salmansam

Members
  • Content count

    120
  • Joined

  • Last visited

  • Days Won

    45

salmansam last won the day on May 31 2017

salmansam had the most liked content!

About salmansam

  • Rank
    প্রোফেশনাল

বিস্তারিত প্রোফাইল তথ্য

  • লিঙ্গ
    বলতে চাই না

Recent Profile Visitors

3,598 profile views
  1. অসাধারণ পোষ্ট, খুবী গুরুত্তপুর্ন আলোচনা. thnx waiting for more important post.
  2. অনেকেই কম স্প্রেড ব্রোকার সম্পর্কে জানতে চান। কারণ কম স্প্রেড ব্রোকারে ট্রেড করলে ট্রেড খুব সহজেই প্রফিটে চলে আসে। ফলে স্ক্যালপিং বা শর্ট-টার্ম ট্রেডিং করে প্রফিট করা অনেক সহজ হয়। সাধারণত ECN বা STP ব্রোকার ছাড়া কম স্প্রেড ব্রোকার হয় না। তাই কম স্প্রেডের একাউন্টের জন্য ECN বা STP ব্রোকারের উপরেই ভরসা করতে হয়। কিন্তু ফরেক্সে নতুন আসা অনেকেই বা ফরেক্সের স্বল্প জ্ঞান সম্পন্ন অনেকেই জানেন না যে, ECN/ STP অনেক ব্রোকার কম স্প্রেড অফার করলেও এখানে একটা শুভঙ্করের ফাঁকি থাকে। মার্কেট মেকার ব্রোকারের স্প্রেড সাধারণত ECN/ STP ব্রোকারের চেয়ে বেশি হয়। তাহলে সহজ কথা হচ্ছে মার্কেট মেকার ব্রোকারের চেয়ে ECN/ STP ব্রোকারে স্প্রেড কম থাকে। এটা সত্য কথা, এখানে কোনো ঘাপলা নেই। কিন্তু শুভঙ্করের ফাঁকিটি তাহলে কোথায়? আজকে সে সম্পর্কেই বলব। ধরুন X ব্রোকার একটি মার্কেট মেকার ব্রোকার এবং এই ব্রোকারে EURUSD পেয়ারের এভারেজ স্প্রেড 2.00 পিপস। ফিক্সড স্প্রেড ব্রোকার ছাড়া বাকি ব্রোকারে যেহেতু স্প্রেড সবসময় ওঠানামা করতে থাকে তাই অ্যাভারেজ স্প্রেড ধরে হিসাব করতে হবে। X ব্রোকারের স্প্রেড সর্বনিম্ন 1.00 পিপস থেকে নরমাল সময়ে সর্বোচ্চ 3.00 পিপস পর্যন্ত ওঠানামা করে। আর নিউজ টাইমে সেটা 3.00 থেকে 7.00 পিপস পর্যন্ত বা তারচেয়েও বেশি যেতে পারে। কিন্তু সারাদিনের অ্যাভারেজ করলে হিসাবটা মোটামুটি 2.00 পিপসই আসবে। এই ব্রোকারে শুধুমাত্র স্প্রেড ছাড়া আর কোনো কর্তন নেই। এবার ধরুন Y ব্রোকার একটি ECN ব্রোকার এবং এই ব্রোকার অফার করছে যে, Spread start from 0 pips. কিন্তু আপনি অবশ্যই দেখবেন এই 0 পিপস কখনো পাবেন না। ‍Start from 0 pips মানে স্প্রেড 0 না, বরং সর্বনিম্ন 0 হতে পারে। আপনি আরো ভালো করে জানার জন্য তাদের সাথে লাইভ চ্যাট করে জানলেন যে, তাদের EURUSD পেয়ারের অ্যাভারেজ স্প্রেড 1.00 পিপস। আপনি খুশিতে বাকবাকুম। কারণ কোথায় X ব্রোকারের 2.00 পিপস আর কোথায় 1.00 পিপস। একেবারে অর্ধেক স্প্রেড কম! আপনি প্র্যাকটিক্যালি একটা একাউন্ট করে স্প্রেড কাউন্ট ইন্ডিকেটর লাগিয়ে চেক করে দেখলেন আসলেই অ্যাভারেজ স্প্রেড 1.00 পিপস। স্প্রেডের হিসাবে ঠিকই আছে, কোনো ঘাপলা নেই। কিন্তু আপনি যেটা জানেন না সেটা হচ্ছে ECN ব্রোকারে স্প্রেড ছাড়াও আরো একটা জিনিস কেটে নেয়, আর সেটা হচ্ছে কমিশন যা মার্কেট মেকার ব্রোকার কেটে নেয় না। মার্কেট মেকার ব্রোকার শুধুমাত্র স্প্রেড নিয়েই খুশি থাকে। আর ECN/ STP ব্রোকার স্প্রেড কম দেখিয়ে এক্সট্রা কমিশনও কেটে নেয়। ফলে অনেক সময় স্প্রেড আর কমিশন মিলিয়ে মার্কেট মেকার ব্রোকারের স্প্রেড কর্তনের প্রায় সমানই হয়ে যায়। ধরুন আমরা Y (ECN) ব্রোকারের কমিশন চেক করে পেলাম যে, তারা EURUSD পেয়ারে প্রতি 1.00 লটের জন্য $10.00 কমিশন কাটে। এই $10 কমিশনকে যদি আপনি পিপসে কনভার্ট করেন তাহলে তা হবে 1.00 পিপস। এবার মূল স্প্রেড আর এই কমিশন পিপস যোগ করলে দাড়ায় 1.00 পিপস স্প্রেড + 1.00 পিপস কমিশন = মোট 2.00 পিপস কর্তন, যা ঐ মার্কেট মেকার X ব্রোকারের সমান। শুভঙ্করের ফাঁকিটা এখানেই। নতুন ট্রেডার, কম জানা ট্রেডারদেরকে কথিত ECN/ STP ব্রোকাররা এভাবেই বোকা বানায়। যদি দেখেন যে ECN/ STP ব্রোকারের স্প্রেড এবং কমিশন মিলিয়ে মার্কেট মেকার ব্রোকারের চেয়ে অনেক কম কর্তন হয়, তাহলে সেই ব্রোকারের স্প্রেড আসলেই কম বলে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। তবে ভাই ঘাপলা আরো অাছে যা আরো গভীরের। আপনি হয়ত আগেই ECN/ STP ব্রোকারের কমিশন কর্তনের বিষয়টা জানেন এবং এ বিষয়ে সচেতন। তাই ECN/ STP ব্রোকারের কমিশন চেক করেই একটা ECN ব্রোকার নির্ধারণ করলেন ট্রেড করার জন্য। এবারের ঘাপলাটা এই কমিশনের বিষয়েই। আপনি ব্রোকারের লাইভ চ্যাটে জিজ্ঞাসা করলেন যে, EURUSD তে পার (1.00 লট) লটে কত কমিশন কাটেন? ব্রোকার থেকে উত্তর দিল পার লটে $5.00 কমিশন (মানে হলো 0.50 পিপস) কাটা হয়। আপনি হিসাব করে দেখলেন স্প্রেড এবং কমিশন মিলিয়ে 1.00 পিপস + 0.50 পিপস = 1.50 পিপস, যা মার্কেট মেকার ব্রেকার ব্রোকারের 2.00 পিপস থেকে কম। তবুও তো কিছু কম আছে। সেই ভালো। কিন্তু না। আপনার আসলে জিজ্ঞাসা করার দরকার ছিল -- EURUSD তে পার (1.00 লট) লটে রাউন্ড টার্ন কত কমিশন কাটেন? আপনি যদি ”রাউন্ড টার্ন” শব্দদ্বয় ব্যবহার না করেন, তাহলে ব্রোকার থেকে কখনোই আপনাকে তা জানাবে না। আর আপনি যদি শব্দদ্বয় ব্যবহার করেন, তাহলে ব্রোকার ”রাউন্ড টার্ন” শব্দদ্বয়ের আলোকেই উত্তর দেবে। ”রাউন্ড টার্ন” মানে হচ্ছে অর্ডার ওপেনিংয়ে অর্ধেক কমিশন কাটা এবং অর্ডার ক্লোজিং এ বাকি অর্ধেক কমিশন কাটা। অর্থাৎ দুই সাইডেই কমিশন কাটে। বেশিরভাগ ECN ব্রোকারের লাইভ চ্যাট থেকে কমিশন জানতে চাওয়া হলে শুধুমাত্র এক সাইডের কমিশনের কথা বলবে। আপনি অন্ধকারে আছেন, অন্ধকারেই থাকুন। ব্রোকার আপনাকে স্বপ্রণোদিত হয়ে জানাবে না। ঘাপলাওয়ালা ECN ব্রোকার আপনার ”EURUSD তে পার (1.00 লট) লটে রাউন্ড টার্ন কত কমিশন কাটেন” প্রশ্নের জবাবে বলবে কমিশন কাটা হয় $5.00 ডলার। যদি জিজ্ঞাসা করেন রাউন্ড টার্ন কত কাটেন? তখন বলবে পার সাইড $5.00 এবং রাউন্ড টার্ন কমিশন $10.00. তাহলে যেই লাউ সেই কদু। স্প্রেড 1.00 পিপস + কমিশন 1.00 পিপস = 2.00 পিপস কর্তন। মার্কেট মেকার ব্রোকারের সাথে পার্থক্য কোথায়? সুতরাং রাউন্ড টার্ন কমিশন পিপস আর স্প্রেড মিলিয়ে যদি মোট পিপস মার্কেট মেকার ব্রোকারের স্প্রেড পিপসের চেয়ে অনেক কম হয়, তাহলেই আপনি বলতে পারবেন যে, আপনার ECN ব্রোকারের মোট কর্তন কম। তখন শর্ট-টার্ম বা স্ক্যালপিং ট্রেড করে শান্তি পাবেন। ও হ্যাঁ, আরেকটি বিষয়! ব্রোকার আপনার থেকে প্রতি অর্ডারে কত কমিশন কেটে নিচ্ছে তা কি আপনি বের করতে জানেন? না জানলে আজকেই বের করুন। একদম সহজ। সংযুক্ত স্ক্রিনশটের মতো অর্ডার প্যানেলের যে কোনো ওপেন অর্ডারের উপরে রাইট ক্লিক করুন এবং Commission এ টিক মার্ক দিয়ে দিন। এখন থেকে প্রফিট/ লসের পাশাপাশি অর্ডারে কত কমিশন কাটা হচ্ছে সেটাও দেখা যাবে। হিস্টোরি অর্ডারেও একই কাজ করুন। Courtesy by: Tanvir Ahmed
  3. চমৎকার একটি ট্রেডিং স্ট্রেটিজি, আসলে বলিঙ্গার বেন্ড হচ্ছে সব ইন্ডিকেটরের গুরু, এই টুলস টি দিয়ে যে কতভাবে স্ট্রেটিজি সেট করা যায় তা কেবল পরছি আর শিখছি। ধন্নবাদ ভাই খুব গুরুত্তপুর্ন এবং ইফেক্টিভ একটা প্রফিট ট্রেডিং স্ট্রেটিজি।
  4. একটি ব্রোকার ব্র্যাক ব্যাংক ও ডিবিবিল এর মাধ্যমে ব্যাংক ডিপোজিটের অপশন চালু করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে দেশের সকল ব্যাংকের প্রতিটি ইনকামি ও আউটগোয়িং ট্রানজেকশন কঠোরভাবে মনিটর করা হয়। বাংলাদেশ থেকে বিদেশের ব্রোকারে টাকা ট্রান্সফার করে ফরেক্স ট্রেডিং করা বৈধ নয়। তার উপরে সরাসরি যদি ব্যাংকের মাধ্যমে কোনো ব্রোকারে টাকা ট্রান্সফার করেন তাহলে খুব বেশিদিন অপেক্ষা করতে হবে না, আপনি নিজে আইনি ঝামেলায় জড়াবেন সাথে সেই ব্যাংকও কিছুটা ঝামেলায় জড়াবে। তবে ব্যাংক ঝামেলা থেকে পার পেয়ে যাবে যেকোনো উপায়ে, পার পাবেন না আপনি। সেই সাথে নিজের ফরেক্স ট্রেডিং ক্যারিয়ার তো ধ্বংস করবেনই সাথে বাংলাদেশের বাকি ফরেক্স ট্রেডারদেরকেও হুমকির মুখে ফেলে দেবেন। পরিণতিতে মোটামুটি নির্বিঘ্নে করে আসা ফরেক্স ট্রেডিং আর নির্বিঘ্নে করা যাবে না। সাবধানতা অবলম্বন করুন। নিজে সেফ থাকুন, অন্য ট্রেডারকেও সেফ থাকতে সহায়তা করুন। ভুলেও ব্যাংকের মাধ্যমে ডিপোজিট-উইথড্র করতে যাাবেন না। অনেক সমস্যা থাকার পরেও নেটেলার-স্ক্রিলই ভালো। যে কুম্ভকর্ণ ঘুমিয়ে আছে তাকে অযথা খোঁচাতে যাবেন না। জেগে গেলে সবার বারোটা বাজিয়ে দেবে এ আমি হলফ করে বলে রাখলাম। কুম্ভকর্ণ বলতে কাকে বুঝাচ্ছি তা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন! অনুগ্রহপূর্বক ফরেক্স রিলেটেড যে যত পারেন শেয়ার করুন অথবা কপি-পেস্ট করে সবাইকে সচেতন ও সতর্ক করে দিন। এভাবেই আমরা তাদের এই অপরিণামদর্শী ক্ষতিকর প্রয়াসটি ভুন্ডল করে দিতে পারি। Post Courtesy by: Tanvir Ahmed
  5. Very Informative , Thank you - হা মুল কাজ হিসেবে ফরেক্স ট্রেডিং বেঁছে নেওয়ার আগে উপরের প্রশ্ন গুলোর সঠিক জবাব দেওয়াটা জরুরি বটে, নচেৎ নিজের পায়ে নিজেই কুড়াল মারার সমান হবে। ধন্নবাদ ভাই গুরুত্তপুর্ন সব বিষই তুলে ধরার জন্য।
  6. ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেন বের হয়ে গেলেও দেশটির সাথে কাজের সম্পর্ক ভালো আছে বলে উল্লেখ করেছেন জার্মান চ্যান্সেলর৷ ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সম্মেলনের প্রথম দিন ছিল বৃহস্পতিবার৷ সেইদিনের কথা উল্লেখ করে ম্যার্কেল বলেন, আমাদের জন্য এটা আসলেই একটা ভালো বার্তা৷ বৃহস্পতিবারের সম্মেলনে ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে প্রথমবারের মতো অংশ নিলেন৷ এবারের সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে অভিবাসীর প্রবেশের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া৷ গত বছর ১০ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী ইউরোপে প্রবেশ করেছে৷ তাই সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ আরোপের বিষয়টিতে সিদ্ধান্তে পৌঁছাবেন তারা৷ আর কবে নাগাদ শেঙেন দেশগুলোর মধ্যে ক্ষণস্থায়ী চেকপোস্টগুলো সরিয়ে নেয়া হবে. সে বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এই সম্মেলনে৷ ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলঁদ বলেছেন, ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর কোনো প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ না রাখলে সেটার ভয়াবহ পরিনাম তাদের ভোগ করতে হবে৷ তাই ব্রিটেনকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, তাদের সাথে আলোচনাটা মোটেও সহজ হবে না৷ সাংবাদিকরা গতকালের আলোচনা শেষে ইইউ এর শীর্ষ নেতাদের ব্রিটেনের ইইউ ছাড়ার প্রসঙ্গে প্রশ্ন করেন৷ নেতারা জানান ‘‘এটা ব্রিটেনের জনগণের হাতেই আছে৷ তবে তারা যদি ফিরে আসে তবে আমরা খুশিই হব৷ সিরিয়ায় অভিযান চালানোর জন্য রাশিয়ার বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপের পরিকল্পনা করছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যা শুক্রবার সকালে তারা বাতিল করে দেয়৷ ইটালির শক্ত বিরোধের কারণে এ পরিকল্পনা বাতিল করতে বাধ্য হয় তারা৷ ম্যার্কেল এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘আলেপ্পোতে যদি এরপরও বিমান হামলা চলতে থাকে, তাহলে আমাদের বুঝতে হবে, আমাদের কিছু করার ছিল, যা করিনি৷” ম্যার্কেল বলেন, সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এখনো ফুরিয়ে যায়নি৷ বুধবার বার্লিনে জার্মান চ্যান্সেলর ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন৷ কিন্তু কোনো ইস্যুতেই তাদের মধ্যে কোনো সমঝোতা হয়নি৷
  7. কিভাবে লসের খাঁচা ভেঙ্গে বেরিয়ে আসবেন? ফরেক্স মার্কেটে অনেক সময় ট্রেডারদের এমন সময় যায় যখন তারা কেবল লসই করতে থাকেন। একের পর এক লস করতে করতে তারা হতাশ হয়ে পড়েন এবং ফরেক্স থেকেই বিদায় নিতে চান। আসুন দেখি কিভাবে এই লসের বৃত্ত ভেঙ্গে বেড়িয়ে আসা যায়। ১. লট সাইজ কমিয়ে দিনঃ আমাদের যখন একের পর এক লস হতে থাকে তখন আমরা সব লস রিকভার করার জন্য লট সাইজ বাড়িয়ে দিই কিন্তু এই ট্রেডটিও আমাদের বিপরীত দিকে গেলে আমাদের একাউন্ট ঝুকির মুখে পড়ে যায়। তাই যখন আমাদের ট্রেড একের পর এক লস হতে থাকবে তখন আমাদের উচিত লট সাইজ কমিয়ে ট্রেড করা। স্বাভাবিক অবস্থায় আমরা যদি ৩% রিস্ক নিয়ে ট্রেড করে থাকি তাহলে আমাদের রিস্ক ১% বা .৫০% এ নিয়ে আসা উচিত এতে আমাদের ট্রেডগুলো বিপরীতদিকে গেলেও খুব বেশী লস হবে না। এবং যখন আমাদের মাঝে আত্ববিশ্বাস ফিরে আসবে তখন আবার স্বাভাবিক রিস্কে ট্রেড করা উচিত। ২. বড় টাইমফ্রেম বেছে নিনঃ যদি আমরা স্বাভাবিক ভাবে M30, H1 দেখে ট্রেডিং করি তাহলে আমাদের উচিত Daily, Weekly H4 দেখে ট্রেড করা। তাহলে আমাদের ট্রেড উইনিং চান্সটিও বেড়ে যাবে। ৩. একটি পেয়ার বেছে নিনঃ আমাদের ট্রেড লসের এই বৃত্ত ভাঙ্গতে না পারলে আমাদের উচিত নির্দিষ্ট একটি কারেন্সি পেয়ার বেছে নিয়ে তাতে ট্রেড করা এবং আমাদের সম্পূর্ণ মনোযোগ ঐ নির্দিষ্টি একটি পেয়ারেই দেওয়া। ৪. কিছুদিন বিশ্রাম নেওয়াঃ একটানা ট্রেড করতে করতে অনেক সময় মাথা জ্যাম হয়ে যায় তাই অনেক সিদ্ধান্ত সঠিকভাবে নেওয়া যায়না। তাই আমাদের কিছুদিন বিশ্রাম প্রয়োজন। আমাদের ট্রেড যদি উপর্যোপরি লস হতেই থাকে তবে আমাদের উচিত কিছুদিনের জন্য বিশ্রামে যাওয়া। এই সময় চার্টের দিকে না তাকিয়ে বা মার্কেটের কোন খবর না নিয়ে দূরে কোথাও ঘুরতে যাওয়া উত্তম। সেখান থেকে ফিরে ফ্রেস মনে আবার ট্রেড করা উচিত। ৫. ডেমু একাউন্টে ট্রেড করাঃ তবুও যদি লসের বৃত্ত না ভাঙ্গা যায় তাহলে আমাদের কিছুদিন ডেমু একাউন্টে ট্রেড করা উচিত। তবে ঐ সময় আমাদের ডেমু একাউন্টটিকেই লাইভ একাউন্টের মতই গুরুত্ব দিয়ে করতে হবে এবং এখানেও লস হলে লসের কারণগুলো খুঁজে বের করতে হবে। ৬. নির্দিষ্ট একটি ক্যান্ডেলস্টিক প্যাটার্ন মেনে ট্রেড করাঃ যখন আমাদের কেবল লস হতেই থাকবে তখন আমাদের উচিত নির্দিষ্ট একটি ক্যান্ডেলস্টিক প্যাটার্ন মেনে ট্রেড করা। যেমন তা হতে পারে RSI ট্রেন্ডলাইন । মার্কেটে যখনই এগুলো দেখা যাবে তখনই আমরা ট্রেড করবো অন্যথায় বিরত থাকবো। এতে করে একটি নির্দিষ্ট প্যাটার্নের উপর আমাদের যথেষ্ট দক্ষতা চলে আসবে এবং ঐ প্যাটার্নের উপর আমাদের উইনিং চান্সটিও বেড়ে যাবে। ৭. নিজের উপর বিশ্বাস রাখাঃ নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। নিজের স্ট্যাটেজির উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। মনে মনে এই মন্ত্র জঁপতে হবে যে “আমি পারব, অবশ্যই পারব” এবং এই পারার জন্য সাধনা চালিয়ে যেতে হবে। নিজের যে ট্রেডগুলো লস হয়েছে তা পরীক্ষাগারে রেখে তার উপর ছুড়ি চালিয়ে লস হওয়ার কারণগুলো খুঁজে বের করতে হবে। সব শেষেঃ মাতৃজঠর থেকে বেরিয়েই কেউ গুরু হয়ে যায়না, “প্রত্যেক গুরুই একসময় ছাত্র ছিল” এবং ধীরে ধীরে চেষ্টায় তারা গুরুর মর্যাদা লাভ করে। তাই আমাদের চেষ্টা ও অধ্যাবসায় চালিয়ে যেতে হবে। ফরেক্স মার্কেটে আসার আগে বা একে বিদায় জানানোর আগে আমাদের নিজেকে প্রশ্ন করা উচিত আমরা পরাজিত হতে চাই নাকি জয়ী? আমাদের জেনে রাখা উচিত “যারা টিকে থাকে তাদের মধ্য থেকেই জয়ী নির্বাচিত হয়” আর “হাততালি পেতে হলে মাঠে নামতে হয় অন্যথায় দর্শকসারিতে বসে অন্যকে হাততালি দিতে হয়”। ট্রেন্ডলাইন সম্পর্কে কিছু আলোচনা ট্রেন্ডলাইন : ট্রেন্ডলাইন খুব সাধারন এক ধরনের অ্যানালিসিস। ট্রেন্ডলাইনের আবার সবচেয়ে বেশি অপব্যাবহার করা হয়। যদি ট্রেন্ডলাইন ঠিক করে আকা হয় তাহলে এটা অন্যান্য মেথডের মত প্রাইসের সঠিক ধারা দেখাবে। দুর্ভাগ্যক্রমে বেশিরভাগ ট্রেডাররাই ট্রেন্ডলাইন ঠিক করে আকে না আর তারা লাইনগুলোকে নিজের ইচ্ছামত মার্কেটে ফিট করার চেষ্টা করে। ট্রেন্ডলাইন কিভাবে ড্র করে? সঠিকভাবে ট্রেন্ডলাইন ড্র করতে আপনাকে ২টা মেজর টপ অথবা বটম খুজে বের করতে হবে । ৩ ধরনের ট্রেন্ড : আপট্রেন্ড - যখন প্রাইস হাইয়ার লো দেখায় ডাউনট্রেন্ড - যখন প্রাইস লোয়ার হাই দেখায় সাইড/ফ্ল্যাট ট্রেন্ড - যখন প্রাইস একটা রেঞ্জের মধ্যে চলাচল করে । ট্রেন্ডলাইন সম্পর্কে কিছু জিনিস মনে রাখবেন: *ট্রেন্ডলাইন ড্র করতে ২টা টপ অথবা বটম প্রয়োজন, কিন্তু ট্রেন্ড নিশ্চিত করতে ৩য় টপ অথবা বটম লাগে। *ট্রেন্ডলাইন যত খাড়া হবে সেটা ততো অনির্ভরশীল হবে। *ট্রেন্ডলাইন যত সাপোর্ট ও রেজিস্টেন্স টেস্ট করবে, তা ততো নির্ভরযোগ্য হবে। *টেন্ডলাইনকে মার্কেটে ফিট করার চেষ্টা করবেন না। যদি ট্রেন্ডলাইন ফিট না হয়, তাহলে সেটা সঠিক ট্রেন্ডলাইন না। Courtesy by: Azim
  8. এমন হওয়ার তো কথা নয়, আপনি অদের অনলাইন সাপোর্টে যোগাযোগ করেন। এবং আপনার সমস্যা টা নিয়ে আলোচনা করেন আশা করি ঠিক করে দিবে।
  9. আপনি কি আপনার ট্রেডিং একাউন্টের Swap (সুদ) এর বিষয়ে সচেতন? যদি সচেতন না হোন, তাহলে আজকে থেকেই সচেতন হোন এবং বিগত দিনের এবং রানিং ট্রেডিং একাউন্টগুলোর Swap (সুদ) গণনা করে সেগুলো সোয়াবের নিয়্যত ছাড়া দান করে দিন। কারণ মহান আল্লাহ পাক পবিত্র কোরআনের সুরা বাক্কারায় বলেছেন, “আমি ব্যবসাকে হালাল করেছি এবং সুদকে করেছি হারাম।” যেহেতু আমরা ফরেক্স ট্রেডিং করছি এবং চাইলেও অনেক ক্ষেত্রেই সোয়াপ-মুক্ত একাউন্ট পাই না, তাই বাধ্য হয়ে সোয়াপ-যুক্ত একাউন্টে ট্রেড করতে হয়। সাধারণত একদিনের বেশি ট্রেড হোল্ড করলে রানিং অর্ডারের উপর সোয়াপ ধার্য হয়ে থাকে। যারা ডে ট্রেডিং (দিনের ট্রেড দিনের মধ্যেই ক্লোজ) কিংবা স্ক্যালপিং ট্রেডিং করে থাকেন, তাদের একাউন্টে সাধারণত সোয়াপ যুক্ত হয় না। একদিনের বেশি ট্রেড হোল্ড করতে গেলেই সোয়াপের কার্যক্রম শুরু হয়ে যায়। বেশিরভাগ কারেন্সি পেয়ারেই সোয়াপ আপনার একাউন্ট থেকে কেটে নেয়া হয়। তবে কিছু কিছু কারেন্সি পেয়ারে আপনার একাউন্টে সোয়াপ যোগ হয়ে থাকে। অর্থাৎ আপনি সুদ পেয়ে থাকেন। যেক্ষেত্রে আপনার একাউন্ট থেকে সোয়াপ (সুদ) কেটে নেয়া হয়, সেক্ষেত্রে আপনার করার কিছুই নেই। অর্থাৎ এটা কিন্তু আপনি না চাইলেও দিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু যে কিছু কিছু ক্ষেত্রে সোয়াপ (সুদ) আপনি না চাইলেও আপনার একাউন্টে যোগ হয়ে যাচ্ছে, পরিমাণে যত কমই হোক না কেন সেটা কিন্তু আপনি পেয়ে যাচ্ছেন। অর্থাৎ আপনি বিধান মেনে চলা মুসলিম হিসেবে সুদ নিশ্চয়ই খাবেন না? তাই আপনার উচিত একাউন্টে যোগ হওয়া এই সোয়াপ (সুদ) পরিমাণে যত কমই হোক না কেন, সে বিষয়ে সচেতন থাকা এবং টাইম টু টাইম সেই সোয়াপ হিসাব করে বের করে ফেলা। একাউন্ট থেকে প্রফিট উইথড্র করার পরে উক্ত সোয়াপ বা সুদ সোয়াবের নিয়্যত ছাড়া দান করে দেয়াটাই হবে সঠিক কাজ। আপনাদেরকে উক্ত সোয়াপ বিষয়ে সচেতন করাসহ সহজেই সোয়াপের হিসাব বের করার জন্য আমি আপনাদেরকে অামার নিজের তৈরি একটি Script উপহার হিসেবে দিচ্ছি। এই Script দিয়ে আপনি একাউন্ট শুরুর দিন থেকে কিংবা নির্দিষ্ট দিন গণনা করে সোয়াপ বের করে ফেলতে পারবেন। সুতরাং সোয়াপ বিষয়ে সচেতন হোন এবং সোয়াপ গণনা করে বের করে প্রাপ্ত সোয়াপ বিনা সোয়াবের নিয়্যতে দান করে দিয়ে আল্লাহকে সন্তুষ্ট করুন। Collected from Tanvir Ahmed