Jump to content

Bdforexpro.com will be sold with its all assets ! - (SEE DETAILS) Interested can Contact !

বিডিফরেক্সপ্রো' ফরেক্স সংক্রান্ত সব আলোচনা, মতামত এবং ফরেক্স শিক্ষা বিষয়ক এক উন্মক্ত এবং অনন্য স্থান। মান সম্মত আলোচনা, প্রতিনিয়ত গুরুত্তপুর্ন সব ট্রেডিং স্ট্রেটিজি এবং এনালাইসিসের মাধ্যমে সঠিক ট্রেডিং গাইডলাইন প্রদান বিডিফরেক্সপ্রো'র অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট। এই ফোরামে রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রী। পোস্ট এর পূর্বে অনুগ্রহ করে ফোরাম নিতিমালা গুলো পড়ে, বুঝে পোস্ট করুন। ধন্যবাদ;

Recommended Posts

US Dollar এর উর্ধ্বগতি  VS Others কারেন্সি ট্রেডিং Now.

 

ফরেক্স মার্কেটে US Dollar অনেক কারেন্সির বিরুদ্ধে ঝড়ের গতিতে ছুটছে, যা অনেক ট্রেডারকেই বিপদের সম্মুখীন করছে, বিশেষ করে যারা US Dollar এর বিপরীতে ট্রেড করেছেন বা এখনো ট্রেডে আছেন। মেজর পেয়ারগুলোতে US Dollar এর আধিপত্য এখন তুঙ্গে। তাই যেসব পেয়ারে US Dollar তার আধিপত্য বিস্তার করে আছে (EUEUSD, GBPUSD, AUDUSD, NZDUSD USDJPY) তাদের কতিপয় কারেন্সিতে এখন US Dollar এর বিপরীতে ট্রেড করার সময় হয়ে এসেছে, তাহলে আসুন জেনে নেই বর্তমানে এই মেজর পেয়ারগুলো কোন দিকে মুব করলে কিভাবে ট্রেড করবো।

 

post-1088-0-96865300-1411641953_thumb.jp

 

EUEUSD : পেয়ারটি সকল ট্রেডারেরই পছন্দের একটি পেয়ার কিন্তু বিগত চার মাস ধরে পেয়ারটি ১.৩৯৯০ থেকে কয়েকটি স্ট্রং সাপোর্ট আর অনেক ট্রেডারের এ্যনালাইসিসের বাঁধ ভেঙ্গে বিগত বছরের এপ্রিল ও জুন মাসের ডাবল বটম লেভেল ১.২৭৫৫ ক্রস করে বর্তমানে ১.২৭৩০ এ অবস্থান করছে এবং ১.২৬৬০-১.২৬০০ (২০১১ ডিসেম্বরের স্ট্রং সাপোর্ট মুল্য) পেয়ারটির আগামী স্ট্রং সাপোর্ট লেভেল আর ১.২৮০০-১.২৯০০ কে আগামী রেসিস্টেন্স লেভেল হিসেবে চিন্তিত করা যায়। যদি আপনি পেয়ারটিতে এই মুহূর্তে লং ট্রেড করতে চান তাহলে করতে পারেন তবে অবশ্যই স্টপ লস ১.২৬০০ দিন বা একটি সুবিধাজনক রেট এ লং ট্রেড করার জন্য আরেকটু অপেক্ষা করতে পারেন, তা হল ১.২৭০০ মুল্য ক্রস করে নিচে নামলেই ১.২৬৬০ এর উপরে যে কোনো মুল্যে  লং/বাই ট্রেড এ এন্ট্রি দিন। ১.২৬৬০ মুল্যের উপরে লং/বাই ট্রেড এ এন্ট্রি নেওয়ার নির্দিষ্ট একটি কারণ হলো বিগত তিন বছরে ১.২৬০০-১.২৬৬০ মুল্যে মার্কেট অনেকবারই এসেই আবার পুরোদমে বাই এ চলে গেছে তবে           পেয়ারটি ২০১২ এর জুন মাসে ১.২৬৬০ সাপোর্টটি ক্রস করার পর এর মুল্য ১.২০০০ এ এসে দাঁড়ায়, তাই যদি দুর্ভাগ্যবশতঃ পেয়ারটি ১.২৬০০ ক্রস করে নামতে থাকে তাহলে সেল ট্রেড এ এন্ট্রি দিতে পারেন।

 

GBPUSD : পেয়ারটিও অনেক ট্রেডারদের প্রিয় ট্রেডিং পেয়ারের একটি, কিন্তু এটিও বিগত তিন মাস ধরে ১.৭১৮০ মুল্য থেকে ক্রমেই সেল এর দিকে ধাবিত হচ্ছে এবং ১.৬২৭৫ পর্যন্ত সেল এ গিয়ে বর্তমানে ১.৬৩১০মুল্যে মাসিক চার্টে হ্যামার ক্যান্ডেল তৈরির প্রক্রিয়ায় আছে, তাই পেয়ারটিতে টেকনিক্যাল এ্যনালাইসিসমতে এখন লং/বাই ট্রেড এ এন্ট্রি দেওয়া যায় এক্ষেত্রে স্টপ লসের জন্য ফলো করুন ডিসেম্বর২০১৩ এর সাপোর্ট মুল্য  ১.৬২০০কে, তবে আরকেটি কাজ করতে পারেন পেয়ারটির মুল্য ১.৬১০০এর কাছাকাছি বা তার নিছে নামলে ১.৬০৫০ এর উপরে যেকোনো মুল্যে স্বল্প স্টপ লসে (১.৬০০০০) লং/বাই ট্রেড এ এন্ট্রি দিতে পারেন, আর যদি ১.৬০৫০ মুল্য ক্রস করে পেয়ারটি সেল এ যায় তাহলে নবেম্বর২০১২ ও সেপ্টেম্বর, অক্টোবার২০১৩ এর সাপোর্ট মুল্য ১.৫৮৫০ এর কাছাকাছি আসতে পারে।

 

AUDUSD : পেয়ারটিও ট্রেডারদেরকে কম নাচায়নি, চলতি মাসের আগের পাঁচ পাঁচটি মাস একটি নির্দিষ্ট গন্ডির মধ্যে(১৪০পিপ্স) ঘুরপাক করেছে এবং অনেক ট্রেডারের এ্যনালাসিসকে ফলস করে দিয়ে ট্রেড লস এ লক করে পেলেছে (যারা স্টপ লস ছাড়া ট্রেড করেন)। আপনি যদি পেয়ারটি মাসিক চার্টে দেখেন তাহলে আমার কথাগুলো বুঝবেন। চলতি মাসের প্রথম দিকেই পেয়ারটি ০.৯৪০০ থেকে হুট হুট করে বর্তমানে ০.৮৮১০ মুল্যে প্রায় ছয়’শ পিপ্স সেলে নামে, যা আসলেই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার মত, তবে আমার মতে পেয়ারটিতে লং/বাই ট্রেড করার সময় হয়ে এসেছে কারণ পেয়ারটির বর্তমান মুল্য(০.৮৮১০) ডিসেম্বর২০১৩ এর লো রেট(০.৮৬৫৯) এর কাছাকাছি। মাসিক ট্রেডার রা অবশ্যই এখন পেয়ারটিতে বাই ট্রেড এ এন্ট্রি দিবেন তবে পেয়ারটির মার্কেট মুল্য ০.৮৭৫০ এর কাছাকাছি আসলে এবং স্টপ লস হিসেবে  জানুয়ারী২০১৪ এর লো রেট ০.৮৬৫০ দিন আর যদি পেয়ারটি .০৮৬৫০ মূল্যও ক্রস করে সেল ধাবিত হয় তাহলে ধরে নিন পেয়ারটি ফেব্রুয়ারী২০১০ এর লো রেট ০.৮৫০০ পর্যন্ত যেতে পারে।           

 

NZDUSD : এই মেজর পেয়ারটিও বিগত তিন মাস ধরে ০.৮৮৩৮ মুল্য থেকে একচেটিয়া সেলে প্রায় ৯০০পিপ্স নেমে আসে যা অনেক ট্রেডারের-ই অকল্পনীয়। অকল্পনীয় হবেই বা না কেন! কারণ যেখানে একটার পর একটা স্ট্রং সাপোর্ট ও ডাবল বটম আছে সেখানে এভাবে একচেটিয়া সেল কি করে সম্ভব কিন্তু পেয়ারটি কোনো স্ট্রং সাপোর্টকে তোয়াক্কা না করেই একচেটিয়া সেলে নামতেই থাকে, তবে এখন সময় হয়েছে পেয়ারটিতে লং/বাই এ ট্রেড করার, কারণ পেয়ারটির বর্তমান মুল্য ফেব্রুয়ারী২০১২ এর কাছাকাছি এবং এ মুল্যে মার্কেট বিগত কয়েক বছর ধরে এসেই ফিরে যায়। তাই পেয়ারটিতে ০.৭৮০০-০.৭৮৫০ এর মধ্যে যেকোনো মুল্যে বাই করতে পারেন তবে এই মুল্যে বাই করলে স্টপ লস অবশ্যই জুন-সেপ্টেম্বর২০১৩ এর লো রেট ০.৭৬৫০ দিন, আর যদি পেয়ারটি জুন-সেপ্টেম্বর২০১৩ এর লো রেট ০.৭৬৫০ ক্রস করে সেলে নামে তহলে ধরে নিন পেয়ারটি ০.৭৬৫০ মুল্য থেকে আরো ১৫০-২০০পিপ্স সেলে নামবে।

 

USDJPY : কচ্ছপ গতির দূরদর্শী JPY কারেন্সির এই পেয়ারটি বিগত আগস্ট ও সেপেটেম্বর এর এ সপ্তাহের মধ্যে হাটি হাটি পা পা করে ১০১.৫০ থেকে বর্তমানে বাই এ ১০৯.২৬ মুল্যে অবস্থান করছে যা প্রায় ৮৫০পিপ্স এর মত, আশ্চর্য না? হ্যাঁ, আশ্চর্যই তো, এই মেজর পেয়ারটির যে গতি তা দেখে কখনো কারো মনে হবেনা যে পেয়ারটি একচেটিয়া এত দূর পর্যন্ত আসতে পারে। পেয়ারটি যদি বর্তমান দৈনিক রেসিস্টেন্স ১০৯.৪৫ ক্রস করে উপরে যায় তাহলে পেয়ারটি ২০০৮এর হাই রেসিস্টেন্স রেট ১১০.৬০ পর্যন্ত যাওয়ার পসিবিলিটি আছে তবে ওই রেট ক্রস করলে আরো ২০০-৩০০পিপ্স বাই যেতে পারে। তবে আমি মনে করি পেয়ারটিতে এখন সেল এন্ট্রি দেওয়ার সময় আপনি চাইলে ১০৯.২০-৪০ এর মধ্যে সেল এন্ট্রি দিন এবং ৩০পিপ্স ব্যবহার করুন। যদি পেয়ারটি আরো বাই এ যায় তাহলে ১১০.২০-১১০.৬০ এর মধ্যে যে কোনো মুল্যে আবার সেল এন্ট্রি দিন আর এক্ষেত্রে স্বল্প স্টপ লস ১১০.৭০ ব্যবহার করুন।

 

উপরোক্ত ট্রেডিং এ্যনালাইসিসগুলো শুধুমাত্র লং টাইম(মাসিক) ট্রেডাররা ফলো করবেন আর যদি দৈনিক ও সাপ্তাহিক ট্রেডাররা ফলো করতে চান তাহলে অবশ্যই ট্রেড ভলিউম কমিয়ে করতে পারেন। তবে স্টপ লস সবার ক্ষেত্রে একই থাকবে।

 

ধন্যবাদ।

Link to comment
Share on other sites

 Share

  • Similar Content

    • By Mhafiz™
      যারা ফরেক্স প্রফেশনালি ব্যবসা করতে চাইছেন এবং একটা প্ল্যাটফর্ম তৈরির কথা ভাবছেন;
      ********************* তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি ************************
      বাংলাদেশের জনপ্রিয় এবং 10 Years Running Established ফরেক্স প্রফেশনাল ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম www.bdforexpro.com’ তার সমস্থ এসেট তথা কনটেন্ট Copyright সত্ত্ব সহ সকল সোশ্যাল Presence বিক্রয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে; তাই ব্যবসা করতে আগ্রহি নিম্নলিখিত সুবিধায় যারা উক্ত রেডি প্ল্যাটফর্মটি ক্রয় করতে আগ্রহি শুধুমাত্র তারাই যোগাযোগ করুন;

      ************* বিডিফরেক্সপ্রো’র বর্তমান Line up *******************
      ১। কমার্শিয়াল লাইসেন্স প্ল্যাটফর্ম তাই সম্পুর্ন নিরাপদ; 
      ২। প্লাটফর্মে ব্যবহারিত সকল প্লাগিন,এক্সটেনশন Genuine Core Purchase. 
      ৩। বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ফরেক্স লার্নিং কোর্স 'ফরেক্স বিগেনার টু প্রো' বই বিশাল কনটেন্ট সত্ত্ব;
      ৪। 5000+ ইউনিক ফরেক্স কন্টেন্ট।
      ৫। 4700+  রেজিস্টার মেম্বার মোবাইল নাম্বার সহ।
      ৬। বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ফরেক্স লার্নিং সম্পুর্ন বই কন্টেন্ট সত্ত্ব।
      ৭। Facebook, Google,YouTube, Skype & Twitter এর ব্র্যান্ডিং Existence;
      ------- https://www.facebook.com/bdforexpro/
      ------- https://www.facebook.com/groups/bdforexpro/
      ------- https://plus.google.com/+bdforexpro
      ------- https://www.youtube.com/c/bdforexpro
      ------- https://twitter.com/bdforexpro & Skype: bdforexpro (a large number of contacts)
      ৮। ৬ বছর লাইভ মার্কেটে পরিচালিত.
      ৯। Google, Bing, Yahoo ইন্ডেক্স - পেইজ # ১ 
      ১০। 9K+ Organic Facebook Fan page
      ১১। Bdforexpro এর আরেকটি কনসার্ন banglaforexacademy.com ও দেওয়া হবে;
      ------ https://www.facebook.com/banglaforexacademy/
      ১২। এবং অন্যান্য;
      পর্যাপ্ত সময়ের অভাবে পরিচালনায় অপারগ তাই প্ল্যাটফর্মটি বিক্রির সিদ্ধান্ত; যারা এই ফিল্ডে আছেন তারা জানেন এই রকম একটি প্ল্যাটফর্ম থেকে কি ব্যবসা হতে পারে; তারপর ও সুবিধার জন্য বলছি পর্যাপ্ত সময় এবং মেধার ব্যবহারে প্রতিমাসে ন্যূনত্বম ১০০০+ ডলার এবং সর্বচ্চ আনলিমিটেড ব্যবসার সুযোগ রয়েছে; প্রয়োজনে আর্নিং সম্পর্কে বিস্তারিত গাইড করা হবে;
      প্রাইস এইখানে বলব না, ভালো বাজেটের একটা প্রফেশনাল প্রডাক্ট হিসেবে যারা আগ্রহি শুধুমাত্র তারাই যোগাযোগ করুন; 01625343040
      ধন্যবাদ;
    • By MohabbatElahi
      Forex Fund management service-----------------------------  Investment: Minimum 2000$ USD (in your account).  Profile access: N/A,Only account & trader password.  Monthly Profit: Average 8%-10%  Profit Sharing Ratio: 40%(Manager) & 60% (Investor).  Platform: Any MT4 Platform.  Trading Style: Manual trading.  Drawdown: Up to 25% to 30%  Safety: Up to 70% Capital safety.  Strategy: Safe & Secure Trading Strategy.  Monitoring: No Monitoring Needed.  Payout: Fortnight or Monthly.  Symbol: Single Pair  Payment: Skrill,Perfectmoney,Bank,western union  Invitation: Global forex & cryptocurrency trader.  Contact: Only Interested person Skype: mohabbatelahi  www.myfxbook.com/members/Mohabbatelahi  www.forexfactory.com/Mohabbatctg  www.forexfactory.com/Mohabbatbd I'm Professional Forex Trader Since 2011. check my portfolio
    • By A H Royal
      বন্ধুরা, স্ক্যাল্পিং সম্পর্কে সবাই কম বেশী জানেন, তারপর ও আর একটু ধারনা দিই- স্বল্প সময়ে একাধিক বার স্বল্প পিপস প্রফিট/লস এ ট্রেড করার মানেই হল স্ক্যাল্পিং। স্ক্যাল্পিং ট্রেড এ প্রফিট/লস খুব কম হলেও এটা সারা বিশ্ব জুড়েই জনপ্রিয় এবং এজন্যই বিশ্বের অনেক ট্রেডারই স্ক্যাল্পিং করতে ভালোবাসেন। তবে অনেক নতুন ট্রেডার অভিজ্ঞতার অভাবে স্ক্যাল্পিং করতে গিয়ে সর্বস্বান্ত হয়। তাই আজকে আপনাদের সাথে স্ক্যাল্পিং ট্রেড নিয়ে কিছু আলোচনা শেয়ার করবো।
       
      স্ক্যাল্পিং এর সুবিধাসমূহঃ
      স্বল্প টাইম ফ্রেম এ প্রত্যেক ক্যান্ডেল পর পর ট্রেড ওপেন করে প্রফিট নেয়া যায়।   স্বল্প সময়ে লাভ/লস নির্ধারণ হয় বলে লাভ/লস এর জন্য অধিক সময় বা দিন অপেক্ষা করতে হয়না। মার্কেট এ বিশাল মুবমেন্ট না থাকলেও একাধিক বার স্ক্যাল্পিং করে দৈনিক মোটামুটি ভালো পিপস লাভ করা যায়। একাধিক বার ট্রেড করে লাভ শূন্যতে (ব্রোকার স্প্রেড দিয়ে) আসলে ট্রেড ক্লোজ করে নিজের এ্যাপিলিয়েট এ ভাল কমিশন নেয়া যায়। নরমাল ট্রেডিং স্টাইল এ যা সম্ভব নয়। উদাহরণস্বরূপ-আপনি আপনার ১০০০$ এর একাউন্ট এ নরমালি দৈনিক ১-৩ভলিউম ট্রেড ওপেন এবং ক্লোজ করেন আর যদি স্ক্যাল্পিং করেন তাহলে ১০-২০ভলিউম করতে পারবেন কারণ আপনি যখন স্ক্যাল্পিং করবেন তখন আপনি ৩-৫পিপস এর বেশী লাভের চিন্তা করবেন না। স্ক্যাল্পিং করলে আপনাকে সারাদিন ট্রেড এ সময় দিতে হবে না। এ রকম আরো সুবিধা আছে যা এখন হয়তো আমার নলেজ এ আসছে না।
       
      স্ক্যাল্পিং এর অসুবিধাঃ
      আমার দেখামতে, স্ক্যাল্পিং এর সবচেয়ে বড় অসুবিধা হল-স্টফ লস ছাড়া যারা স্ক্যাল্পিং করেন তারা হুট করে বিশাল লস এর সম্মুখীন হন। দু-একটি ট্রেড এ প্রফিট নেয়ার পর ট্রেড এর প্রতি ওভার-কনফিডেন্স চলে আসা। যা একাধিক ট্রেডার এর ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। যার ফলাফল পরবর্তীতে খারাপ হয়। নিজের এ্যাপিলিয়েট এ কমিশন নেয়ার জন্য একসাথে অনেক বড় ভলিউম এ ট্রেড ওপেন করে নিজের একাউন্টকে ঝুঁকির দিকে নিয়ে যাওয়া। উপরের সুবিধা ও অসুবিধাগুলো পড়ে এতক্ষণে অবশ্যই বুঝতে আপনার কষ্ট হয়নি যে, স্ক্যাল্পিং এ অসুবিধাগুলো আমরা নিজেরাই তৈরি করি যা আমাদের করা উচিৎ নয়। তাহলে বুঝতেই পারছেন যে স্ক্যাল্পিং এ সুবিধাই বেশী।
       
      যেহেতু স্ক্যাল্পিং এ সুবিধা বেশী সেহেতু আপনারা কিভাবে স্ক্যাল্পিং করবেন আমার এ ছোট্ট অভিজ্ঞতা থেকে তাই বলিঃ
      ১৫/৩০ মিনিট টাইম ফ্রেম বাঁচাই করুন। বা আরো স্বল্প ও নির্দিষ্ট একটি টাইম ফ্রেম বাছাই করুন যে টাইম ফ্রেম এ আপনি সহজেই এনালাইসিস করে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।   ব্রোকার স্প্রেড কম এমন যেকোনো একটি (মেজর) পেয়ার বাঁচাই করুন। পেয়ারটিতে যেন সারাদিনে গড়ে অন্তত ৩০পিপস মুভমেন্ট থাকে। যেমনঃ EURUSD, GBPUSD. চার্ট পরিস্কার রাখুন, যেন সব কিছু পরিস্কার দেখতে পান। তবে এজন্য আপনি ফ্রেক্টাল, প্যারাবলিক এ ধরনের ইন্ডিকেটর ব্যবহার করতে পারেন। তবে সব সময় আগে নিজের এনালাইসিসকে গুরুত্ব দিন। আপনার বাছাইকৃত টাইম ফ্রেম এ একটি ক্যান্ডেল শেষ হলেই ট্রেড এর সিদ্ধান্ত নিন। ট্রেড ওপেন করার আগে লক্ষ রাখবেন যে বিগত ক্যান্ডেল্-টির আঁকার যেন নুন্যতম ৫পিপস হয়। টেক-প্রফিটঃ ৩-১০ পিপস টেক প্রফিট দিন। বা আপনি আপনার এনালাইসিস মতে দিন।  তবে আমার মতে, স্ক্যাল্পিং এর ক্ষেত্রে ৩-৫পিপস প্রফিট আসলে আরো প্রফিট এর অপেক্ষা না করাই ভালো। স্টফ লসঃ আপনি যে ক্যান্ডেল এ ট্রেড ওপেন করেছেন বাই এর ক্ষেত্রে তার আগের ক্যান্ডেল লো এর ৩পিপস নিচে ও সেল এর ক্ষেত্রে  আগের ক্যান্ডেল হাই এর ৩পিপস উপরে দিন। আর যদি কেউ স্টফ লস ছাড়া স্ক্যাল্পিং ট্রেড করে থাকেন তাহলে ট্রেন্ড লাইন কে বেশী গুরুত্ব দিয়ে ট্রেড ওপেন করবেন। নতুবা দুর্ভাগ্যবশতঃ একাউন্ট এর অকাল মৃত্যুই আপনার প্রাপ্য হতে পারে। যেকোনো নিউজ পাবলিশ আওয়ার এ স্ক্যাল্পিং ট্রেড থেকে বিরত থাকা ভালো। আর অবশ্যই মানি ম্যানেজমেন্ট করে স্ক্যাল্পিং ট্রেড করবেন তা না হলে  ৫টি ট্রেড করে যা আয় করবেন ১ট্রেডেই হয়তো তার বেশী লস দিবেন। স্ক্যাল্পিং ট্রেড এর একটি চিত্র দেওয়া হলঃ
       

       
       
      ট্রেডপ্রিয় বন্ধুরা, স্ক্যাল্পিং সম্পর্কে আমি যতটুকু জানি চেষ্টা করেছি আপনাদের সাথে ভালোভাবে ততটুকু শেয়ার করার, তবে হয়তো ভালো করে গুচিয়ে বলতে পারিনি। ভুল হলে কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাবেন শুধরাবার চেষ্টা করবো আর স্ক্যাল্পিং ট্রেড সম্পর্কে আপনার আইডিয়া গুলো আমাদের সাথে শেয়ার করবেন। মনে রাখবেন আপনার ছোট্ট আইডিয়া থেকে হয়তো কারো অনেক বড় উপকার হতে পারে।
       
      ধন্যবাদ সবাইকে।
    • By MohabbatElahi
      ফরেক্স উম্মাদনা বনাম বাংলাদেশী ট্রেডারদের ভবিষ্যৎ শংকা
      ডাক-ঢোল পিটিয়ে দেশের বিভিন্ন শহরের নামীদামী হোটেল ও রেস্টুরেন্ট গুলোতে চলছে ফরেক্স ট্রেডিংয়ের উপর ব্যাপক সভা সেমিনার।এসব সভা সেমিনারের আয়োজক,আলোচক ও অতিথিবৃন্দ কে লক্ষ্য করে দুএকটি কথা বলার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি।তবে আমার ব্যাক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গির সাথে আপনি একাত্মতা পোষণ নাও করতে পারেন।কিন্তু একজন ফরেক্স ট্রেডার হিসেবে নিজের অনুভূতি ও আশংকাটি শেয়ার করলাম।

      ফরেক্স বিশ্বের সর্ববৃহৎ ট্রেডিং মার্কেট এটি আমরা সবাই জানি। কিন্তু কয়জন ব্যাক্তি এ মার্কেট প্লেসে সফলতা পেয়েছে, এ প্রশ্নের উত্তরে আমরা দেখতে পাই মাত্র ৫ থেকে ১০% ব্যাক্তিই এখানে সফল, বাকি ৯০-৯৫% লোকই ব্যর্থ।আশ্চর্যজনক বিষয় হচ্ছে এত বৃহৎ মার্কেট প্লেস হিসেবে এখানে ট্রেডারদের সফলতার পরিমাণ বেশি হওয়ার কথা। কিন্তু হয়েছে উল্টো । অর্থাৎ মার্কেটপরিধি আর ট্রেডারদের অবস্থান সম্পূর্ন বিপরীতমুখী।সে যাইহোক এখন প্রশ্ন হচ্ছে কেন বৃহৎ অংশ ফরেক্স মার্কেটে ব্যর্থ হচ্ছে? অবশ্যই এর পিছনে ভিন্ন ভিন্ন মূল্যায়ন থাকলেও আমার দীর্ঘ ৮ বছরের ট্রেডিং অভিজ্ঞতা থেকে কিছু বিষয়  পয়েন্ট আউট করেছি যা আপনাদের জন্য শেয়ার করলাম।
      ০১। ভাল কোন ট্রেনিং ইনস্টিটিউট না থাকা। যেখান থেকে একজন নবীন যথাযথ প্রস্তুতি নিতে পারে। ০২। ডিপোজিট উত্তেজনাঃ অর্থাৎ ট্রেডিং কনসেপ্ট ভাল করে আয়ত্ত করার পূর্বে নিজের সঞ্চয়,ব্যবসায়িক পুঁজি বা হেল্প লাইন থেকে ধার-দেনার মাধ্যমে ডিপোজিট করে নিজের ভাগ্য পরীক্ষায় নেমে পড়া। ৩। নিজেকে সর্বজ্ঞ ভাবাঃ অর্থাৎ দুয়েকটি বিষয় জেনে বা দুই তিন মাসের ডেমো প্রেক্টিস কিংবা দু’একটি একাউন্ট জিরো হওয়ার পর নিজেকে অনেক বড় জ্ঞানী ভাবতে শুরু করা। ৪।  একাকিত্বঃ আত্মঅহমিকা বা সংকীর্ণ মনোভাব। যদি ট্রেডিং জগতে আপনি ব্যর্থ হয়ে থাকেন তবে নিজেকে জিজ্ঞাসা করুন, আপনি কোন স্তরে ছিলেন বা এখনো আছেন।
      যাইহোক আসল প্রসঙ্গে আসি।“ফরেক্স ট্রেডিং” বাক্যটি কারো কাছে টাকা কামানোর মেশিন আবার কারো জন্য নিঃস্ব হওয়ার ফাঁদ।এখন টাকা কামানোর মেশিন কার জন্য ? হুম, মেশিন হচ্ছে তাদের জন্য যারা বিচক্ষণতার সাথে শত প্রতিকুলতা পেরিয়ে নিজেদের অবস্থান তৈরিতে সক্ষম হয়েছে এবং ট্রেডিং মার্কেটের প্রকৃত চরিত্র ধরতে পেরেছ।
      অপর দিকে নিঃস্ব হওয়ার ফাঁদ হচ্ছে তাদের জন্য, যারা প্রাপ্ত বয়স্ক,শিক্ষিত ও মেচুয়েট হওয়া সত্ত্বেও এ মার্কেটে বাচ্চা সুলভ আচরণ করেন। বর্তমানে যারা ডাক-ঢোল পিটিয়ে সভা সেমিনার নিয়ে ফরেক্স উম্মাদনায় মেতে উঠেছে এরা সে দলেরই অংশ বিশেষ।এদের উল্লেখযোগ্য অংশই ঝরে পড়বে এতে কোন সন্দেহ নেই। ফরেক্স হচ্ছে অতি সুন্দরী,সুসজ্জিত রমণীর মত, যার নেশা আপনার সর্বশ্য কেড়ে নিবে। নিঃসন্দেহে এটি সেসব লোকদের জন্য নিঃস্ব হওয়ার ফাঁদ যারা টাকার নেশায় বিভোর।ফরেক্স সাধনার বিষয়,এখানে অধ্যবসায় প্রয়োজন।এটি ততটা সহজ নয় যতটা আপনি ভাবছেন।এর লুকিং এবং রিয়েলিটি ভিন্ন।
      সুতরাং দুএকটি সেমিনার,ওয়েবিনার বা দিন কয়েক  ডেমো প্রেক্টিসের পর যদি কেউ ভাবে,তার মার্কেট বুঝা হয়েগেছে তবে নিঃসন্দেহে সে নিঃস্ব হওয়ার পথেই এগোচ্ছে।এখানে নিজেকে সংযত রাখা অনেক দুরূহ বেপার।টিকে থাকার জন্য নির্দিষ্ট নিয়মনীতির বাইরেও উপস্থিত সিদ্ধান্ত নেয়ার যোগ্যতা থাকতে হয়।
      তবে খুব কম সংখ্যক মানুষ আছে যাদের উম্মাদনা ও উত্তেজনা বিবেকের উপর প্রাধান্য বিস্তার করতে পারেনা।তারা এ বিজনেসের পজিটিভ নেগেটিভ উভয় দিক বিশ্লেষণ করেই অগ্রসর হয় । আর পরিকল্পিত পদক্ষেপগুলো সময়ের ব্যবধানে ঠিকই তাদেরকে একটি  নির্ভরযোগ্য অর্জন এনে দেয়। সূতরাং প্রতিটি নবীনের প্রতি অনুরোধ কারো প্ররোচনায় এসব দৌড়ঝাঁপ থেকে বিরত থাকুন। আর নিজেকে জিজ্ঞাসা করুন ট্রেডিং মার্কেটের চাপ সহ্য করার সামর্থ আপনার আছে কিনা। কারন ট্রেডিং পেশা মানেই মানসিক চাপের বিজনেস যা সবার জন্য নয়।
      আপনাকে একটি বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। আর তা হচ্ছে আপনার দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে আপনাকে মোটিভেট করে এক শ্রেনীর লোক নিজেদের স্বার্থ হাসিল করার প্রয়াস চালাবে। হয়তো আপনি কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ঝড়ে পড়বেন। এতে করে ৯০% ক্ষতিগ্রস্ত লোকের পাল্লাই ভারী হবে। বর্তমানে কিছুকিছু ফরেক্স ব্রোকার এমনও আছে যারা আইবি হোল্ডার(ব্যবসায়িক প্রতিনিধি)-দের মার্জিন কলের বিপরীতে ৪০%  পর্যন্ত ফেরত  দেয়ার প্রস্তাব করে থাকে। ফলে রেডিসন ব্লু-তে ৫০ হাজার টাকা খরচ করে প্রোগ্রাম করলেও মাত্র ১০০০ ডলারের একজন ক্লায়েন্টের লুজিং ফান্ড থেকেই সেটা তারা পুষিয়ে নিবে। এখন নিজে কে জিজ্ঞাসা করুন আপনিই সেই হতভাগ্য ব্যাক্তি কিনা যে মার্কেট বুঝার আগেই বিনিয়োগে চলে গেছে ?

      উপরোক্ত আলোচনা তে অনেকেই হয়তো মনক্ষুন্ন হচ্ছেন। কিন্তু আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। আমি কারো প্রতিপক্ষ নয় বরং দীর্ঘ ট্রেডিং জীবনের অভিজ্ঞতা ও নীতি আদর্শ থকেই নতুনদের সতর্ক করছি। কারন নবীন ট্রেডারগন কোন লাইনে কিভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেটা আমি ভাল করেই জানি। আপনারা সহপাঠী,পরিবার বা বন্ধু-বান্ধবের আর্থিক ক্ষতি না করে তাদের কে সঠিক দিক নির্দেশনা প্রদান করুন।নিজেদের অর্জন দিয়ে কথা বলুন।সেটা উভয়ের জন্য মঙ্গল।
      আমি জানি ব্রোকারের তুলনায় আপনাদের লাভের পরিমান অতি নগণ্য।কিন্তু তাই বলে আপনারা অন্যকে পথে বসিয়ে দেয়ার বুদ্ধি দিতে পারেন না।ড্রাইভিং পেশা যেমন সবার জন্য নয় ঠিক তদ্রুপ ফরেক্সও সবার জন্য নয় এটা আপনাদের বুঝতে হবে। ওয়ারেন্ট বাফেট আর বিল গেটসের ব্যবসা বলে আপনিও ঝাঁপ দিতে পারেন না। এখানে অবশ্যই কিছু নিয়মনীতি আছে। বেসিক কন্সেপ্ট, টেকনিক্যাল,ফান্ডামেন্টাল,সেন্টিমেন্টাল,রিস্ক মেনেজমেন্ট, কারেন্সি এনালাইসেস,কো-রিলেশন, ইম্পেক্ট এনালাইসিস,পলিটিকেল ইস্যু,গোল সেটাপ,ট্রেডিং প্লান ও স্ট্রটিজির মত অতি আবশ্যক স্টেপগুলো সম্পন্ন করেই সামনে এগুতে হয়। এজন্য সময় প্রয়োজন। একজন নবীন ফরেক্স ট্রেডার কখনো এসব বুঝবেনা ? আর আপনারাও সে বোঝা উঠাবেন না  ? কারন এত দীর্ঘ চিন্তা করলে আপনাদের স্বার্থ ক্ষুন্ন হবে।
      তাছাড়া আপনাদের যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশি ভাবা উচিত, তা হচ্ছে বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় ভাবে এখনো ফরেক্স স্বীকৃত নয়।আজ যে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর নিয়ে সরকার মিলিয়ন ডলার আয়ের স্বপ্ন দেখছে এর চেয়ে বৃহৎ সম্ভাবনা হচ্ছে ফরেক্স মার্কেট। কিন্তু দুর্ভাগ্য যে রাষ্ট্রের এসব নিয়ে চিন্তা করাতো দুরের কথা এদের অধিকাংশই এসব বুঝে না।সুতরাং প্রতিকূল পরিবেশে এমন ডাক-ঢোল না পিটিয়ে আত্মকেন্দ্রিক চিন্তা করুন। যেদিন স্বীকৃতি আসবে, যেদিন বাংলাদেশী ফরেক্স ব্রোকারে ট্রেড করার সুযোগ তৈরি হবে সেদিন ডাক-ঢোল পিটালেও সমস্যা নেয়।

      আমাদের এটা মনে রাখা উচিত যে এদেশের জনগণ বিগত ১০ বছরে শেয়ার বাজার সহ বিভিন্ন এমএলএম কোম্পানির ব্যানারে নিঃস্ব হয়েছে। তাছাড়া ব্যাংকিং খাতেও ব্যাপক হরিলুট হয়েছে,হচ্ছে। নীতিনির্ধারকদের অধিকাংশই  নিজেদের সুন্দর ও সুরক্ষিত ভবিষ্যৎ প্রত্যাশায় উন্নত বিশ্বে হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করে স্বর্গরাজ্য তৈরি করছে।আর এসব কিছু এখন নিত্যদিনের ঘটনা। আজ রাষ্ট্রীয় চোর আর অর্থআত্মসাৎকারী ভিআইপিদের গাড়ির বহর জনতার পথচলা আটকিয়ে দেয়।হাজার কোটি টাকা পাচারকারীদের দুর্নীতির প্রমান থাকলেও কোন আইনী নোটিশ নেই। কারন তাদের রয়েছে রাজনৈতিক পরিচয়,শিল্পপতির পরিচয়, আরো রয়েছে মামার পরিচয়।কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও  সত্য যে আইনি নোটিশ হচ্ছে সেসব লোকদের জন্য, যাদের এসব পরিচয় নেই।যারা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে বের হতে না পেরে সর্বশেষ অনলাইন ট্রেডিংয়ে মনোনিবেশ করেছে, যারা ঘরে বসে, কাউকে না ঠকিয়ে,অনৈতিক কাজে না জড়িয়ে নিজের মেধাশক্তি ও শিক্ষা যোগ্যতা কে কাজে লাগিয়ে নামমাত্র পুঁজি ব্যবহার করে পরিবারের ভরণপোষণ যোগাচ্ছে এবং সুন্দর আগামীর স্বপ্ন বুনছে। সুতরাং নীতিনির্ধারকদের চিন্তা-ভাবনা,দৃষ্টিভঙ্গি এবং দেশের আইন যে সকলের উপর সমান প্রয়োগ হয় না এটা এদেশের নাগরিক হলে এত দিনে বুঝার কথা।
      তাই প্রতিকূল পরিবেশে ফরেক্স বিষয়ে অতিরঞ্জন প্রত্যাশা করি না। ফরেক্স কে কলঙ্ক মুক্ত রাখতে সংযমী হোন। দধি কে চুন বানাবেন না। আপনাদের অতিরঞ্জনের ফলে যারা ফরেক্স নিয়ে বেচে আছে এবং যারা সুন্দর আগামীর স্বপ্ন দেখছে তাদের সবকিছু ধুলোয় মিষে যাবে। এমনিতেই চাকরির বাজারে হাহাকার। তার উপর ভাল কোন ব্যবসার জন্য প্রয়োজন বৃহৎ পুঁজি। এমতবস্থায় যারা নামমাত্র পুঁজি নিয়ে নিরবে নিবৃত্তে সাচ্ছন্দে ফরেক্স নিয়ে জীবন পার করছে আপনাদের মত আগাছা,উম্মাদ,অপরিণামদর্শী, স্বার্থান্বেষী মহলের বাড়াবাড়ি হয়তো তাদের জীবন প্রবাহ কে থামিয়ে দিবে।আপনাদের করণীয় হচ্ছে ব্যাক্তিগত অর্জন ও  অবস্থান শক্ত করা। তাহলে অধিকার নিয়ে কখনো সামনে দাড়াতে পারবেন। অন্যথায় উভয় সংকটে নিজেও ক্ষতিগ্রস্ত হবেন এবং অন্যের পথও রুদ্ধ হয়ে যাবে। একজন ট্রেডার হিসেবে নিজের শংকাটি তুলে ধরলাম । আশা করি বিচারকের ভূমিকায় নিরপেক্ষ ভাবে বিষয়টি অনুধাবন করবেন। 

      ------------------------------------------------
      Md Mohabbat E Elahi
      Admin: Forex online training academy
    • By MohabbatElahi
      ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন বনাম ইউরোর ভবিষ্যৎ
      আগামী ০৭ই মে রবিবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চুড়ান্ত লড়াই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।প্রতিযোগিতায় শীর্ষে থাকা ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ ও মেরিন লা পেন এ দুই প্রার্থীর মধ্য থেকে একজনই হতে যাচ্ছেন ফ্রান্সের ভবিষ্যত প্রেসিডেন্ট।আর এ নির্বাচন কে কেন্দ্র করেই চরম অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ মুদ্রা বাজার ফরেক্স মার্কেটে। বিশেষ করে EUR/USD, USD/CHF,GBP/USD উক্ত তিনটি মূদ্রা জোড়ে প্রথম দফা নির্বাচন থেকে শুরু করে এপর্যন্ত অস্থিরতা বিরাজ করছে।তবে আগামী ৭ই মে এঅস্থিরতার অবসান ঘটতে চলেছে । সূতরাং নির্বাচনের প্রভাবে কি ঘটতে পারে সেটায় এখন দেখার বিষয়।তবে ক্ষুদ্র জ্ঞানের উপলব্ধি থেকে ব্যাক্তিগত মূল্যায়নটি আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছি।

      ফান্ডামেন্টাল মূল্যায়ন
      উভয় প্রাথীর নির্বাচনী বক্তব্য,প্রতিশ্রুতি ও ব্যাক্তিগত জীবন মূল্যায়ন করলে এটা প্রতিয়মান হয়ে যে ইউরোপীয়পন্থী ম্যাক্রোঁ নির্বাচিত হলে সেটা হবে ইউরোপের জন্য কল্যানকর।কারন ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন একজন অর্থমন্ত্রী। তিনি নির্বাচিত হলে বর্তমান ইউরোজোনের অভিবাসন,অর্থনীতি ও ফরাসি নাগরিকদের ভবিষ্যত ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ন রাজনৈতিক ইস্যুগুলোর সমাধান হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

      আপর দিকে ৪৮ বছর বয়সী ন্যাশনাল ফ্রন্ট পার্টির নেতা লা পেন নির্বাচিত হলে ইউরোপ চরম সংকটে পড়বে বলে ধারনা করছেন অনেকেই। কারন তিনি হচ্ছেন কট্টর ডানপন্থী নেতা। তিনি বর্তমানে ইউরোজোনের অনেক রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের কট্টর বিরোধী।তার মতাদর্শ হচ্ছে সংস্কার বা নতুন করে সাজাও।যা ইউরোপের চলমান রাজনৈতিক ইস্যু সহ বিভিন্ন সেক্টরে বিরাজমান অস্থিতিশীলতাকে আরো উস্কে দিতে পারে।তবে আশ্চর্য জনক বিষয় হচ্ছে প্রথম দফার নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ ২৩.৫৪ শতাংশ ভোট পেয়ে প্রথম স্থানে এবং লা পেন ২২.৩ শতাংশ ভোট পেয়ে ২য় স্থানে অবস্থান করছেন ।এক কথায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই যাকে বলে এখানে কোন পক্ষ কে এগিয়ে দেয়া যাচ্ছে না।

      ফান্ডামেন্টালের এপিঠ ওপিঠ
      বিগত দিনে ঘটে যাওয়া দুই দুইটি রাজনৈতিক ইস্যুর দিকে যদি আমরা তাকাই তবে একথা প্রতিয়মান হয় যে নির্বাচনী বিশ্লেষন ততটা প্রতিফলিত হয়না যেমনটি আমরা দেখেছি ব্রেক্সিট ও আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে। কারন অনেক বিশ্লেষকের ব্রেক্সিট মূল্যায়ন ছিল পজিটিভ এমন কি ব্রেক্সিটের জন্য আন্দোলনকারীগনও এটা প্রত্যাশা করেনি যা পাউন্ডের ইতিহাসে ঘটে গেছে।ঠিক একই ভাবে আমেরিকা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প কে অর্থনীতির জন্য আশনি সংকেত হিসাবে তুলে ধরা হয়েছেল। কিন্তু পরবর্তিতে যা ঘটেছে তা সবারই জানা আছে। সূতরাং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ ও লা পেন কে নিয়ে আমাদের যে কোন মূল্যায়ন মুদ্রা বাজারে প্রতিফলিত নাও হতে পারে।সূতরাং নির্বাচন পরবর্তিতে মার্কেট গেপ দিয়ে ওপেন হবে এই প্রত্যাশায় কারো প্ররোচনায় পড়ে উদ্ভট চিন্তা ভাবনা ও উত্তেজনা পরিহার করতে হবে।

      ফ্রান্সের নির্বাচনে আমাদের ট্রেডিং কৌশল কেমন হতে পারে? ********************************************************* হুম,আমরা অবশ্যই একটি রক্ষণাত্মক কৌশলে মার্কেটে প্রবেশ করতে পারি। যা তুলনা মূলক ভাবে অনেক বেশি নিরাপদ ও লাভজনক।তবে এটি লং টার্ম ট্রেডারদের জন্য প্রয়োজ্য । প্রথম ধাপঃ ট্রেডিং কৌশল টি বুঝতে প্রথমে আপনার মেটা ট্রেডার সফটওয়্যার টি ওপেন করুন। অতপর EUR/USD (D1) চার্টের দিকে তাকান। উক্ত মুদ্রা জোড়ে আপনি তিনটি প্রাইজে হরিজ্যান্টাল লাইন বাসান। প্রথম প্রাইজঃ 1.13000 (স্ট্রং সাপ্লাইজোন) দিত্বীয় প্রাইজঃ 1.0870 (বর্তমান অবস্থান) তৃতীয় প্রাইজঃ 1.0370 (স্ট্রং ডিমান্ড জোন)   দ্বিতীয় ধাপঃ এক্সচেঞ্জ রেট যদি 1.0870 (দ্বিতীয় প্রাইজ)এর নিচে নেমে আসে তবে মূল্য পতনের সম্ভাবনা বেশি থাকবে।অর্থাৎ মার্কেট ডিমান্ড লেভেল কে টার্গেট করতে পারে।বিপরিতে সাপ্লাইজোন কে টার্গেট করতে পারে।তাই এনএফপি প্রভাব চলাকালীন আপনি রক্ষনাত্তক অবস্থানে ট্রেড করবেন এবং প্রাইজ মনিটরিং করবেন। তৃতীয় ধাপঃ আপনি ইউএস সেশন ক্লোজ হওয়ার আধা ঘন্টা পূর্বে অর্থাৎ মার্কেট অফ হওয়ার অধা ঘন্টা বা ২০ মিনিট পূর্বে প্রাইজ মূল্যায়ন করে ২/১ হেজিংয়ে যেতে পারেন। অর্থাৎ যদি মার্কেট 1.0870 থেকে 1.0950 এই রেঞ্জে উর্ধমুখী প্রভাবে থাকে তাহলে আপনি ০.০২ ভলিয়মে লং পজিশন গ্রহন করতে পারেন। এক্ষেত্রে মার্কেট গেপ হলে ১.১৩০০ পর্যন্ত প্রথামিক ভাবে গেফ হতে পারে। পাপাশাপাশি ০.০১ এ একটি শর্ট পজিশনও কার্যকর করতে হবে।যেন বিপরিত কিছু হলে অন্তত ৫০% বেকাপ থাকে।আর যদি প্রাইজ 1.0870-র নিচে পড়ে যায় তাহলে একই নিয়মে ২/১ এ শর্ট পজিশন গ্রহন করবেন।পাশাপাশি একটি লং পজিশনও। চতুর্থ ধাপঃ এক্সচেঞ্জ রেট গেপ আপ বা ডাউন যাইহোক না কেন উক্ত দুটি লেভেলের ভিতরেই থাকার সম্ভাবনা বেশি। সূতরাং যদি এক্সচেঞ্জ রেট ১.১৩০০ পর্যন্ত চলে যায় এবং আর উঠার সম্ভাবনা দেখা না যায় তবে আপনি লং পজিশন ক্লোজ করে দিতে পারেন এবং ১.১৩০০ বা ১.১৪০০ রেঞ্জ থেকে প্রাইজ অ্যাকশন ফলো করে চলমান থাকা লস ট্রেডের ভলিয়ম অনুযায়ী একটি রিভাঞ্জ নিতে পারেন। পঞ্চম ধাপঃ যদি ২/১ ভলিয়মের মধ্যে ২ লসে চলে যায় তাহলে প্রাইজ এ্যাকশান ফলো করে ১ ক্লোজ করে দেয়ার পর মার্কেট মূল্যায়ন করে পুনরায় একটি রিভাঞ্জ নিতে হবে সেইম ভলিয়মে (০.০১) এক্ষেত্রে ভলিয়ম বাড়ানো যাবেনা কারন যদি মার্কেট আপনার বিপরিতে চলে যায় তখন আপনি কোন প্রকার লাভবান হচ্ছেন না। তখন রিস্কের পরিমান বেড়ে যাবে।কিন্তু যদি আপনি সেইম ভলিয়মে কন্টিনিউ করেন তবে আপনি লং টাইম ট্রেডটি ধরে রাখতে পারবেন। প্রশ্নঃ 1.0870 এ প্রাইজ রিকভারের সম্ভাবনা কতটুকু ? উত্তরঃ যারা ১০০০ ডলারে ১% রিস্কে ট্রেড করেন তাদের জন্য এখানে ঝুঁকির কিছুই নেই। আর 1.0870 এ প্রাইজটি আগে পরে রিটেস্ট হবে এতে কোন সন্দেহ নেই। কারন এটি ইউরোর জন্য বর্তমানে একটি মিডেল পয়েন্ট।যা হেজিংয়ের জন্য উপযু্ক্ত। উল্লেখ্য যে এই কৌশলে ট্রেড কেবল তারাই করবেন যারা ফ্রান্সের নির্বাচনে কিছু রিস্ক নিতে চান। তবে যাদের স্বল্প বেলেন্স তারা নির্বাচন পরবর্তিতে মার্কেট ওপেনিং দেখে ট্রেডে প্রবেশ করবেন। তবে যদি সোমবারের মার্কেটে কোন গেপ না হয় তবে উচিত হবে মার্কেট ওপেন হওয়ার পর উভয় পজিশন ক্লোজ করে আপনার স্বাভাবিক স্ট্রাটিজিতে ট্রেড করা। নিরাপদ হোক সবার ট্রেডিং ------------------------------------------------- Md Mohabbat E Elahi
      Analytical Expert: Global Forex Market
×
×
  • Create New...