Balumukherjee

FreshForex Trading Contest

3 posts in this topic

ওহে বন্ধুরা
 
সাম্প্রতিক আমি গাড়ি জেতার জন্য FreshForex ব্রকারের লাইভ কন্টেস্টে যোগ দিয়েছি। এটা অনেক সহজ। এইখানে ক্লিক করুন এবং সামনে এগিয়ে যাব যেভাবে আমি করেছিলাম। আমি কিছু স্ক্রিনশট তৈরি করেছিলাম যা খুবই সহজ।
 
bc82fc30629f1c995abd707ce89f6f95.jpg
abd528f75fa5529861490a71eed10028.jpg
426f67f5b326e6e8ccfac6959004fee2.jpg
 
ইহাই সব। তুমি এর মদ্ধে আছ।
 
মনে রেখো যে: তুমি ১০০ ডলার দিয়ে শুরু করতে পারি এবং ইচ্ছামত প্রত্তেক ধাপে অংশগ্রহণ করতে পারে।
ভাল থেকো।

Share this post


Link to post
Share on other sites

FreshForex সবকিছু মিলিয়ে অনেক ভাল। এই প্রতিযোগীতা টা অনেক ভাল ছিল কিন্তু অনেক ও তারা অনেক ভাল সুবিধা অফার করতেছে বিশেষত ১০০ ডলার নো ডিপোজিট বোনাস তাই কাজ করতে এটা অনেক ভাল এবং সাহায্যকারি তাই সেই কারনে আমি সহজে ট্রেদ করি এবং কোনো সমস্যা ছাড়াই লাভ করি। 

Share this post


Link to post
Share on other sites

এই সব কন্টেস্ট দেখে ব্রোকারে জয়েন করবেন না। আমি অনেকদিন আগে এই ব্রোকারে কন্টেস্টে ভালো ভাবে ট্রেডিং করে পরে ডিপোজিট করেছিলাম কিন্তু প্রোফিট করলে আর আমাকে উইথড্রো করতে দেওয়া হয়নি। আমি পরে ফরেক্স চিফে (ForexChief) ট্রেডিং করি। এদের লোকাল ডিপোজিট সাপোর্ট এবং লো স্প্রেডের জন্য অনেক ভালো লাগে। এখনো পর্যন্ত এই ব্রোকারে কোনো প্রবেল্ম হয়নি। 

Share this post


Link to post
Share on other sites

টপিকটিতে মন্তব্য করতে সাইন ইন করুন অথবা নতুন একাউন্ট করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই মেম্বার হতে হবে

একাউন্ট করুন

খুব সহজে একাউন্ট করুন


নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন

সাইন ইন

ইতিমধ্যে একাউন্ট করেছেন ? সাইন ইন করুন


এখনি সাইন ইন করুন

  • Similar Content

    • By bmfxanalyst
      আজ ডলারের নিম্নমুখী এক নাগাড়ে পতন শুরু হয়েছে যেন। কিন্ত কেন? এভাবে নিচের দিকে পড়ার মত কিছু কি ঘটেছে আমেরিকার বিশ্বে? মনে হয় না। 
      আল কায়দা বিমান হামলাও করেনি, আইএস এর প্রধানকে আমেরিকার বন্ধু বলেও প্রমান করা যায়নি এখনও। সৌদী আরবও বলেনি যে আমেরিকার সাথে সকল লেনদেন বন্ধ!!
      রাশিয়াও ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালায়নি এমনকি ইরানও পরমাণুর বোমা তাক করেনি!! ওদিকে উত্তর কোরিয়াও যথেষ্ট চুপ চাপ। তাহলে?
      এসবের কোন কিছুই না হওয়া সত্ত্বেও কেন ডলার এই অধোঃপতন?? 
      এবার আসি মুল বিষয়ে। ফরেক্স এর চার্ট বা বিভিন্ন ব্যাংকের রিপোর্টের বাইরে বিশ্বের অর্থবাজারের মুভমেন্টের জন্য আরেকটি বিশাল জায়গা রয়েছে, যার উপর ভিত্তি করে এমন বড় বড় মুল্যের উঠানামা হয়ে থাকে।
      তার নাম রিউমার। বাংলায় যাকে বলব গুজব। 
      হুজুগে শুধু বাঙালিই নয়। হুজুগে শব্দটার সাথে সারা বিশ্বের সকল জায়গার মানুষ জড়িত। সবাই গুজবে মাতে, সবাই চিলে কান নিয়েছে শুনে চিলের পিছনেই দোউড়ায়। কান কানের জায়গায় ঠিকঠাক আছে কিনা তা দেখারও প্রয়োজন পড়েনা। আর এই রিউমারের প্রভাব অর্থবাজারে বেশ জোড়েশোরেই পড়ে।
      আজ ইউএস ডলারের উপর এমনই শনির দশা পড়েছে।
      কারন, আজ সিরিয়ায় হামলা ইস্যুতে রাশিয়া ও আমেরিকা বেশ ভালভাবেই তর্কাতর্কি করেছে, আর বোঝাই যাচ্ছে তাতে রাশিয়ার যৌক্তিকতাই বেশি ছিল কারন সিরিয়ার আসাদ কিন্ত সিরিয়ান জনগনের গণভোটে নির্বাচিত ছিলেন। তাহলে নির্বাচিত এক সরকার প্রধানকে উতখাত করতে আমেরিকার এতো মাথাব্যাথা কেন?? এর আগে ইরাকে মিথ্যা রাসায়নিক অস্ত্রের অযুহাতে সাদ্দামকে ফাসী দিয়ে বেশ বড় ভুল করেছিল আমেরিকা, সেই উদাহরন টেনে এনে আমেরিকাকে তর্কাতর্কির সময় এক পর্যায়ে চুপ করিয়ে দিয়েছিলেন রাশিয়ান প্রতিনিধি। যদিও ইতোপুর্বে যুক্তরাজ্যে গুপচরকে নার্ভ গ্যাস প্রয়োগে হত্যার অভিযোগের ইস্যুতে রাশিয়া ও আমেরিকা যার যার দেশের ৫০ জনেরও বেশি জন করে কুটনৈতিককে দেশে পাঠিয়ে দেবার বিষয় তো ছিলই এখানে!! এতেই আমেরিকার আগ্রাসী ভুমিকায় যে বেশ বড় ধাক্কা লেগেছে তা বলাই যায়। 

      এই আলোচিত ঘটনাকে ছাপিয়ে এবার রমরমে একটা বিষয় সামনে এসে দাড়িয়েছে আজ। তা হচ্ছে, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর চারিত্রিক সনদ নিয়ে কারও কোন মাথা ব্যাথা যদিও নেই, তবুও আজ এফবিআই এর বেশ কিছু সদস্য ট্রাম্প এর ব্যক্তিগত আইনজীবীর অফিসে ব্যাপক তল্লাসী চালিয়েছে। তারা নির্বাচন কালীন কোন এক পর্ন অভিনেত্রীর সাথে ইটিশ-পিটিশ করার কথা ধামাচাপা দিতে যে বেশ বড় অংকের টাকা দিয়েছিলেন, সেই সংক্রান্ত নথিপত্রও নাকি খুজে পেয়েছেন!!
      অর্থাৎ ট্রাম্প সাহেব বেশ বড় ধরনের ঝামেলাতেই পড়তে যাচ্ছেন বলাই যায়। আর কোন দেশের প্রেসিডেন্ট এর এমন নারী কোলেংকারী জনিত ঝামেলায় পড়া মানে সেই দেশের অর্থবাজারে বেশ বড় রকমেই ধ্বস নেমে আসা। এখন দেখার বিষয় আমেরিকার সিনেট বোর্ড কিভাবে বিষয়টা সামাল দেন।
      আজ ডলারের বিপক্ষে বেইজ কারেন্সী হয়ে থাকা সকল পেয়ার শুধু উড়েই চলেছে যেন। একটু ব্যতিক্রম ছিল জাপানী ইয়েন। ভাব দেখে মনে হচ্ছিল যে ইয়েনের দশা ডলার থেকেও খারাপ তাই এই চরম সংকটের মুহুর্তেও ডলার একমাত্র ইয়েনের বিপক্ষে একটু হলেও মাথা তুলে রাখতে পেরেছে। 
      আজকের অফ টপিকের এনালাইসিস কি আপনাদের একটু হলেও বোধগম্য হয়েছে? তাহলে আমিও একটু মাথা তুলে দাড়াতে পারতাম 
      আমি চেষ্ঠা করছি রেগুলার বিডিফরেক্সপ্রো সাইটে আমার ট্রেড এনালাইসিস আপনাদের সাথে শেয়ার করতে। এই লেখাটি আপনি আপনার ফেসবুক গ্রুপ, ফেসবুক ওয়ালে বা আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন যাতে সকলেই সামান্য হলেও উপকৃত হতে পারে। সকলের সাফল্য কামনায়।
      আমার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়েও আমার সঙে থাকতে পারেন। ফেসবুক পেজ লিঙ্কঃ  bmfxanalyst
    • By Balumukherjee
      সফলতা আপনি রাতারাতি বা সহজে অর্জন করেন না, এটি সব কঠিন কাজ এবং সংগ্রামের সঙ্গে আসে সুতরাং, এখন এটা সম্ভব যে FreshForex সঙ্গে যে এটি আপনার টিকিটটি তাদের সর্বশেষ ব্লকবাস্টার দ্য গোল্ডেন টিকেট নামে সফলতার সাথে সফল! এটি আমাদেরকে $ 2018 প্রদান করে না যা আমানতের সম্ভাব্য সম্ভাব্য উপায়ে জিনিসগুলি পেতে সহায়তা করবে। সুতরাং, তাদের সঙ্গে সফল যাত্রায় নিজেকে পেতে!
    • By Rafiul Karim
      Pivot: 1.1630 

      আমাদের লক্ষ : Buy  করতে হবে 1.1630 এর উপরে এবং  1.1690   পর্যন্ত লাভ নিতে হবে এবং  পরবর্তী লাভ 1.1720 পর্যন্ত ।


      বিপরিত লক্ষ : sell করতে হবে 1.1630 এর নিছে এবং 1.1610 পর্যন্ত লাভ নিতে হবে এবং  পরবর্তী লাভ 1.1580  পর্যন্ত।

    • By Rafiul Karim
      Pivot: 1.1740

      অমাদের preference: Buy positions 1.1740 এর উপরে with targets at 1.1775 এবং  1.1795 in extension.

      Alternative scenario:  1.1740 এর নিছে মার্কেট নিছের দিকে থাকবে with 1.1720 & 1.1700 as targets.

      Comment: a support base at 1.1740 has formed and has allowed for a temporary stabilisation.

    • By tanvirbd
      মস্তিষ্ক: আমি একজন ফরেক্স ট্রেডার। সুতরাং আমাকে দেখে শুনে ভালো ভাবে ট্রেড করতে হবে। একজন ব্যবসায়ী সুযোগের অপেক্ষায় থাকে। সুতরাং ভালো ট্রেডের জন্য আমাকে সুযোগের অপেক্ষায় থাকতে হবে।
       


      মন: অবশ্যই তুই একজন ফরেক্স ট্রেডার। তাই তোকে ফরেক্স ট্রেডিং করতেই হবে। একটা ভালো সুযোগের জন্য কতক্ষণ বসে থাকবি? এখন তো মার্কেট নিচে নামছেই। সুতরাং বড় লটে একটা সেল মেরে দে। 8/10 পিপস পেলেই সারা মাসের প্রফিট একবারে পেয়ে যাবি। এটাকে কি সুযোগ বলবি না? সুযোগ হাতছাড়া করবি কেন?
       


      মস্তিষ্ক: না আমাকে রুলস ফলো করতে হবে। মেথডে না পড়লে আমি ট্রেড করব না। অনেকবার দেখেছি এভাবে হুটহাট করে ট্রেড করলে বড় লসই হয়ে যায়। এমনকি একাউন্ট জিরোও হয়ে যায়।


       
      মন: তোকে রুলস ফলো করতে নিষেধ করেছি নাকি? অবশ্যই মেথডে পড়লে ট্রেড করবি। মার্কেট এখন ট্রেন্ডে আছে। অার ট্রেন্ডই হলো সবচেয়ে বড় বন্ধু। এই মেথড সব মেথডের দাদা। শুধূ শুধু কথা বলে প্রাইসকে আরো নামাচ্ছিস। অযথা সুযোগটাকে হাতছাড়া করছিস! ভালো করে ভেবে দেখ, সব বড় বড় ট্রেডার এখন ধুমায়া মার্কেটে ঢুকছে আর সেল দিচ্ছে বলেই মার্কেট এভাবে পড়ছে। তুই কি বড় বড় ট্রেডারদের থেকেও বড় হয়ে গেলি নাকি?


       
      মস্তিষ্ক: আরে না। তাই বলে একটা ভালো রেসিসট্যান্স না দেখে সেল দেয়াটা কি ঠিক হবে?


       
      মন: ভালো রেসিসট্যান্স? ভালো রেসিসট্যান্সটাকে তো তুই হাতছাড়া করেছিস! তখন তো আমার কথা শুনিসনি। না শুনে এই ট্রেন্ডটার অর্ধেকটাই হাতছাড়া করেছিস। এখনো সময় আছে ভালো চাস তো, কিছু প্রফিট চাস তো সেল মেরে দে। মাত্র 8/10 পিপস বড় লটে তেমন কোনো ব্যাপার না। আমি কি তোর খারাপ চাই?


       
      মস্তিষ্ক: তাহলে একটু হায়ার টাইমফ্রেমগুলো চেক করে আসি।


       
      মন: বুঝেছি, তুই আসলে সময় নষ্ট করার চেষ্টা করছিস। হাই ভোলাটাইল মার্কেটে হায়ার টাইমফ্রেমের মেজর ট্রেন্ডগুলো কোন ছাই বেনিফিট দেবে? 8/10 পিপসের জন্য হায়ার টাইমফ্রেম? এমন গর্দভও আছে দুনিয়ায়? লোকে শুনলে হাসবে যে!


       
      মস্তিষ্ক: লটটা একটু কমিয়ে রাখি তাহলে।


       
      মন: যদি এক ট্রেডেই পুরো মাসের টার্গেট ফিল-আপ হয়ে যায়, তাহলে আর সারা মাস কোনো ট্রেড করার দরকার আছে? লট কমিয়ে ট্রেড দিলে কি আর সারা মাসের প্রফিট এক সাথে পাওয়া যায়?

       
      মস্তিষ্ক: না, তা যায় না।


       
      মন: তাহলে কি সারা মাস এভাবে পিসির সামনে চার্টের উপর উপুড় হয়েই বসে থাকতে চাস?

       
      মস্তিষ্ক: আরে, ফরেক্স করতে এসে বন্ধু-বান্ধব, সংসার সবই তো ভুলতে বসে আছি। আমারও তো মন চায় একটু বন্ধু-বান্ধবের সাথে আড্ডা-ফাড্ডা দিই।

       
      মন: তাহলে আর দেরি কিসের? সর্বোচ্চ লটে সেল মার আর 8/10 পিপস নিয়ে নে!

       
      মস্তিষ্ক: আল্লাহ ভরসা! তাহলে সেল নিয়েই নেই। মাত্র তো 8/10 পিপস। মার্কেট যেভাবে পড়ছে তাতে টিপি হিট করতে খুব বেশি হলে 2 মিনিট সময় লাগবে। বিসমিল্লাহ .... ঠুস্ (ট্রেড এন্ট্রি নেয়ার শব্দ)।........................


      মস্তিষ্ক: ও আল্লাহ! মার্কেট তো উঠে যাচ্ছে! আল্লাহ! ও আল্লাহ এটা কি করছ! আমার সাথেই কেন এমন কর! আমি মার্কেটে ঢুকলেই মার্কেট আমার বিরুদ্ধে যায় কেন? আল্লাহ, আল্লাহ! হ্যাঁ, এইতো প্রাইস ব্যাক করছে, প্রায় ব্রেক ইভেনের কাছাকাছি। ব্রেক ইভেনে চলে এসেছে ...... হ্যাঁ এই তো প্রফিটেও চলে এসেছে। ........ আরে যে ভয় পেয়েছিলাম। মার্কেট তো নামছেই।

       
      মন: ভালোই প্রফিটে আছিস। আরেকটু প্রফিট হোক আর টিপি টা একটু বাড়িয়ে দে।

       
      মস্তিষ্ক: হ্যাঁ, তাই তো। আরো প্রফিট হবে বলে মনে হচ্ছে। টিপি টা আরেকটু বাড়িয়ে দেই। ঠুস্ (টিপি মডিফাই করার শব্দ)

       
      মস্তিষ্ক: আরে আরে একি!...... প্রাইস তো আবার উপড়ে উঠে যাচ্ছে! একি একি! .......এখন কি কোনো নিউজ ছিল?...... আল্লাহ বাঁচাও আমারে! আমার প্রতি কেন বারবার এমন কর! ........আমি কী এমন পাপ করেছি! সামান্য কয়টা ডলার প্রফিটই তো! তাও আমাকে দিবা না? ........ ইয়া আল্লা-আ-আ-আ!

       
      (অতঃপর কয়েক মিনিটের মধ্যেই একাউন্টটি মার্জিন কল খেয়ে ধরাশায়ী হলো।)