনি সাইন ইন করুন

  • Similar Content

    • By habib07
      GBP/USD এর টেকনিক্যাল বিশ্লেষণ (৫ মে, ২০২০):

       বাজার বিশ্লেষণ: GBP/USD পেয়ার ইতোমধ্যে 1.2406 লেভেলে লোকাল লো তৈরি করেছে, যা 1.2397 এর ফিবানচি রিট্রাসমেন্ট লেভেলের একটু উপরে। উক্ত লেভেল ভেদ হলে প্রবণতা 1.2310 লেভেলের লক্ষ্যমাত্রায় চলমান থাকবে। এই লেভেলের কাছাকাছি স্বল্পমেয়াদি রেইসস্ট্যান্স লেভেল রয়েছে, ফলে উক্ত লেভেল অতিক্রম করা কঠিন হবে। দয়া করে লক্ষ্য করুন, বাজারে ওভারব্রোট লেভেল থেকে ফেরত এসেছে এবং মোমেন্টাম ইন্ডিকেটর নিরপেক্ষ ভূমিকায় রয়েছে। কিন্তু বিক্রি বৃদ্ধি হলে প্রবণতা 1.2246 এর দিকে চলমান থাকতে পারে।
      সাপ্তাহিক পিভট পয়েন্টসমূহ:
      WR3 - 1.2909
      WR2 - 1.2757
      WR1 - 1.2605
      সাপ্তাহিক পিভট - 1.2476
      WS1 - 1.2324
      WS2 - 1.2200
      WS3 - 1.2054
      ট্রেডিংয়ের পরামর্শ:
      করোনাভাইরাসের ভয় বিশ্বব্যাপী বিনিয়োগকারীদের মধ্যে প্রবলভাবে রয়েছে এবং তা অর্থ বাজারকে প্রভাবিত করছে। GBP/USD কারেন্সি পেয়ারে প্রধান প্রবণতা নিম্নমুখী, কিন্তু করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি হলে বিপরীত প্রবণতার সম্ভাবনা রয়েছে। দীর্ঘমেয়াদি গুরুত্বপূর্ণ টেকনিক্যাল সাপোর্ট লাইন ইতোমধ্যে ভেদ হয়েছে এবং নতুন সাপোর্টের অবস্থান 1.1404। দীর্ঘমেয়াদে টেকনিক্যাল রেসিস্ট্যান্সের অবস্থান 1.3518। যদি যেকোনো একটি লেভেল ভেদ হয়, তাহলে প্রবণতা বিপরীতমুখী হতে পারে (1.3518) বা সামনের দিকে (1.1404) চলমান থাকতে পারে। বাজার ইতোমধ্যে 1.2645 লেভেলে ডাবল টপ প্যাটার্ন তৈরি করেছে, সুতরাং দীর্ঘমেয়াদে প্রবণতা নিচের দিকে চলে আসতে পারে।
      *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না।
      বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে [URL=" http://bit.ly/37CKtwI"]এই লিঙ্কটি[/URL] ভিজিট করুন
    • By habib07
      RBA এর সিদ্ধান্তের পরে অস্ট্রেলিয়ান ডলারের আংশিক পতন

      প্রত্যাশা অনুয়ায়ি, অস্ট্রেলিয়া রিজার্ভ ব্যাংক তার বেঞ্চমার্ক ঋণ হার ০.২৫ শতাংশে অপরিবর্তিত রেখেছে। এই ঘোষণার পর, অস্ট্রেলিয়ান ডলারের তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী মুদ্রাগুলোর বিপরীতে আংশিক হ্রাস পেয়েছে ।
      ET সময় 12:34  am সময়ে  অস্ট্রেলিয়ান ডলার   ইয়েনের বিপরীতে 68.67, ইউরোর  বিপরীতে 1.6925,   ডলারে বিপরীতে , 1.0627 এবং নিউজিল্যান্ডের ডলারের  বিপরীতে 0.6440 তে ট্রেডিং হয়েছিল ছিল।
      আরো ফরেক্স সংবাদঃ  
    • By MohabbatElahi

      Fed's Monetary Policy Statement & Nonfarm Payrolls
      বিগত দিনের মত বরাবরই আজকে প্রকাশিত হবে Fed's Monetary Policy Statement ও ব্যাংক সূদের হার। নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শাসনামলের প্রথম Fed's Monetary Policy Statement হিসেবে আমাদের জন্য ইভেন্টসটি অনেক বেশি তাৎপর্যপূর্ন। তবে ফেডের মনিটরি পলিসি সহ গুরুত্বপূর্ণ অন্য তিনটি ইভেন্টস রয়েছে চলতি ট্রেডিং সাপ্তাহে
      যথা
      01) BoJ Monetary Policy Meeting Minutes 02) BoE Interest Rate Decision 03) Nonfarm Payrolls -
      কিন্তু মুদ্রাবাজারে এর প্রভাব কেমন পড়তে পারে সেটাই আমাদের বিবেচনা করতে হবে। কোন মুদ্রাটি কতটুকু প্রভাবিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, সে বিষয়ে ইকোনমি জার্নাল থেকে পরিসংখ্যান ভিত্তিক কয়েকটি Economical Events নিম্নে আলোচনা করছি।
      গত ১৬ ই ডিসেম্বর ২০১৫ সাল থেকে চলে আসা ব্যাংক সুদের হার ০.৫০% থেকে ফেড গত ১৪ ডিসেম্বর ২০১৬-তে ০.৭৫% বৃদ্ধি করেছিল।পাশাপাশি ফেডের প্রধান ইয়েলেন তার প্রেস কনফারেন্সে পুনরায় ২০১৭ অর্থ বছরে তা পর্যায়ক্রমে আরো তিন ধাপে বৃদ্ধির বিষয়েও স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছিলেন। সে হিসেবে ২০১৭ অর্থবছরের প্রথমাংশে অর্থাৎ আজ তারা কি ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধি করবে ?
      -
      এ সম্ভাব্য বিষয়টি পর্যালোচনা করতে আমরা যদি তাদের বিগত দিনের Economical ইভেন্টসের দিকে তাকায় তবে এটা পরিষ্কার যে মার্কিন অর্থনীতিতে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে বিগত দিনের তুলনায়।
      যেমন:
      ADP Employment Change যা ৫ জানুয়ারি ২০১৭- তে 170K থেকে 153K তে নেমে এসেছে (bearish).
      অপরদিকে US manufacturing sector এর ISM ৫৩.৫ থেকে ৫৪.৭-এ উন্নীত হয়েছে (Bullish) । অর্থাৎ US manufacturing sector-এর বিভিন্ন সেক্টরে যেমন future production, new orders, inventories, employment এবং deliveries সংক্রান্ত ISM সূচকটি সার্বিক ভাবে সুবিধা জনক অবস্থানে রয়েছে। সূতরাং উপরোক্ত দুটি ইভেন্টস মূল্যায়নে অনেকটাই মার্কিন ডলার স্বাভাবিক থাকবে যতক্ষণ না দুটিতেই বড় ধরনের পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয়।
      -
      পক্ষান্তরে যদি আমরা US labor department কর্তৃক প্রকাশিত Initial Jobless Claims এর দিকে তাকায় , তবে সে সেক্টরে তারা গত ২৬ জানুয়ারী ২০১৭ ভাল সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু NFP তে আবার ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে।কারন এ কী ইভেন্টসে তারা পছিয়েছে যদিও তাদের বেকারত্বের হার অপরিবর্তিত ছিল।যা একটি উর্ধমূখী ট্রেন্ড কে বাধা গ্রস্থ করে।এছাড়া তাদের সদ্য জিডিপিতেও তারা পিছিয়েছে। সূতরাং সার্বিক ইকোনমি মূল্যায়নে ফেড আজ কে ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধির বিষয়টি এড়িয়েও যেতে পারে এবং আরো একমাস তারা সার্বিক অবস্থার উন্নতির প্রতি দৃষ্টি আরোপ করতে পারে।
      -
      সে দৃষ্টিকোণ থেকে প্রফেসর ইলেয়েনের কাছ থেকে আজ ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধি না করে বরং এর সম্ভব্যতা নিয়ে সাধারন একটি ব্রিফ করার চেয়ে বেশি কিছু প্রত্যাশা করা যাচ্ছেনা। এছাড়া নবনিযুক্ত মার্কিন প্রেসিডেন্টের নতুন সরকার গঠন ও নির্বাচনি ব্যস্ততার ফলে চলতি ইভেন্টসে ইকোনমিতে তেমন কোন পরিবর্তনের সম্ভাবনা কার্যত দেখা যাচ্ছে না। যদিও বিষয়টি সম্ভাব্য।
      -
      সূতরাং চলতি ইভেন্টস সমূহ মার্কেটে কেমন প্রভাব ফেলতে পারে ?
      -/-------------------------------------------------------------------/-
      অবশ্যই মার্কিন ডলার দুর্বল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে যদি ফেড ভাল কোন অর্জন দেখাতে না পারে। তাছাড়া ট্রাম্পের বিভিন্ন রাষ্ট্রনীতি ও বক্তব্য কে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই মার্কিন ডলার অনেক চাপে আছে যা আমরা স্পষ্টতই ট্রেডিং মার্কেটে দেখতে পাচ্ছি। তারই প্রমান হচ্ছে ট্রাম্প নির্বাচিত হওয়ার সময় মার্কেট যেখান থেকে পরিবর্তন হয়েছিল ক্ষমতা গ্রহনের পর আবার ধীরে-ধীরে মার্কেট সে অবস্থানেই চলে আসছে। অর্থাৎ ট্রাম্প নির্বাচিত হলে মার্কিন ডলার পতনের যে গ্লোবাল সেন্টিমেন্ট ছিল, ক্ষমতা গ্রহনের পর ঠিকই তা প্রতিফলিত হয়েছে। এছাড়া মার্কিন নির্বাচন পরবর্তিতে সমগ্র বিশ্বে ট্রাম্প বিরোধী যে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে তা মার্কিন ডলার কে আরো বেশি দূর্বল করে দিতে সহায়তা করবে। কারন গ্লোবাল বিনিয়োগকারীরা ডলার রিজার্ভে ঝুঁকি নিতে চাইবেনা।

      {BoJ Monetary Policy Meeting Minutes & BoE Interest Rate Decision }


      চলতি সাপ্তাহে ব্যাংক অব জাপানের ব্যাংক সূদের হার ঘোষণা হওয়ার পাশাপাশি মনিটরি পলিসিও ছিল। তবে মনিটরি পলিসিতে তেমন কোন বিশেষত্ব পরিলক্ষিত হয়নি। সম্ভবত তারা মার্কিন ডলারের চাপে থাকাটি কি আরো কয়েক মাস পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তি সিদ্ধান্ত গ্রহন করবে। যদিও বর্তমানে জাপানিস মূদ্রা অনেকটাই রিকভার করতে সক্ষম হয়েছে।
      অপরদিকে পাউন্ড মার্কেটও অনেক সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে। বিশেষ করে হার্ড-ব্রেক্সিট পরবর্তিতে পাউন্ড মার্কেট কিছুটা প্রাণ ফিরে পেয়েছে বলে মনে হচ্ছে। পাশাপাশি তাদের বিগত দিনের কিছু Economical ইভেন্টসসে ইউরো জোনের সাথে থাকা না থাকার মত গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু সহ বিভিন্ন অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মধ্যেও তারা সার্বিকভাবে মন্থর গতিতে এগিয়েছে। সে হিসাবে আগামীকাল পাউন্ডের ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধির কিছুটা সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। যদিও প্রত্যাশাটি বেশি হয়ে যাবে।
      এছাড়াও থেরেসা মে উন্মুক্ত বাণিজ্য করনের লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাথে যোগাযোগ বৃদ্ধি করে চলেছে। তিনি প্রত্যাশা করছেন বৃটেন একটি বনিকের দেশ হিসেবে তাদের আগের পরিচিতি ফিরে আসুক যা অনেক চ্যালেঞ্জিং। তবে তার চোখে মুখে কিছুটা তৃপ্তির ভাব বা আত্মনির্ভর হওয়ার যে ছাপ পরিলক্ষিত হচ্ছে তা কিন্তু বৃটিশ অর্থনীতির জন্য অনেক বেশি পজিটিভ।যদিও এর জন্য অনেক পথ তাদের পাড়ি দিতে হবে।
      -
      চলতি ইভেন্টস সমূহ কে কেন্দ্র করে সার্বিক মূল্যায়নে আমি মার্কিন ডলারের বিপক্ষে থাকার সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে। পাশাপাশি ভোলাটিলিটি বিবেচনায় নতুনদের জন্য চলতি সাপ্তাহের চেয়ে আগামী সাপ্তাহ কে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। সূতরাং মার্কেট বিশ্লেষনে যারা অনভিজ্ঞ তাদের জন্য আগামী সাপ্তাহে ট্রেড করাটি অনেক বেশি নিরাপদ । কারন চলতি ইভেন্টস সমূহে মার্কেট প্রেডিক্ট করা অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং যা কেবল প্রফেশনাল ট্রেডারদের পক্ষেই সম্ভব। সূতরং যারা মার্কেট চ্যালেঞ্জে বিজয় হতে চান, তাদের জন্য ডিফেন্সিভ ওয়ে-তে অগ্রসর হওয়া খুবই যুক্তিযুক্ত হবে বলে মনে করছি।
      ----------------------------------------------------
      Md Mohabbat E Elahi
      Analytical Expert: Global Forex Market
      Admin: Forex Training center in Bangladesh
    • By MohabbatElahi

      চলতি সাপ্তাহের শেষ দুই দিন অর্থাৎ ১৬ এবং ১৭ ই জুন বিশ্বের বৃহত্তম Currency Market-এ বড় ধরনের পরিবর্তনের সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে, চলতি সাপ্তাহের শেষ দুই দিনে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে US Dollar,British pound,Japanese Yen ও Swiss franc-এর গুরুত্বপূর্ন Economical Key Events Bank interest rate. যা পরিবর্তন করে দিতে পারে Major ও Cross Major অনেকগুলো মূদ্রার ভাগ্য৤
      কেমন প্রভাব পড়তে পারে মুদ্রা বাজারে ?
      মার্কিন ডলারের বিপরিতে বর্তমানে ‍British Pound অবস্থান করছে সর্ব নিম্ম মূল্যে যা বিগত ৬ বছরের সর্ব নিম্ম রেট, অর্থাৎ ১.৪১
      অপর দিকে মার্কিন ডলার পতনে আছে Japanese Yen-এর বিপরিতে যা বিগত তিন বছরের সর্ব নিম্ম রেট অর্থাৎ ১০৬.২৯
      কিন্তু তুলনামূলক সুবিধা জনক অবস্থানে রয়েছে অন্যসব মূদ্রাগুলো৤ যেমন Euro,Australian dollar ও Canadian dollar সমূহ৤
      কিন্তু যে সব মূদ্রা বর্তমানে মার্কিন ডলারের বিপরিত সুবধা জনক অবস্থানে রয়েছে আমরা সেসব মূদ্রাগুলোতে প্রবেশ না করে Market Monitoring করতে পারি এবং এটি সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহনে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করবে৤ কারন এসব মুদ্রাগুলো বর্তমানে Resistance ও Support উভয় লেভের মাঝামাঝিতে অবস্থান করছে৤ সূতারং ভাল একটি Ratio পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম৤ যা সাধারনত পাউন্ড ও জাপানিস মুদ্রা তে পাওয়া যাচ্ছে৤
      তাই Trading মার্কেটে প্রবেশের ক্ষেত্রে সামগ্রীক ভাবে গুরুত্বপূর্ন এই Economical Events-এ আমরা Pound ও Japanese Yen সম্পর্কিত মূদ্রা গুলো কে সব চেয়ে বেশি প্রাধান্য দিতে পারি Technical অবস্থান থেকে ৤ যেমন GBP/USD,USD/JPY, GBP/JPY etc....
      তবে উল্লেখ্য যে যারা ফান্ডামেন্টাল ও টেকনিকেল দুই এনালাইসিসের সমন্নয় করতে অক্ষম তাদের ক্ষেত্রে উচিত হবে চলতি ইভেন্টেসে মার্কেট এড়িয়ে চলা৤
      ---------------------------------------------------
      Md Mohabbat E Elahi
      Analytical Expert: Forex & CFD Market.
      Writer: The Insider secret of global Forex Market.
      Phone: +880-1936236148
    • By MohabbatElahi
      জুন ২০১৬ এর প্রথম সাপ্তাহে Europ central bank interest rate ও Forex Market-এর গুরুত্ব পূর্ন Economical key event যথা NFP ( Nonfarm payrolls) সহ গুরুত্ব পূর্ন কয়েকটি Key events ঘোষনা হতে যাচ্ছে৤ সে দৃষ্টিকোন থেকে সাপ্তাহের শেষ দুই দিন খুবই গুরুত্বপূর্ন হয়ে উঠেছে বিশ্বের বৃহত্তম এই Trading market player-দের কাছে৤
      ------------------
      বিগত দিনগুলোর মতই ইউরোপিয় ইউনিয়নের Economy position ধারাবাহিক ভাবে দূর্বল অবস্থায় রয়েছে, ফলে EUR এর বিপরিতে US Dollar ক্রমাগত শক্তিশালী অবস্থান ধরে রেখেছে, তবে উল্লেখ্য যে চলতি সাপ্তাহে ইউরো জোনের কিছু টা পজিটিভ পরিবর্তন পরিলক্ষিত হচ্ছ
      EURO Economy position
      ------------------------------------
      ০১) যেমন Market Manufacturing PMI এই Key Events-এ Spain, Italy, France, Germany, Greece এর গড় performance 50% এর উর্দ্ধে যা Euro bullish economy কে Present করছে,
      (বিঃদ্রঃMarkit Manufacturing PMI এই key event-এ বর্তমানে মার্কিন ডলারও বুলিশ পজিশনে রয়েছে)
      ০২) অপর দিকে সাপ্তাহের শুরুতে Unemployment Change এই ইভেন্টে জার্মান বুলিশ পজিশন তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে, Previous-16K, Consensus-5K, Actual-11K ( better than expected result -6K),
      ০৩) এছাড়া ইউরোপিয় ইউনিয়ন গ্রীসের ঋণ মওকুফের অনুমোদন দিয়ে বড় ধরনের অর্থনৈতিক সাফল্য অর্জনের সম্ভাবনা তৈরি করেছে, ফলে চলতি সাপ্তাহে Euro bank interest rate increase না হলেও তুলনা মূলক ভাবে আমরা ইউরোর কিছুটা পরিবর্তনের সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছি
      US Dollar Economy position.

      বিপরিতে US Dollar-এর বিশেষ কিছু Economical Events যেমন
      ADP Employment Change (previous: 156K, Consensus: 178K (Bullish sentiment).
      Initial Jobless Claims - Previous: 268K, Consensus: 270K (Bearish sentiment).
      Unemployment Rate- Previous: 5%, Consensus: 4.9% (Bullish sentiment).
      Nonfarm Payrolls- Previous: 160K, consensus: 161K (Bullish sentiment).
      মার্কেট সেন্টিমেন্ট
      ----------------------
      Technical & Fundamental অবস্থান থেকে মার্কেট পরিবর্তনের সম্ভাবনা কতটুকু?
      Technical অবস্থান থেকে মার্কিন ডলার একটি সমান্তরাল অবস্থানে রয়েছে, তবে দীর্ঘ উর্ধ গতির ফলে আমরা মার্কিন ডলার কে মূল্যায়ন করতে পারি, এবং ফান্ডামেন্টালও মার্কিন ডলার কে সাপোর্ট করছে৤ কিন্তু বিপরিতে যদি মার্কিন ডলার Key events এ উল্যেখ যোগ্য পরিবর্তন না হয় সে ক্ষেত্রে EUR,AUD,CHF,CAD-এ আমরা রিভার্সেল ট্রেডে যেতে পারি, তবে তা হতে হবে স্লো রেসিওতে কারন মার্কেট চেনেল কন্ফার্ম না হওয়া পর্যন্ত ট্রেড ফলপ্রসু হওয়ার সম্ভাবনা নেই৤
      -------------------------------------------------------
      Md Mohabbat E-Elahi
      Analytical Expert: Forex & CFD Market.
      Phone:+880-1936236148
      Currency: USD- Daily.